× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার
মানিকগঞ্জ-২

মমতাজের টেনশন জাতীয় পার্টি ও যুক্তফ্রন্ট

ইলেকশন কর্নার

রিপন আনসারী, মানিকগঞ্জ থেকে | ২৪ নভেম্বর ২০১৮, শনিবার, ৯:১৬

 মানিকগঞ্জ-২ আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বর্তমান সংসদ সদস্য ও কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগমের টেনশন এখন আওয়ামী লীগের শরিক দল জাতীয় পার্টি ও বি. চৌধুরীর যুক্তফ্রন্টকে নিয়ে। ২০০৮ সালের নির্বাচনে জয়ী মহাজোটের প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য এস এম আবদুল  মান্নান কোমর বেঁধেই নেমেছেন মনোনয়ন নিশ্চিত করতে। পাশাপাশি নতুন মেরূকরণে যোগ হয়েছে বিকল্পধারায় যোগ দেয়া নেতা সাবেক শিক্ষা উপমন্ত্রী  ও ব্যবসায়ী গোলাম সারোয়ার মিলন। দুই দিকের মনোনয়ন লড়াইয়ের চাপে বর্তমান সংসদ সদস্য মমতাজ বেগম শেষ পর্যন্ত দলীয় মনোনয়ন বাগিয়ে আনতে পারবেন  কিনা-  এমন প্রশ্ন আর আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে নির্বাচনী এলাকার মানুষের ভেতর।
পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ২০০৮ সালের ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মহাজোট গঠন করে নির্বাচনে অংশ নিলে সেখানে আওয়ামী লীগের শক্তিশালী দুই প্রার্থীকে দুই দফায় মনোনয়ন দেয়া হলেও পরে নানা নাটকীয়তায় মনোনয়ন পান মহাজোটের শরিক দল জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি এমএম আবদুল মান্নান। তিনি তার আগে বিএনপি ঘরানার নেতা ছিলেন। সুযোগ বুঝে জাতীয় পার্টিতে যোগ দিয়েই পেয়ে যান মনোনয়ন এবং লুফে নেন জয়। এরপর ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারি বিএনপিবিহীন নির্বাচনে জাতীয় পার্টি এই আসনে প্রার্থী না দিলে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পান কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম।
বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় পেয়ে যান জয়। ২০০৮ সালেও মমতাজ বেগম সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন। তার এখন মূল টার্গেট একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন নিশ্চিত করা।
কিন্তু একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেয়ায় আগের সেই হিসাবনিকাশ পাল্টে যায়। কদর বেড়ে যায় মহাজোটের। মহাজোটের দুই শরিক দল জাতীয় পার্টি এবং বি. চৌধুরীর যুক্তফ্রন্ট এখন মমতাজ বেগমের টেনশনের কারণ হয়ে উঠেছে। আওয়ামী লীগের সঙ্গে মহাজোটের শরিকদের মনোনয়ন ভাগাভাগির ফয়সালা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে কে পাচ্ছেন পদ্মার ভাঙনকবলিত সিংগাইর, হরিরামপুর ও সদর উপজেলার একাংশ নিয়ে গঠিত মানিকগঞ্জ-২ আসনের মহাজোটের টিকিট।
 তবে সিংগাইর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলামের দাবি, বর্তমান সংসদ সদস্য মমতাজ বেগম এলাকায় রেকর্ড পরিমাণ কাজ করেছেন। দলীয় নেতাকর্মীরা সবাই তার পক্ষে আছে। সেই কারণে এখানে মমতাজের বিকল্প কেউ হতে পারে না। তিনিই মানিকগঞ্জ-২ আসনে মনোনয়ন পাবেন। জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি বিল্লাল হোসেনের দাবি, ২০০৮ সালের মতো একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসনটি জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দেয়া হবে। সাবেক সংসদ সদস্য এসএম আবদুল মান্নান সেই  গ্রিন সিগন্যাল পেয়ে গেছেন। সে লক্ষ্যে তিনি এবং দলীয় নেতাকর্মীরা কাজও চালিয়ে যাচ্ছেন।
এদিকে যুক্তফ্রন্ট নেতারা বলছেন, এই আসনে এবার মহাজোট থেকে সাবেক শিক্ষা উপমন্ত্রী গোলাম সারোয়ার মিলনই মনোনয়ন পাবেন। কারণ তার যোগ্যতার কাছে কেউ টিকতে পারবে না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর