× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার

সীমান্তে আটকে আছে মার্কিন ত্রাণ, ভেতরে ঢুকতে দিচ্ছে না ভেনিজুয়েলার সরকার

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শনিবার, ৯:২৪

ভেনিজুয়েলা সংকট ক্রমেই ঘনীভূত হচ্ছে। নিকোলাস মাদুরোর নেতৃত্বাধীন সরকার ও বিরোধী গাইডোর অনুসারীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব অব্যাহতভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এরই মধ্যে বিরোধীদের যোগসাজশে ভেনিজুয়েলার উদ্দেশ্যে ত্রাণ পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের কট্টর সমালোচক মাদুরোর সরকার ভেতর থেকে সীমান্ত বন্ধ করে রেখেছে। অপর প্রান্তে কড়া নিরাপত্তার কারণে যুক্তরাষ্ট্রের পাঠানো খাদ্য ও চিকিৎসাসামগ্রী বহনকারী ট্রাক কম্বোডিয়া-ভেনেজুয়েলা সীমান্তে আটকে আছে।
আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, ভেনিজুয়েলার সরকার দেশে মার্কিন ত্রাণবাহী ট্রাকের প্রবেশ বন্ধে দৃঢ়-প্রতিজ্ঞ। এ সপ্তাহের শুরুতে সেনাবাহিনীর উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে মাদুরো বলেন, আমরা ভিক্ষুক নয়। যুক্তরাষ্ট্রের ত্রাণ সহায়তার প্রস্তাবকে লজ্জাজনক আখ্যা দিয়ে তিনি তা সরাসরি প্রত্যাখ্যান করেন।
মার্কিন ত্রাণের ভাগ্য নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যেই সীমান্তবর্তী তিয়েন্দিতাস আন্তর্জাতিক সেতুর কাছে জড়ো হয়েছেন মাদুরো বিরোধীরা। যুক্তরাষ্ট্র ত্রাণ পাঠানোয় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন তারা। এ সময় তাদের মাদুরো সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে দেখা যায়।
এদিকে, কীভাবে মার্কিন ত্রাণ ভেনিজুয়েলার ভেতরে নেয়া যায় সে পরিকল্পনা করতে গাইডোর অনুসারীরা সীমান্তবর্তী কলম্বিয়ান শহর কাকুটায় জড়ো হয়েছেন। বিশ্লেষকদের মতে, নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর মাদুরো সরকারের নিয়ন্ত্রণ কতটুকু, এই পরিস্থিতিতে তা ভালোভাবেই যাচাই হয়ে যাবে। ভেনিজুয়েলার স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট গাইডো এই ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সহায়তা চেয়েছেন। তবে কোন দেশ এখনো তার এই আহ্বানে প্রতিক্রিয়া দেখায়নি। যুক্তরাষ্ট্রসহ কয়েকটি ইউরোপীয় দেশ গাইডোকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। বিপরীতে মাদুরোর পক্ষ নিয়েছে চীন, রাশিয়া ও তুরস্ক। এই দেশগুলোর দাবি, ভেনিজুয়েলায় ত্রাণ পাঠানোর মতো কোনো মানবিক সংকটই তৈরি হয়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর