× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার

বাগানের গাছ লুট, অসহায় কিশোরী

বাংলারজমিন

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি | ৬ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৯:৩২

চকরিয়া উপজেলার বানিয়ারছড়া স্টেশনের অদূরে ফাইতং পুলিশ ফাঁড়ির পেছনে আদালতের আদেশ লঙ্ঘনের মাধ্যমে কয়েকদিন ধরে অসহায় পরিবারের সৃজিত বাগানের গাছ কেটে লুটের মহোৎসব চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবারও দিনদুপুরে বাগানে ঢুকে অন্তত ৫০০-৫৫০টি ছোট-বড় গাছ কেটে লুটে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্ত দল। গতকাল বিকালে চকরিয়া প্রেস ক্লাবে উপস্থিত হয়ে সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ তুলেছেন বাগান মালিক ফাইতং ইউনিয়নের সুতাবাদী পাড়া গ্রামের বাসিন্দা মরহুম আতিকুল মাওলার মেয়ে জারিন তাসনোভা সামিহা (২০)। ওইসময় সামিহার মা উম্মে আম্মারাও উপস্থিত ছিলেন। বাগান মালিকের মেয়ে জারিন তাসনোভা সামিহা বলেন, ৩০৬ নম্বর ফাইতং মৌজার হর্টি ৩০ নম্বর হোল্ডিংয়ের অধীন ১২৬৯, ১৪১৬, ১৪৮৮ ও ১৬২৯ আন্দর দাগের একশত একর জায়গা সমহারে ও যৌথভাবে তার বাবা মরহুম আতিকুল মাওলার নামে রেকর্ডভুক্ত আছে। উল্লেখিত জায়গায় আতিকুল মাওলা জীবিতকালে বিপুল টাকা বিনিয়োগ করে বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ ও বনজ গাছের চারা লাগিয়ে বাগান সৃজন করে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ-দখলে রয়েছেন। ১৯৯৮ সালে আতিকুল মাওলা মারা গেলে সেই থেকে স্ত্রী উম্মে আম্মারা ও মেয়ে জারিন তাসনোভা সামিহা বাগানসহ জায়গাসমূহ রক্ষণাবেক্ষণ করে আসছেন। জারিন তাসনোভা সামিহার অভিযোগ, তার বাবা বেঁচে নেই।
মা উম্মে আম্মারা চট্টগ্রামে শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত আছেন। তিনিও মায়ের সঙ্গে সেখানে থাকেন। সেই সুযোগে ফাইতংয়ের বাসিন্দা জাহাঙ্গীর আলম ও তার ছেলে জহিরুল ইসলাম কূটকৌশল অবলম্বন করে বাাগানসহ সমুদয় জায়গা দখলে নেয়ার জন্য কয়েকমাস ধরে নানাভাবে অপচেষ্টা চালাতে শুরু করেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর