× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ জানুয়ারি ২০১৯, সোমবার

‘সেই সুখবরের কথা পরে হবে’

বিনোদন

এন আই বুলবুল | ১১ জানুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার, ৭:৪৯

আমাকে চলচ্চিত্রে অভিনয় করতেই হবে এমন কিন্তু নয়। তবুও চলচ্চিত্রের প্রতি আমার ভালোবাসা ও ভালোলাগা আছে। নতুন বছরে যদি মনের মতো কোনো প্রস্তাব পাই তাহলে চলচ্চিত্রে অভিনয় করবো। বড় পর্দায় অভিনয় নিয়ে এভাবেই বললেন টিভি নাটকের দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর। এই সময়ে আমাদের চলচ্চিত্রে বেশ পরিবর্তন আসছে বলেও জানান তিনি। তার ভাষ্য, চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে চাই। তাই বলে গতানুগতিক কোনো চলচ্চিত্রে নয়। আমি টিভি নাটকের অভিনেত্রী।
বড় পর্দার সব ধরনের গল্প-চরিত্র আমার সঙ্গে যাবে না। আমাকে আমার মতো কোনো গল্পের চরিত্রে অভিনয় করতে হবে। এরইমধ্যে নতুন বছরের কয়েক দিন শেষ হলো। নতুন বছরে ঊর্মিলার পক্ষ থেকে দর্শকদের জন্য কোনো সুখবর আছে? এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, সুখবর আছে। তবে সেই সুখবরের কথা পরে হবে। তাই সেটি জানার জন্য অপেক্ষা করতে হবে। এ ছাড়া নতুন বছরে অবশ্যই আগের চেয়ে ভালো ভালো কাজের প্রতি মনোযোগ থাকবে বেশি। গেল বছরে এই অভিনেত্রীর বেশ কিছু নাটক দর্শকদের মধ্যে সাড়া ফেলে। এসবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো আশুতোষ সুজনের ‘মালার পৃথিবী’, তফু খানের ‘আজ শুক্রবার’, আরবি প্রিতমের ‘সেকেন্ড লাইফ’ ও জাহিদ হাসানের ‘নার্ভাস ব্রেকডাউন’। টিভি নাটক নিয়ে নতুন বছরে ঊর্মিলার প্রত্যাশা কি? এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি আশা করছি আগের তুলনায় নতুন বছর ভালো যাবে। কারণ নতুন বছরে চুক্তিপত্র সইয়ের মধ্য দিয়ে নাটক নির্মাণ শুরু হয়েছে। এটি গত বছর থেকেই শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বিভিন্ন কারণে হয়নি। শেষ পর্যন্ত নতুন বছরে এসে সেটি শুরু হলো। এটা থেকে মনে হচ্ছে, অবশ্যই পরিবর্তন আসবে। টিভি-চলচ্চিত্রের অনেক তারকা ক্যারিয়ারে বিভিন্ন সময় ভুল সিদ্ধান্তের মুখোমুখি হন। আপনি কি এমন কিছুর মুখোমুখি হয়েছেন? এ প্রশ্নের উত্তরে ঊর্মিলা বলেন, আমার মনে হয় না ক্যারিয়ারে আমি কখনো ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কারণ ক্যারিয়ারের শুরুতে আমার সব সিদ্ধান্ত বাবার সঙ্গে আলোচনা করেই নিতাম। তাই যখন ভুল হওয়ার ভয় ছিল তখন হয়নি। বাবা সঙ্গে ছিলেন। এখন তো সব চেনা জানা আর নিজের ভালোটা বুঝতে পারি। প্রসঙ্গত, অভিনয়ের বাইরে এই অভিনেত্রী ভালো গান করেন। এটি অনেকেরই অজানা। গান নিয়ে তিনি বলেন, ছায়ানট থেকে সংগীতের ওপর গ্রাজুয়েশন করেছি। অভিনয়ে নিয়মিত হলেও গানের প্রতি ভালোবাসা কমেনি। তাই হুট করেই কোনো এক সময়ে গান প্রকাশ করবো। শোবিজে একজন অন্যজনকে প্রতিযোগী ভাবেন। কিন্তু এই প্রতিযোগিতার মধ্যেও গড়ে ওঠে কারো কারো সঙ্গে সু-সম্পর্ক। শোবিজে দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী শবনম ফারিয়াকে ভালো বন্ধু মনে করেন ঊর্মিলা। এ ছাড়া সিয়ামও তার ভালো বন্ধুদের একজন বলে উল্লেখ করেন। অনেক সময় নারী শিল্পীদের অভিনয়ের ক্ষেত্রে পারিবারিকভাবে তেমন সমর্থন থাকে না। এ ছাড়া বিয়ের পর শ্বশুরবাড়ির পক্ষ থেকেও কখনো কখনো তা ঠিকভাবে না পাওয়া যাওয়ার কথাই শোনা যায়। সেই দিক থেকে ঊর্মিলা তার পরিবার ও শ্বশুরবাড়ি থেকে কেমন সাপোর্ট পান অভিনয়ের জন্য? ঊর্মিলা বলেন, আমাকে মাঝে মাঝে শুটিং শেষ করে মধ্যরাতে বাসায় ফিরতে হয়। বাড়ির বউয়ের মধ্যরাতে ফেরা আমাদের সমাজে শ্বশুরবাড়ির পক্ষ থেকে এখনো সহজ ভাবে নেয়া হয় না। সেই দিক থেকে আমি ভাগ্যবতী। বিয়ের আগে বাবা-মা যেমন সাপোর্ট দিতেন, বিয়ের পর শ্বশুরবাড়ি থেকেও তেমনই পাচ্ছি। এদিকে ঊর্মিলা বর্তমানে টিভি নাটকে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তার অভিনয়ে সাখাওয়াত মানিকের ‘মেঘে ঢাকা শহর’ ও  জুয়েল মাহমুদের ‘দি পাবলিক’সহ কয়েকটি ধারাবাহিক বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর