× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার
পটুয়াখালী -৩

আলোচনায় সিইসি’র ভাগ্নে সাজু ও জাহাঙ্গীর

ইলেকশন কর্নার

পটুয়াখালী প্রতিনিধি | ২৫ নভেম্বর ২০১৮, রবিবার, ৮:৩২

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পটুয়াখালী-৩ আসনে আওয়ামী লীগে শেষ পর্যন্ত এমপি পদে মনোনয়ন প্রত্যাশীর সংখ্যা ২২ জনে দাঁড়িয়েছে। এরা সবাই দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেও আলোচনার শীর্ষে আসছে দুইজনের নাম। হেভিওয়েট মনোনয়ন প্রত্যাশী চার চারবার এমপি নির্বাচিত সাবেক বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী আখম জাহাঙ্গীর হোসাইন এমপি বনাম তরুণ মনোনয়ন প্রত্যাশী এসএম শাহজাদা সাজুর নাম আলোচনায় এসেছে। এসএম শাহজাদা সাজু আওয়ামী লীগ থেকে নৌকার মনোনয়ন পাচ্ছেন বলে এলাকায় আলোাচনার ঝড় যেমন উঠেছে তেমনি প্রবীণ ত্যাগী নেতাদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়াও সৃষ্টি হচ্ছে। এসএম শাহজাদা সাজু আওয়ামী লীগের কোনো পদ হোল্ড না করলেও ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধকালীন পটুয়াখালীর কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা কেএম নূরুল হুদা প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব নেয়ার পরই এসএম শাহজাদা সাজু নিজেকে আওয়ামী লীগের সবচেয়ে শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়ে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। হেভিওয়েট প্রার্থী আখম জাহাঙ্গীর হোসাইন এমপির একনিষ্ঠ সমর্থক ও ত্যাগী নেতা গলাচিপা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা টিটু বলেন, এসএম শাহজাদা সাজুর পরিবারে কেউ কোনোদিন আওয়ামী লীগ করেননি। তিনি নিজেও সংগঠনে যুক্ত ছিলেন না বা এখনো নেই। অথচ কেবলমাত্র সিইসি কেএম নূরুল হুদা’র বোনের ছেলে অর্থাৎ ভাগ্নে- এ পরিচয়কে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে তৃণমূলে সমর্থন আদায়ের চেষ্টার পাশাপাশি দলকেও বিতর্কিত করার চেষ্টা করছেন।
দলে কোনো পদ নেই। দলীয় কর্মকাণ্ডে তাকে অংশগ্রহণ করতে দেখিনি। সিইসি’র আত্মীয়তার সুবাদে মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়েছেন।
এলাকার একাধিকজন জানান, এ আসনটি আওয়ামী লীগের ঘাঁটি।  সিইসি কেএম নূরুল হুদা’র বোনের ছেলে অর্থাৎ ভাগ্নে- এসএম শাহজাদা নৌকার নমিনেশন পেলে তরুণদের সমর্থন লাভ করতে পারেন এবং বিজয়ী হবেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর