× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৫ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার

একদিনে ৩ শতাধিক নেতাকর্মী গ্রেপ্তারের দাবি বিএনপির

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার | ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার, ৯:২৯

সারা দেশে আওয়ামী লীগের লোকজনের হামলা ও পুলিশি ধরপাকড় এবং মামলা দায়ের অব্যাহত রয়েছে বলে দাবি করেছে বিএনপি। দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, প্রচারণায় বের হয়ে হামলার মুখে পড়েছে ধানের শীষের বেশ কয়েকজন প্রার্থী। সারা দেশে বিএনপি ও অঙ্গদলের  অন্তত ১০ জন নেতাকে সাদা পোশাকধারীরা তুলে নেয়ার পর এখন পর্যন্ত হদিস মিলছে না। এ ছাড়া রাজধানীসহ সারা দেশে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় অন্তত তিনশ’ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ছাড়া এক কক্সবাজার জেলার ৫ থানায় ৭৫০ জন আসামি করে ৫টি গায়েবি মামলা দায়ের করে পুলিশ। রিজভী জানান, মাগুরা জেলা যুবদলের সভাপতি ওয়াসিকুর রহমান কল্লোল, জেলা ছাত্রদল সভাপতি আবদুর রহিম, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সহ-অর্থ সম্পাদক শামীম ইকবাল খানকে ঢাকার তেজগাঁও এলাকা থেকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে সাদা পোশাকধারীরা তুলে নেয়। একইভাবে বাগেরহাট-৪ আসনে মোরেলগঞ্জ উপজেলার ছাত্রদল নেতা জুলফিকার আলী জুয়েল, নওগাঁর ধামইরহাট সদর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হায়দার আলী ও পত্নীতলা থানা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান, সিরাজগঞ্জ সদর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আনিছ মেম্বার, বাগেরহাট-৪ আসনে মোরেলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদল নেতা জুলফিকার আলী জুয়েল, শরীয়তপুরের সখিপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি হামিদ সরদারকে তুলে নেয়ার পর এখন পর্যন্ত তাদের কোনো খোঁজ মেলেনি।
রিজভী জানান, নোয়াখালী-৪ আসনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ধানের শীষের প্রার্থী মো. শাহজাহান সুবর্ণচর এলাকায় গণসংযোগে গেলে ভূঁইয়ারহাটে হামলার মুখে পড়েন। এ সময় ৫০ জনের অধিক নেতাকর্মী আহত হয়। বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সুবর্ণচর উপজেলা বিএনপি সভাপতি এবিএম জাকারিয়া, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি মাহবুব আলমগীর আলো, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আজগর উদ্দিন দুখু, জেলা বিএনপির উপদেষ্টা নুরুন্নবী চৌধুরীসহ ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ ছাড়া হবিগঞ্জ-৪ আসনে ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী ড. আহমেদ আবদুল কাদের, নাটোর-৩ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী দাউদার মাহমুদ, নরসিংদী-৩ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী মঞ্জুর এলাহী, নরসিংদী-৪ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী সরদার সাখাওয়াত হোসেন বকুলও গণসংযোগে বেরিয়ে হামলার মুখে পড়েছেন। রিজভী বলেন, রাজধানীর মধ্যে- ঢাকা-৩ আসনে ৫ জন  পৃষ্ঠা ৯ কলাম ১
 ঢাকা-৪ আসনে ধানের শীষের প্রার্থীর ফুফাতো ভাই আসলাম মোল্লা, এসএ টিভির সাংবাদিক মতিনসহ ৪ জন, ঢাকা-১২ আসনে ঢাকা মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি নবী সোলায়মানসহ ২ জন, ঢাকা-১৩ আসনে ২ জন, ঢাকা-১৪ আসনে ২ জন, ঢাকা-১৫ আসনে ২ জন, ঢাকা কদমতলী থানা যুবদলের সাবেক সহ-সভাপতি হাজী মোস্তফা ও কোতোয়ালি থানা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক মো. হালিমকে গ্রেপ্তার ও ধানের শীষের প্রার্থীর প্রধান নির্বাচনী সমন্বয়ক ড. রেজাউল করিমকে নিখোঁজ করে রেখেছে পুলিশ। এ ছাড়া সিলেট-১ আসনে জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ, সিলেট-৫ আসন থেকে কানাইঘাট উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুন নুরসহ ৫ জন, সিলেট-৬ আসনে গোলাপগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নোমান উদ্দিনসহ ৫ জন, মৌলভীবাজার-১ আসনে ২ জন, মৌলভীবাজার-৪ আসনে ৩ জনকে, শ্রীমঙ্গল থেকে ৪ জন, হবিগঞ্জ-১ আসনে ২ জন, হবিগঞ্জ-২ আসনে ১ জন, হবিগঞ্জ-৩ আসনে ৫ জন, হবিগঞ্জ-৪ আসনে ও সুনামগঞ্জ-২ আসনে দিরাই পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমানসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রিজভী জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলামসহ ১০০ জন, চট্টগ্রাম-৮ আসনে ধানের শীষের প্রার্থীর দুই গাড়িচালকসহ ১৪ জন, নোয়াখালী-১ আসনে ৫ জন, নোয়াখালী-২ আসনে ২ জন, ফেনী-১ আসনে ৭ জন, বরিশাল-৬ আসনে ৮ জন, নওগাঁ-২ আসনে ১ জন, সিরাজগঞ্জ-৪ আসনে ৩ জন, ময়মনসিংহ-৩ আসনে ৫ জন, নেত্রকোনা-১ আসনে কলমাকান্দা উপজেলা বিএনপি সভাপতি এমএ খায়েরসহ ৫ জন, জয়পুরহাট-২ আসনে ২ জন, কিশোরগঞ্জ-৬ আসনে ৫ জন, টাঙ্গাইল-৪ আসনে ৩ জন, টাঙ্গাইল-৭ আসনে ৫ জন, নরসিংদী-৪ আসনে ১২ জন, গাজীপুর-১ আসনে ২০ জন, শ্রীপুরে ৩ জন, গাজীপুর-৫ আসনে ২৩ জন, ফেনী-৩ আসনের দাগনভূঞায় ৮ জন, ময়মনসিংহ-২ আসনে ১৫ জন, হালুয়াঘাটে ৫ জন, মুন্সীগঞ্জ-১ আসনে ২ জন, মুন্সীগঞ্জে ৫ জন, মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনে ২ জন, কুষ্টিয়া-১ আসনে ৬ জন, সাতক্ষীরা-৩ আসনে ৭ জন, মেহেরপুর-১ আসনে ১১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর