× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার

বাণিজ্যমেলায় ‘শিশু পার্ক’

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১২ জানুয়ারি ২০১৯, শনিবার, ৯:৫১

শান্ত ইসলাম পড়ছে চতুর্থ শ্রেণিতে। বাবা-মায়ের সঙ্গে শনির আখড়া থেকে এসেছে বাণিজ্যমেলায়। এসেই চোখে পড়ে তার মতো শিশুরা চড়ছে ট্রেনে। তাই নিজেও বায়না ধরে বাবা-মায়ের কাছে। যেমন বায়না তেমন কাজ। চড়তে পেরেছে মজার ট্রেনে। শান্ত বলে, আমি কখনো আগে এই ট্রেনে চড়িনি। এখন থেকে প্রতিদিন মেলায় এসে এই ট্রেন চড়বো।
এবার ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় রয়েছে শিশুদের জন্য দুইটি মিনি শিশু পার্ক। একটি রাহা ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ, আরেকটি শারীকা ফ্যান্টাসি ইমাজিন ওয়ার্ল্ড। রাহা ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপে রয়েছে শিশুদের জন্য বেশ কয়েকটি রাইড। এর মধ্যে ফ্যামেলি ট্রেইন, ওয়ানডার হুইল, ম্যাজিক বোর্ড, ম্যারি গো রাউন্ড শিশুদের বেশ আকৃষ্ট করে। এখানে প্রতিটি রাইডের জন্য খরচ ৪০ টাকা আর ম্যাজিক বোর্ডের জন্য খরচ ৭০ টাকা। ম্যাজিক বোর্ডের স্বত্বাধিকারী হাজী মোস্তফা আলী বলেন, শিশুরা এখানে বিশ মিনিট রাইড নিতে পারবে। তবে তাদের চাহিদার ওপর আরো পাঁচ থেকে দশ মিনিট আমার বেশি দিয়ে থাকবো। শিশুরা এই রাইড চড়ে বেশ আনন্দ পায়। প্রত্যেকদিন এখানে প্রায় প্রায় দুই শ’ শিশু রাইড নেয়। অন্যদিকে শারীকা ফ্যান্টাসি ইমাজিনের প্রস্তুতি এখনো শেষ হয়নি। তাদের কাজ শেষ হতে লাগবে আরো দুইদিন। এখানে রাইড আছে সাতটি। যেকোনো রাইডের ফি ধরা হয়েছে ৩০ টাকা। শুধু নাইন ডি মুভি ছাড়া। কথা হয় প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজার মহিবুলের সঙ্গে। তিনি বলেন, এখানে সব রাইডই শিশুদের জন্য তৈরি। তবে নাইন ডি শিশুদের জন্য হলেও এই মুভি দেখে শিশুরা ভয় পায় তাই বড়রাই বেশি দেখে এই মুভি। বিশ মিনিট সময়ের এই মুভিটি বড় ছোট যে কেউ দেখতে পারবে। এর জন্য গুনতে হবে এক শ’ টাকা। বাণিজ্যমেলায় আসা কাশেম হাওলাদার নামে এক অভিভাবক বলেন, বাচ্চাদের নিয়ে এখানে কেনাকাটা করতে এসেছি। আমার আগে জানা ছিল না এখানে শিশুদের জন্যও শিশু পার্ক আছে। এমন আয়োজন দেখে ভালো লেগেছে। গতকাল মেলা ঘুরে দেখা যায় প্রস্তুত হওয়া শিশু পার্কটিতে শিশুরা ভিড় জমাচ্ছে। রাইডের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে সিরিয়াল দিচ্ছে। একটি রাইডের পর আরেকটি রাইডে চড়ার জন্য তাদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ। রাইড অপারেটর শাওন বলছেন, প্রথম প্রথম একটু ভিড় কমই হয়। দিন যত বাড়ে ভিড়ও তত বাড়ে। বিশেষ করে ছুটির দিন ভিড় সামালনো খুব কষ্টদায়ক হয়ে যায়। তবে আমরা চেষ্টা করি সবসময়ই শিশুদের কথা চিন্তা করে আরামদায়ক রাইড দেয়ার জন্য।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর