× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বুধবার

মির্জাগঞ্জে শিক্ষককে ঝাড়ুপিটা

বাংলারজমিন

মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি | ৫ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার, ৯:২৩

 মির্জাগঞ্জ উপজেলার কিছমত শ্রীনগর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কমিটি গঠনের দ্বন্দ্বের জের ধরে এক সহকারী শিক্ষিকা ওই বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষককে ঝাড়ুপিটা করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কক্ষে। বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মচারীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানা যায়, ওইদিন সকালে প্রধান শিক্ষক ছুটিতে থাকায় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. হারুন-অর-রশিদ তার কক্ষে দায়িত্ব পালন করছিলেন এ সময় সহকারী শিক্ষিকা লুৎফুন নেছা খানমের সঙ্গে সদ্য গঠিত কমিটি গঠন নিয়ে কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে লুৎফুন নেছা উত্তেজিত হয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষককে (ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক) একটি ঝাড়ু দিয়ে বেধড়ক পিটাতে থাকেন। এ সময় অন্য শিক্ষক কর্মচারীরা এসে পরিস্থিতি শান্ত করেন। সহকারী শিক্ষিকা লুৎফুন নেছা ঝাড়ুপিটার কথা স্বীকার করে বলেন, আমি একটি বই নিয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষকের রুমে গেলে উনি আমার হাত ধরে যৌন হয়রানির চেষ্টা করলে আমি বাধ্য হয়ে তাকে ঝাড়ুপিটা করি। সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. হারুন-অর-রশিদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ বিদ্যালয়ের কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। ওই সহকারী শিক্ষিকা লুৎফুন নেছা আমার কাছে কমিটি গঠনের বিষয় জানতে চাইলে আমি কিছু জানি না বলে তাকে জানাই।
এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি আমাকে ঝাড়ু দিয়ে পিটিয়ে লাঞ্ছিত করে। এ ব্যাপারে বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মো. আনছার উদ্দিন  জানান, ঘটনার দিন আমি জরুরি কাজে বিদ্যালয়ের বাইরে ছিলাম। তবে মোবাইল ফোনে শিক্ষকদের কাছে ঘটনা শুনেছি। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর