× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ জানুয়ারি ২০১৯, সোমবার

পছন্দের এপিএস পাচ্ছেন মন্ত্রীরা

শেষের পাতা

বিশেষ প্রতিনিধি | ১১ জানুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার, ১০:২৯

মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীরা নিজেদের পছন্দের সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) নিয়োগ করতে পারবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এপিএস হিসেবে সরকারের ক্যাডার সার্ভিস বা নন-ক্যাডার কর্মকর্তাদের মধ্য থেকে নিয়োগ দেয়ার একটি প্রস্তাব জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়। তাতে সায় না দিয়ে   প্রধানমন্ত্রী ফাইলটি ফেরত পাঠিয়েছেন। তাই আগের মতো রাজনৈতিক বিবেচনায় এপিএস নিয়োগে আর কোনো বাধা রইলো না।

এর আগে সরকারের পক্ষ থেকে পিএস নিয়োগ দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়। প্রধানমন্ত্রী তা অনুমোদন করায় গত মঙ্গলবার একযোগ সব মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীর জন্য পিএস নিয়োগ দেয়া হয়। এক্ষেত্রে মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের কারও কোনো মতামত নেয়া হয়নি। তাই এখন নতুন সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্যরা নিজেদের পছন্দে একান্ত সচিব (পিএস) না পেলেও পছন্দের ব্যক্তিকে সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) হিসেবে নিয়োগ দিতে পারবেন। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করে সাংবাদিকদের জানান, পিএস মন্ত্রণালয় ঠিক করে দিলেও এপিএস নিয়োগে আগের রেওয়াজই বহাল থাকবে।
মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীরা পছন্দের ব্যক্তিকে এপিএস হিসেবে নিয়োগ দিতে পারবেন।

তবে এখন থেকে পিএস সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া হবে। সরকারের পছন্দে পিএস নিয়োগের কারণ ব্যাখ্যা করে ফরহাদ বলেন, বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে সময়ের প্রয়োজনে যে লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে, সেই লক্ষ্য বাস্তবায়ন করতে অত্যন্ত যাচাই-বাছাই করে সৎ, যোগ্য এবং পরীক্ষিত কর্মকর্তাদের একান্ত সচিব হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, নতুন মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীরা তাদের পছন্দের ব্যক্তিকে এপিএস হিসেবে নিয়োগ দিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে আধা-সরকারিপত্র দিলে মন্ত্রণালয় তাদের নিয়োগ দিয়ে আদেশ জারি করবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
১১ জানুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার, ১০:১৩

ক্রমশঃ একদিন ধাপে ধাপে সব শৃঙ্খলা বদ্ধ হবে এটা আশান্বিত সংবাদ । দেশের জনগণের স্বার্থে পদক্ষেপ নিলে দেশের উন্নয়ন সম্ভব হবে জনগণ এর প্রতিদানে বার বার ভোট দিবে ।

অন্যান্য খবর