× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার
এক শিক্ষক গ্রেপ্তার

ভিকারুননিসার অধ্যক্ষসহ ৩ শিক্ষক বরখাস্ত

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ৬ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ১০:২২

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুলের ছাত্রী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় প্ররোচনাকারী হিসেবে প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ, শাখা প্রধান এবং এক শ্রেণিশিক্ষককে বরখাস্ত করে তাদের এমপিও স্থগিত করা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশের প্রেক্ষিতে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ওই তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে গভর্নিং বডিকে বলেছে কমিটি। গতকাল সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এই তিন শিক্ষক হলেনÑ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, শাখা প্রধান জিন্নাত আখতার ও শ্রেণিশিক্ষক হাসনা হেনা। তাদের মধ্যে হাসনা হেনাকে রাতে গ্রেপ্তার করেছে। উত্তরা থেকে ডিবির একটি দল তাকে গ্রেপ্তার করে।

তার গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার খন্দকার নুরুন্নবী। শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন বন্ধসহ ৬ দফা দাবিতে ফের সড়কে অবস্থান নিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে ভিকারুননিসার প্রতিটি শাখার সব শ্রেণির সব ধরনের ক্লাস-পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এ স্থগিতাদেশ বহাল থাকবে। গভর্নিং বডির শিক্ষক প্রতিনিধি মুশতারী সুলতানা গতকাল সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান। কিন্তু পরে পরিচালনা পরিষদ এক জরুরি সভায় মিলিত হন। সেখানে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ মেনে তিন শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করেছে গভর্নিং বডি। এছাড়া শনিবার থেকে পূর্ব ঘোষিত রুটিন অনুযায়ী পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্তও নেয়া হয়। আজকের পরীক্ষা নেয়া হবে শুক্রবার এবং ৬ই ডিসেম্বরের পরীক্ষা হবে ১১ই ডিসেম্বর।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটি অধ্যক্ষের রুমে সিসিটিভি’র ফুটেজ সংগ্রহ করেছে। সেখানে সোমবার বেলা ১১টা ১৮ মিনিটে অরিত্রীকে তার বাবা-মা’র সঙ্গে অধ্যক্ষের রুমে ঢুকতে দেখা যায়। অরিত্রী পরীক্ষা হলে মোবাইল নিয়ে আসার বিষয়ে কয়েক দফা তার বাবা-মাকে অপমানজনক উক্তি ও তাকে পরীক্ষা দিতে দেয়া হবে নাÑ এমন কথা শুনার পর ১১টা ২২ মিনিটে অধ্যক্ষের রুম থেকে বের হয়ে যায় অরিত্রী। এরপর তার বাবা-মা আবার কয়েক দফা অধ্যক্ষকে বুঝানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়ে ১১টা ২৫ মিনিটের দিকে তারাও বের হয়ে যান। এরপর অরিত্রী শান্তিনগরের বাসায় গিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

তদন্ত কমিটি সূত্রে জানা গেছে, অরিত্রীর বিরুদ্ধে স্কুল কর্তৃপক্ষ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নকলের অভিযোগ এনেছিল। এজন্য অরিত্রীর মা-বাবাকে  ডেকে নেন ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ। তাদের ডেকে  মেয়ের সামনেই অপমান করে বলেন, সিদ্ধান্ত হয়েছে অরিত্রীকে নকলের অভিযোগে প্রতিষ্ঠান   থেকে বের করে দেয়া হবে। এ অপমান সইতে না  পেরে বাসায় এসে অরিত্রী আত্মহত্যা করে। আত্মহত্যার কিছুক্ষণ আগে সে তার মাকে জানায়, মা এ লজ্জা নিয়ে বাঁচতে চাই না।
সার্বিক বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, মন্ত্রণালয়ের কমিটির সুপারিশের প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যে ওই তিন শিক্ষককে বরখাস্ত করতে পরিচালনা কমিটিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এই তিন শিক্ষকের এমপিও স্থগিত করা হয়েছে। এছাড়া নির্দেশনা না মানলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় গভর্নিং বডি বাতিল করবে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী। গতকাল মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের ঢাকা আঞ্চলিক অফিসের পরিচালক মো. ইউসুফের গঠিত কমিটি মন্ত্রীর কাছে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন তুলে দেন। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেনÑ অধিদপ্তরের ঢাকা আঞ্চলিক অফিসের উপ-পরিচালক শাখাওয়াত হোসেন এবং ঢাকা জেলা শিক্ষা অফিসার বেনজীর আহমেদ। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে ভিকারুননিসার বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন অধ্যক্ষ নিয়োগ না দেয়া, নির্ধারিত সংখ্যার চেয়ে বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি, অনুমোদন ছাড়া শাখা খোলাসহ আরও নানা অনিয়মের বিষয় উঠে আসে। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কমিটি তাদের (তিন শিক্ষক) প্ররোচক হিসেবে চিহ্নিত করেছে। এখন পুলিশও হাত গুটিয়ে বসে থাকতে পারবে না। পরিচালনা কমিটিও বসে থাকতে পারবে না। নাহিদ বলেন, হাইকোর্ট এই ঘটনায় কমিটি গঠনের যে নির্দেশ দিয়েছেন। নির্দেশনা অনুয়ায়ী একজন অতিরিক্ত সচিবকে প্রধান করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি দ্রুত সময়ের মধ্যেই প্রতিবেদন দিবে। সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতে এ ধরনের ঘটনা না ঘটে এবং শিক্ষার্থীরা যাতে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার না হয় সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক কর্মকর্তাকে হুঁশিয়ার করে এ সংক্রান্ত নীতিমালা অনুসরণের আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী।

এদিকে অরিত্রীর আত্মহত্যার প্ররোচনাকারী হিসেবে তদন্ত  প্রতিবেদনে প্রমাণিত হওয়ায় ভিকারুননিসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষসহ তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে র‌্যাব ও পুলিশকে চিঠি দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। গতকাল র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক ও ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনারের কাছে ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানিয়ে এ চিঠি পাঠানো হয়। এরপরই শিক্ষার্থী অরিত্রী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল বিকালে মামলাটি পল্টন থানা থেকে ডিবিতে হস্তান্তর করা হয়। ডিবি’র যুগ্ম কমিশনার মো. মাহবুব আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, মামলাটির তদন্তের ভার ইতিমধ্যে ডিবি গ্রহণ করেছে। তবে এ মামলায় এখনও কাউকে আটক বা গ্রেপ্তার করা হয়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর