× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শনিবার

কানাডায় মসজিদে ঢুকে গুলি করে ৬ মুসল্লি হত্যায় একজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শনিবার, ৩:২৪

কুইবেক সিটির একটি মসজিদে গুলি করে ৬ জন মুসল্লিকে হত্যার দায়ে কানাডার এক নাগরিককে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। রায় ঘোষণা করে বিচারক বলেছেন, ৪০ বছর জেল খাটার পর ওই অপরাধী প্যারোলে মুক্তি পেতে পারেন। শুক্রবার তার বিরুদ্ধে এ রায় দেয় আদালত। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

২০১৭ সালে ওই মসজিদে গুলি করে আলেকজান্দার বিসোনেট (২৯)। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে ছয়টি অভিযোগ আনা হয়। কানাডায় একসঙ্গে এত মানুষ হত্যা একটি বিরল ঘটনা। এ মামলায় রায় ঘোষণা করেন বিচারক ফ্রাঁসিস হুওট।
তিনি বলেন, ৩৫ থেকে ৪২ বছর জেল খাটার পরে প্যারোলে মুক্তি পাওয়া সম্ভব এই অপরাধীর। তবে সে ৪০ বছরের আগে এমন প্যারোলে মুক্তি পেতে পারবে না। এ শাস্তি অত্যন্ত কঠিন বলে এর বিরোধিতা করেন প্রসিকিউটররা। কিন্তু তাদের আবেদন প্রত্যাখ্যান করেন বিচারক। উল্লেখ্য, কানাডায় মৃত্যুদন্ডের শাস্তি বাতিল করা হয়েছে। তার পর থেকে এই শাস্তি সবচেয়ে কঠোর।  

২০১৭ সালের জানুয়ারিতে কুইবেকে ওই হত্যাকান্ডের নিন্দা জানান প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনি একে সন্ত্রাসী হামলা বলে উল্লেখ করেন। তবে বিচারক বলেছেন, আলেকজান্দার নামাজ শেষে মসজিদে প্রবেশ করে গুলি করে। এটা কোনো সন্ত্রাসী হামলা ছিল না। এটা ছিল কুসংস্কার থেকে হামলা, বিশেষ করে মুসলিম অভিবাসীদের বিরুদ্ধে ছিল ওই কুসংস্কার।  

ওই হামলার ঘটনায় ওই সময়ে নতুন করে কানাডায় যাওয়া নতুন সব অভিবাসীদের সঙ্গে আচরণ নিয়ে ব্যাপক বিতর্ক উসকে উঠে। ওই সময়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকে কুইবেক প্রদেশ দিয়ে বিপুল সংখ্যক অভিবাসী কানাডায় প্রবেশ করছিলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর