× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার

বিএনপি সরে গেলেও যথাসময়ে নির্বাচন হবে

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ৬ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ১০:১৩

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন হবে কিনা, এ নিয়ে কারও সন্দেহ নেই। কোনো মিডিয়ায় এ ধরনের সংশয় নিয়ে খবর প্রকাশ হয়নি। বিএনপি সরে গেলেও যথাসময়ে নির্বাচন হবে। নির্বাচন কারও জন্য আটকে থাকবে না। কেউ যদি সরেও যায়, নির্বাচন সরবে না। গতকাল ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন তিনি। সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়ন করছে নির্বাচন কমিশন- বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের এমন অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, তারা নির্বাচন বানচালের নীলনকশা লন্ডন থেকে করছে। আমাদের কোনো নীলনকশা নেই।

আমাদের নীলনকশা অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচনের।
বিভিন্ন জায়গায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সম্ভাবনা রয়েছে। তাদের বিষয়ে কবে ব্যবস্থা নেয়া হবে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ৯ তারিখ মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। এরপর সঙ্গে সঙ্গে বহিষ্কার করা হবে। নাগরিক ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না অভিযোগ করে বলেছেন, এই সরকার মানুষ খেয়ে ফেলছে এবং ১০ তারিখের পর জনগণ রাস্তায় নামবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে- এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকার কী ভূমিকা পালন করছে, সেটা জনগণ ৩০ তারিখের ভোটে বুঝিয়ে দেবে।

এ সময় মান্নাকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, মান্না সাহেব অপেক্ষা করুন। ৩০ তারিখে বাংলার মানুষের রায়ে ভোট বিপ্লব হবে, তখন বুঝতে পারবেন আপনার ধারণা কত অবাস্তব। নির্বাচনের সুস্থ পরিবেশ নেই- বিএনপির এমন অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, অসুস্থ পরিবেশ কোথায় সৃষ্টি হয়েছে এই নগরীতে? এই মুহূর্তে এই ঢাকা শহরে কোথায় পরিবেশ অসুস্থ? যেটুকু অসুস্থ হয়েছে, সেটা পল্টনে তারা করেছে। আমি নিশ্চিত করে বলছি, আমাদের তরফ থেকে নির্বাচনের পরিবেশ বিঘ্নিত হবে না। আমরা কোনো বিশৃঙ্খলা করবো না।

এ ব্যাপারে আমাদের নেত্রী নেতাকর্মীদের সতর্ক করে দিয়েছেন। কিন্তু তারা যদি বিশৃঙ্খলা-নাশকতা করতে চায়, তাহলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আমাদের প্রতিরোধ করতে হবে। এবার বিজয়ের উৎসবের মতো ভোট হবে, এজন্য তাদের মনটা একটু খারাপ। সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের উত্তরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, মন্ত্রিত্ব গেলে তিনি আবার সাংবাদিকতায় ফিরবেন। সাংবা?দিকরা তো স্মার্ট। যে কোনো ইনফরমেশন খুব তাড়াতাড়ি কালেক্ট করে ফেলে। মন্ত্রিত্ব গেলে আবার সাংবাদিক হবো। সবসময় কি আর মন্ত্রিত্ব থাকবে? যে কোনো সময় ক্ষমতা চলে যেতে পারে। ক্ষমতায় আবার ফিরে আসব এরকম নিশ্চয়তা আর দিতে পারি না। প্রসঙ্গত ওবায়দুল কাদের দীর্ঘদিন সাংবাদিকতা করেছেন। যুক্ত ছিলেন বাংলার বাণী পত্রিকার সঙ্গে। রাজনীতির পাশাপাশি লেখালেখিও করেন ওবায়দুল কাদের। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের হলফনামায় তিনি উল্লেখ করেছেন লেখালেখি থেকে গড়ে মাসে ৪০ হাজার টাকা আয় করেন। এর আগে গতকাল সকালে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। বেছে বেছে বিএনপির জনপ্রিয় প্রার্থীদের মনোনয়ন বাদ করছে নির্বাচন কমিশন।

বিএনপির এমন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে তিনি বলেন, তথ্য প্রমাণ দিয়ে তাদের (বিএনপি) এটা বলতে হবে। অন্ধকারে ঢিল মারলে হবে না। নির্বাচন কমিশনে বিএনপির লোকও আছে, আওয়ামী লীগের লোকও আছে। বিভিন্ন দল থেকে সার্চ কমিটির মাধ্যমে এই নির্বাচন কমিশন গঠিত হয়েছে। তিনি বলেন, এখন যারা নির্বাচন কমিশন পুনরায় গঠনের কথা বলেন তারা নির্বাচন বানচাল করতে চান। কারণ, এখন কমিশন পুনরায় গঠনের কোনো বাস্তবসম্মত অবস্থা নেই। তিনি বলেন, টাকার বিনিময়ে গণহারে মনোনয়ন বাণিজ্য করেছে বিএনপি। তাদের ১৪১ জন বাদ যাওয়ার পরেও ৫৫৫ জন এখনও রয়ে গেছে। অথচ নির্বাচন করবে তিন শ’ জন। যে টাকা দিয়েছে বিএনপি তাকেই মনোনয়ন দিয়েছে। আমরা মাত্র ১৬ জনকে ডাবল মনোনয়ন দিয়েছি। এর মধ্যে তিনজন বাদ গেছে।

বিএনপি এত মনোনয়ন বিক্রি করলো তাহলে এটা কি তাদের সাংগঠনিক দুর্বলতা, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা বিএনপির পুরনো অভ্যাস। অতীতেও তারা এরকম করেছে। তাদের দলে দুর্নীতি অস্থিমজ্জার সঙ্গে মিশে আছে। দুর্নীতির জন্য এ দলের খ্যাতি আছে। বিএনপি ক্ষমতায় এলে আরেকটা হাওয়া ভবন হবে। এই দল দুর্নীতিতে পাঁচ বার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। কানাডার ফেডারেল আদালত এ দলকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে রায় দিয়েছেন। সন্ত্রাসী ও দুর্নীতিবাজ দলের দুর্নাম তারা কিভাবে মুছবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা বিএনপির সাংগঠনিক দেউলিয়ার পরিচয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর