× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ আগস্ট ২০১৯, বুধবার

খাগড়াগড় বিস্ফোরণে যুক্ত আরও দুই জেএমবি জঙ্গি গ্রেপ্তার

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৯ জানুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার, ১:৪০

পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমানের  খাগড়াগড় বিস্ফোরণে যুক্ত দুই জেএমবি জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করেছে ভারতের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনআইএ। এনআইএ সূত্রে বলা হয়েছে, সোমবার রাতে আরামবাগের একটি গ্রাম থেকে কদর কাজি এবং হাবিবুর ওরফে সাজ্জাদ আলী নামে দুই জঙ্গিকে প্রেপ্তার করা হয়েছে। এরা দুজনেই বিস্ফোরণের পর থেকে ফেরার ছিল।  সূত্রের খবর, এনআইয়ের হেফাজতে থাকা জেএমবির শীর্ষ নেতা কওসর ওরফে বোমা মিজানকে জেরা করে এদের হদিস পাওয়া গিয়েছে। এরপরই রাজ্য পুলিশের সঙ্গে যৌথ অভিযান চালানো হয়েছে। জানা গেছে, কয়েক মাস ধরে দু’জন রাজমিস্ত্রীর পরিচয়ে গা ঢাকা দিয়েছিল তারা। কদর গাজী আদতে বীরভূমের কীর্ণাহারের বাসিন্দা এবং কওসরের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিল। জেএমবি-র খাগড়াগড় মডিউলের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিল সে। ২০১৪ সালে খাগড়াগড় বিস্ফোরণের পর থেকেই গা ঢাকা দিয়েছিল।
হাবিবুর ওরফে সাজ্জাদও ওই মডিউলেরই অন্যতম সদস্য। ২০১৪ সালের ২ অক্টোবর দুপুরে বর্ধমানের খাগড়াগড়ের একটি বাড়িতে বিস্ফোরণ ঘটে। এই বিস্ফোরণে শাকিল আহমেদ নামে এক জঙ্গি নিহত হয়েছিল।  পরে মারা যায় শাকিলের সঙ্গী সোভান মন্ডল বিস্ফোরণে গুরুতর জখম অবস্থায় ধরে পড়েছিল। পুলিশ নিহত শাকিল ও জখম আবদুলের দুই স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছিল। ঘটনাস্থল থেকে  উদ্ধার করা  হয়েছিল প্রচুর বিস্ফোরক, বোমা তৈরির মশলা ও অন্যান্য সরঞ্জাম। গত বছরই এনআইএ বেঙ্গালুরু থেকে গ্রেপ্তার করেছিল মহম্মদ জহিদুল ইসলাম ওরফে কওসরকে । কওসর জেএমবির একজন শীর্ষ নেতা।  কিছুদিন আগে কলকাতা পুলিশ প্রথম কওসরকে হেফাজতে নিয়েছিল। এরপরে কওসরকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে এনআইএ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর