× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার
ভারতে লোকসভা নির্বাচন নিয়ে জনমত সমীক্ষা

ম্যাজিক সংখ্যার ধারে কাছে নেই কোন দল

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ৩১ জানুয়ারি ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১১:৫০

ভারতে  আগামী লোকসভা নির্বাচনে নিরঙ্কুশ গরিষ্ঠতা পাবে না কোনও দলই। ফলাফল হওয়ার সম্ভাবনা ত্রিশঙ্কু।  সম্প্রতি করা এক জনমত সমীক্ষায় এই ট্রেন্ড উঠে এসেছে। টাইমস নাও-ভিএমআর সমীক্ষায় ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে, বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না। সমীক্ষা অনুযায়ী, লোকসভার ৫৪৫টি আসনের মধ্যে ২৫২টি আসন পাবে এনডিএ জোট। ইউপিএ জোট পাবে মোট ১৪৭টি আসন ও অন্যান্যরা পাবে ১৪৪টি আসন। সরকার গঠনের ম্যাজিক সংখ্যা হল ২৭৩। তাই সেই সংখ্যার ধারে কাছে পৌঁছাতে পারবে না কোনও দলই। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে ২৮২টি আসন পেলেও আগামী নির্বাচনে ২১৫টি আসন পেয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হবে বিজেপিকে।
তবে আসন সংখ্যা বাড়বে কংগ্রেসের। গত লোকসভা নির্বাচনে মাত্র ৪৪টি আসন পেলেও এবার কংগ্রেস ৯৬টি আসন পাবে। রাচ্যওয়ারি যে ফলাফলের ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে তাতে, পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসই সবচেয়ে বেশি আসন পাবে। গতবারের চেয়ে কম পেলেও এবারের লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস ৪২টির মধ্যে পাবে ৩২টি আসন, বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ আসন সংখ্যা ২টি থেকে বাড়িয়ে ৯টি এবং কংগ্রেস পাবে ১টি আসন । বামপন্থীদের একটি আসনেও জয়ের সম্ভাবনা নেই বলেই সমীক্ষায় জানানো হয়েছে। এদিকে হিন্দি বলয়ের গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য উত্তরপ্রদেশে বিজেপির আসন সংখ্যা গতবারের জয়ী আসনের অর্ধেকের নীচে নেমে আসবে। সমীক্ষার মতে,  উত্তর প্রদেশের ৮০টি আসনের মধ্যে ৫১টি আসন পাবে সপা-বসপা নেতৃত্বাধীন জোট, বিজেপির নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ পাবে ২৭টি আসন। কংগ্রেস মাত্র ২ টি াাসন পাবে বলে ইঙ্গিত দেওযা হযেছে। তবে রাজনৈতিক পর্যক্ষেকদের মতে, প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর উত্তরপ্রদেশের রাজনীতিতে মুখ্য ভ’মিকা নেবার পরে এই ফল পাল্টে যেতে পারে। মহারোষ্ট্রে অবশ্য বিজেপি তার আধিপত্য বজায় রাখবে। রাজ্যের ৪৮টি আসনের মধ্যে এনডিএ পাবে ৪৩টি আসন, কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন জোট ইউপিএ পাবে ৫টি আসন। বিহারে ৪০টি আসনের মধ্যে এনডিএ পাবে ২৫টি আসন, ইউপিএ পাবে ১৫টি আসন। তামিলনাডুতে অবশ্য ইউপিএ সবচেয়ে বেশি আসন দখল করবে। ডিএমকে-কঙগ্রেস জোট পাবে ৩৯টির মধ্যে ৩৫টি আসন। অন্যদিকে এআইএডিএমকে পাবে ৪টি আসন। কর্ণাটকে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। ২৮টি আসনের মধ্যে ইউপিএ ও এনডিএ দুই শিবিরই ১৪টি করে আসন পাবে। গু বিজেপি জোটই সংখ্যাগরিষ্ট আসন পাবে। ২৬টি আসনের মধ্যে এনডিএ পাবে ২৪টি আসন এবং ইউপিএ পাবে ২টি আসন। সম্প্রতি বিধানসভার নির্বাচনে যে তিনটি রাজ্যে কংগ্রেস জয়ী হয়েছে তার মধ্যে রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশ এনডিএই বেশি আসন পাবে বলে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে সমীক্ষায়। মধ্য প্রদেশে বিজেপি জোট ২৯টির মধ্যে পাবে ২৩টি আসন, ইউপিএ পাবে ৬টি ।  রাজস্থানের ২৫টি আসনের মধ্যে এনডিএ পাবে ১৭টি আসন, ইউপিএ ৮টি। ছত্তিশগড়ের ১১টি আসনের মধ্যে ইউপিএ পাবে ৬টি ও  এনডিএ ৫টি আসন। উত্তরাখন্ডে এনডিএ ৫টির সব কটি আসনই পাবে। কেরল, পাঞ্জাব, অন্ধ্রপ্রদেশ ও তেলেঙ্গানায় বিজেপির কোনও আসন জুটবে না বলে বলা হয়েছে। অসমে অবশ্য এনডিএ ১৪টি আসনের মধ্যে পাবে ৮টি আসন, ইউপিএ ৩টি এবং  এআইইউডিএফ ২টি আসন পাবে।  দিল্লিতে কেজরিওয়ালার আম আদমি পার্টির ভাগ্যে ১টির বেশি আসন জুটবে না। বরং সেখানে ৭টি আসনের মধ্যে ৬টিই পাবে এনডিএ। উত্তরপূর্ব ভারতের রাজ্যগুলির ফলে এনডিএ ভাল ফল করবে বলে সমীক্ষায় জানালো হলেও নাগরিক বিল নিয়ে তীব্য ক্ষোভের জেরে সেই ফর পাল্টে যেকেত পারে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর