× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, শুক্রবার

জেফ বেজোস ও লরা সানচেজের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবিও আছে, ব্লাকমেইলের অভিযোগ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শনিবার, ১২:৩০

ব্লাকমেইলিংয়ের শিকার হয়েছেন অ্যামাজন প্রধান, বিশ্বের শীর্ষ ধনী জেফ বেজোস! এমনই দাবি করেছেন তিনি। বলেছেন, তার কোমরের নিচের দিকের অংশের সেলফি প্রকাশ করে দেয়ার ক্ষেত্রে ব্লাকমেইল করেছেন ডেভিড প্যাকার, যিনি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ। উল্লেখ্য, লরা সানচেজের সঙ্গে জেফ বেজোসের অন্তরঙ্গ প্রেমের খবর প্রকাশ পেয়েছে সম্প্রতি। তাতে বলা হয়েছে, তিনি সানচেজকে নিজের গোপন অঙ্গের ছবি পর্যন্ত পাঠিয়েছেন। এসব নিয়ে পশ্চিমা দুনিয়া যখন তোলপাড় তখন ডেভিড প্যাকারের বিরুদ্ধে ব্লাকমেইলের অভিযোগ আনলেন জেফ বেজোস। যুক্তরাষ্ট্রের গসিব জাতীয়, সেলিব্রেটি বিষয়ক ন্যাশনাল এনকুইরারের মালিক ডেভিড প্যাকার। প্রেমিকা লরাকে নিজের গোপনাঙ্গের যে ছবি পাঠিয়েছিলেন জেফ বেজোস তা প্রকাশ করেছে ওই ম্যাগাজিনটি। ওই ম্যাগাজিন থেকে জেফ বেজোসকে একটি ইমেইল পাঠানো হয়েছিল।
তা প্রকাশ করে দিয়েছেন ৫৫ বছর বয়সী বেজোস।

ওই ইমেইলে বেজোসের প্রেমিকা লরা সানচেজের নিষিদ্ধ অঞ্চলগুলোর ছবি প্রকাশ করে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়েছে। জেফ বেজোস দাবি করেছেন তার ও লরার প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যমূলকভাবে রিপোর্ট প্রকাশ করছে ন্যাশনাল এনকুইরার। বেজোস যদি এমন দাবি করা বন্ধ না করেন তাহলে তার প্রেমিকার ওইসব ছবি প্রকাশ করে দেয়ার হুমকি দিয়েছে ম্যাগাজিনটি। এমন ইমেইলের একটি প্রকাশ করে দিয়েছেন জেফ বেজোস। তাতে ন্যাশনাল এনকুইরার বলেছে, তাদের হাতে অনলাইন ব্যবসার বাদশা জেফ বেজোসের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের আরো ছবি আছে। তারা আরো বলেছে, তাদের হাতে যেসব ছবি আছে তার মধ্যে একটি ছবিতে জেফ বেজোস শার্টখোলা। তার বাম হাতে একটি ফোন ধরা। হাতে আছে বিয়ের আংটি পরা। তিনি পরে আছেন শরীরের সঙ্গে শক্তভাবে এঁটে থাকে এমন টাইট কালো প্যান্ট বা শর্টস। আর তাতে তার শরীরের অঙ্গবিশেষকে দেখা যায় উত্থিত অবস্থায়। এ ছাড়া তাদের কাছেআছে একটি বাথরুমে জেফ বেজোসের নগ্ন সেলফি। এ সময় তার হাতে পরা বিয়ের সেই আংটি। শরীরে শুধু একটি সাদা তোয়ালে ছাড়া আর কোনো পোশাক নেই। তার শরীরের বাকি সব অঙ্গ নগ্ন, দেখা
যায় পরিষ্কার। সেখানে প্রেমিকা লরা সানচেজ পরে আছেন গলা নামানো লাল পোশাক। তার উপর দিয়ে বেরিয়ে আছে শরীরের উপরের অংশের ভাঁজ। প্রকাশিত হয়ে আছে শরীরের অনুপ্রবেশের স্থান।

বিশ্বের শীর্ষ ধনী বেজ বেজোস। তার সম্পর্দের পরিমাণ ১০০০০ কোটি পাউন্ডের বেশি। নতুন করে তিনি লরা সানচেজের সঙ্গে তার প্রেমের ইনিংসকে সামনে তুলে এরেছেন এনকুইরারের ইমেইলের জবাবে। তিনি বলেছেন, আমাকে ব্লাকমেইল করা সত্ত্বেও আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তারা আমার কাছে যা পাঠিয়েছে তা প্রকাশ করে দিতে। তাতে হয়তো আমার ব্যক্তিগত সমআমন হানি হবে। বিব্রতকর হবো।

শুক্রবার এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক পোস্ট একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। তারা প্রথম পৃষ্ঠায় বড় করে প্রকাশ করেছে- ‘বেজোস এক্সপোজেস পেকার’ শীর্ষক প্রতিবেদন। এতে সেক্স, ক্ষমতা ও হোয়াইট হাউস বিষয়ক রাজনীতি ও স্ক্যান্ডাল ফুটে উঠেছে। জেফ বেজোস ও লরা সানজেচের মধ্যে প্রেমের ‘কাহানি’ গত মাসে যেন আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের মতো উদগীরিত হতে থাকে। ওই সময়ে তিনি ঘোষণা দেন ২৫ বছর পর স্ত্রী ও লেখিকা ম্যাকেঞ্জির (৪৮) সঙ্গে বিচ্ছেদে যাচ্ছেন।

এরপরই এনকুইরার প্রকাশ করে জেফ বেজোসের বিবাহ বহির্ভুত প্রেমের সম্পর্কের কথা। বিস্তারিত প্রকাশ করে যে, তিনি ৪৯ বছর বয়সী সংবাদ উপস্থাপিকা লরা সানচেজের প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর