× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার

গো বলয়ের রঙ বদলে বিরোধীরা আত্মবিশ্বাসী বিজেপির আসন সংখ্যা কমতে পারে একশো

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার, ৮:০৭

ভারতের গো বলয় বলে পরিচিত মধ্য ভারতের হিন্দিভাষি রাজ্যগুলি। এই রাজ্যগুলির তিনটিতে নির্বাচনে গেরুয়া রঙ বদলে যেভাবে সবুজ হয়ে উঠেছে তাতে বিরোধীরা আগামী লোকসভা নির্বাচনে ভারতকে গেরুয়ামুক্ত করার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন। মোদী ও অমিতশাহ জুটির রথের চাকা যে এমনভাবে বসে যেতে পারে তা ভাবতেও পারেন নি আচ্ছে দিনের প্রবক্তা বিজেপির এই দুই নেতা। বরং রথের চাকা বসে যাওয়ায় বিরোধীদের আত্মবিশ্বাস প্রবল হয়েছে যে, বিজেপিকে হটিয়ে দেওয়া সম্ভব। পর্যবেক্ষকদের মতে, দিল্লির রাজনীতিতে বরাবরই সবচেয়ে বড় ভূমিকা নেয় মধ্য ভারত তথা হিন্দি বলয় বা গো বলয়।

উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখন্ড, বিহার, ঝাড়খন্ড, ছত্তীসগড়, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, পাঞ্জাব, হরিয়ানা, হিমাচল প্রদেশ, জম্মু  ও কাশ্মীর, গুজরাত এবং দিল্লিই মূলত নিয়ন্ত্রণ করে রাজধানীর মসনদ। লোকসভার আসন সংখ্যা ৫৪৩। আর তার অর্ধেকেরও বেশি অর্থাৎ ম্যাজিক ফিগারের চেয়েও বেশি ২৭৩টি আসনই রয়েছে এই গো বলয়ে।
এখন বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ-র হাতে রয়েছে ২২৬ আসন। এই বিস্তীর্ণ এলাকায় ইতিমধ্যেই কংগ্রেস বীর বিক্রমে থাবা বসিয়েছে।  সেইসঙ্গে এটাও প্রমাণ হয়েছে, লোকসভা ভোটে কংগ্রেস-এসপি-বিএসপি মহাজোট হলে বিজেপির একচ্ছত্র আধিপত্যের ছাতাটা ফুটো হয়ে যাবে। 

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিগড়ের বিধানসভা ভোটের ফলের সমীকরণে লোকসভা ভোট হলে বিজেপি ৮০ থেকে ১০০টির বেশি আসন খোয়াতে পারে।  তবে উত্তর ও পশ্চিম ভারতের আসন খোয়ানোর সম্ভাবনা প্রবল হওয়ায় পশ্চিমবঙ্গ থেকে তা পুষিয়ে নেবার যে স্বপ্ন দেখছিলেন বিজেপির শীর্ষ নেতারা সেখানেও প্রবল ঘা দিয়েছে সাম্প্রতিক বিধানসভার ফল। দক্ষিণ ভারতেও গেরুয়া শিবির কোনরকম ছাপ ফেলতে পারেনি। তেলেঙ্গানায় চন্দ্রশেখররাও ধুয়ে মুছে দিয়েছেন বিজেপিকে।  অন্যত্র আঞ্চলিক দলের এতটাই প্রাধান্য এবং কতৃত্ব যে সেখানে বিজেপির দাঁত ফোটানো খুবই শক্ত। তাই এবারের ৫ রাজ্যের বিধানসভার ফলাফল বিজেপির কাছে অশনি সংকেতের সামিল।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর