× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার
মাঠে চার প্রার্থী

কক্সবাজারে কোন্‌ আসন পাচ্ছে জাপা?

বাংলারজমিন

রাসেল চৌধুরী, কক্সবাজার থেকে | ৬ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৯:৪৪

কক্সবাজারের যে কোনো একটি আসনে প্রার্থী হওয়ার আশায় ৪ সংসদীয় আসনে মাঠে রয়েছে জাতীয় পার্টির চার প্রার্থী। মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আছেন কক্সবাজার-১ চকরিয়া-পেকুয়ার বর্তমান এমপি জাপা কেন্দ্রীয় নেতা হাজী মোহাম্মদ ইলিয়াছ। এর মধ্যে আয়কর সংক্রান্ত অভিযোগে কক্সবাজার-২ আসনের প্রার্থী কেন্দ্রীয় নেতা মুহিবুল্লাহর মনোনয়ন বাতিল হলেও তিনিও হাল ছাড়েননি। মনোনয়ন বৈধ করার জন্য প্রধান নির্বাচন কমিশনারের অফিসে আইনিভাবে তদবির চালাচ্ছেন তিনি। মহাজোটের ব্যানারে নির্বাচন হলে গতবারের নিয়মে এখানে একটি আসন জাপা পাচ্ছে এমনটি আশায় সব আসনেই মনোনয়ন জমা দিয়েছে জাপা প্রার্থীরা। কিন্তু জেলায় কোনো জাপা নেতার ভাগ্য সুপ্রসন্ন হচ্ছে সেটা দেখতে ৯ই ডিসেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হচ্ছে রাজনীতিবিদ ও সাধারণ ভোটারদের। জোটগত নির্বাচনের গতবারের হিসাব অনুযায়ী জেলার চারটির মাঝে একটি আসনের দাবিদার জাপা। কেন্দ্রীয়ভাবে মনোনয়ন বরাদ্দকালে কক্সবাজার-৩ সদর আসনটি জিয়াউদ্দিন বাবলুকে মনোনয়নও দেয়া হয়েছিল।
কিন্তু তিনি ভিন্ন জেলায় এসে প্রার্থী হতে অনিচ্ছা প্রকাশ করায় তার বিকল্প হিসেবে জেলা জাপার সেক্রেটারি মফিজুর রহমান মনোনয়ন জমা দিয়েছেন, এমনটি দাবি জাপা নেতাদের। কিন্তু তিনি দলীয় মনোনয়ন পেলেও জোটগত প্রার্থিতা এখনো পাননি। প্রার্থিতা পাননি বাকি দু’আসনের অন্য প্রার্থীরাও। এরপরও জোটগত মনোনয়নের আশায় মাঠে বিচরণ করছেন মহাজোটের প্রধান শরিক দল জাতীয় পার্টির চার নেতা। কক্সবাজার-৩ সদর-রামু আসনে মফিজুর রহমানের বিপরীতে এ আসনে আওয়ামী লীগের হয়ে নৌকার টিকেটে মাঠে রয়েছেন বর্তমান সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল। কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনে জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকে নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন টেকনাফ উপজেলা জাপা সভাপতি মাস্টার আবুল মনজুর। তিনি এমপি বদির হাতে ইতিপূর্বে শারীরিক লাঞ্ছনার শিকার হয়ে পরিচিতি পান। তার সঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়ে মাঠে রয়েছেন বিতর্কিত সংসদ আবদুর রহমান বদির স্ত্রী শাহিনা আকতার। আর কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে মাঠে রয়েছেন সেই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইলিয়াছ। সেখানে আওয়ামী লীগের নৌকা নিয়ে মাঠে রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর আলম। এছাড়াও কক্সবাজার-২ আসনে মনোনয়ন বৈধ করার আশায় প্রধান নির্বাচন কমিশনারের অফিসে আইনিভাবে তদবির চালাচ্ছেন মনোনয়ন বাতিল হওয়া মুহিবুল্লাহও।এদিকে, জোটগতভাবে জাপা কোনো আসনটি পাচ্ছে সেটা দেখার জন্য আগামী ৯ই ডিসেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। এদিন কোন কোন প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করছেন তার উপরই জাপার জেলা পর্যায়ের কোন নেতার ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলো তা দেখতে পাবে কক্সবাজারবাসী।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর