× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার

মমতার ‘কৃষক বন্ধু’ প্রকল্প ঘোষণা

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার, ৮:১৫

সারা ভারতে কৃষকরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠতে শুরু করেছে। ইতিমধ্যেই তা ভাল ভাবেই টের পেয়েছেন নরেন্দ্র মোদীর সরকার। বিভিন্ন রাজ্যে কৃষি ঋণ মওকুফ করা হয়েছে। আগামী লোকসভা নির্বাচনের আগে সব দলই কৃষকদের নিয়ে ভাবিত। এরই মধ্যে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কৃষকদের বন্ধু হতে উদার হয়ে ঘোষণা করেছেন ‘কৃষক বন্ধু’ প্রকল্প। সোমবার নবান্নে কৃষক ও ক্ষেত মজুরদের সহায়তায় নতুন এই প্রকল্প ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই প্রকল্প কৃষকদের চাষাবাদে যেমন সাহায্য করবে, তেমন কোনও কৃষকের মৃত্যু হলে তাঁর পরিবারকে আর্থিক সঙ্কট থেকেও কিছুটা মুক্তি দেবে। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গে ৭২ লক্ষ কৃষক এবং খেত মজুর রয়েছেন।
তাঁদের সুবিধার কথা মাথায় রেখেই এই প্রকল্প। ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গ সরকার কৃষকদের জন্য ঋণ মওকুফ, কৃষি জমি মিউটেশনে কর ছাড় ঘোষণা করেছে।  ন্যায্যমূল্যে ধানও কিনছে রাজ্য সরকার। এবার  ‘কৃষক বন্ধু’ প্রকল্প। এই প্রকল্পকে ভাগ করা হয়েছে দুটি পর্যায়ে। প্রথম পর্যায়ে কৃষক বা ক্ষেতমজুরদের অকাল প্রয়াণে তার পরিবারকে আর্থিক সাহায্য দেবে রাজ্য সরকার। ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সী সব কৃষকরা এই প্রকল্পের আওতায় আসবেন। এই বয়সকালের মধ্যে কোন কৃষকের স্বাভাবিক বা দুর্ঘটনাজনিত কারণে মৃত্য হলে তার পরিবার ২ লক্ষ রুপি ক্ষতিপূরণ পাবেন। দ্বিতীয় পর্যায়ে চাষের মওসুমে কৃষকদের আর্থিক সহায়তা করা হবে রাজ্যের তরফে। একর পিছু ৫ হাজার রুপি করে সাহায্য করা হবে। রবি ও খরিপ শষ্য চাষের সময় মোট অর্থ সাহায্যকে দুটি ভাগে আগ করে দেওয়া হবে। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এই প্রকল্পের ফলে কৃষক ও ক্ষেতমজুরদের ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর