× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ এপ্রিল ২০১৯, শনিবার

টপলেস পদ্মলক্ষ্মী

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, সোমবার, ৮:৫৮

টপলেস হলেন বহুল বিতর্কিত লেখিকা, অভিনেত্রী, মডেল, টিভি সেলিব্রেটি ও আরেক বহুল বিতর্কিত লেখক সালমান রুশদির সাবেক স্ত্রী পদ্মলক্ষ্মী। ন্যাশনাল পিজা দিবস উপলক্ষ্যে বাথটাবের ভিতর তিনি টপলেস হলেন। এ সময় বাথটাবের ওপরে রাখলেন পিজার বিশাল একটি খোলা বাক্স। তার ওপরে পিজা। বাথটাবের ভিতরে তখন টপলেস পদ্মলক্ষ্মী। দু’পিস পিজা নিয়ে শরীরের উপরের অংশে দু’স্থানে রেখে কোনোমতে রক্ষা করেন নারীর মর্যাদা। আর সেই চবি পোস্ট করে দিলেন নিজেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে। তাতে জানিয়ে দিলেন বাথটাবে টপলেস হয়ে পিজা পার্টি করার কথা।
৪৮ বছর বয়সী ভারতীয় বংশোদ্ভূত পদ্মলক্ষ্মী বাথটাবে পিটার বাক্সটি এমনভাবে রাখলেন এবং সেই ছবি ধারণ করলেন যাতে ইন্সটাগ্রামের গাইডলাইন লঙ্ঘন না হয়। একটি ছবিতে তাকে দেখা যায়, বাথটাবে হাস্যেজ¦ল। এক হাতে লাল ওয়াইনের একটি গ্লাস। তার ক্যাপশনে লিখেছেন, বিহাইন্ড দ্য সিনস অব দ্য পিজা শুট।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাতে তিনি ছিলেন নিউ ইয়র্ক ফ্যাশন উইকের রেড ড্রেস কালেকশনে হ্যামারস্টেইন বলরুমে। হৃদরোগের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সুবিধা পাওয়ার জন্য এর আয়োজন করা হয়েছিল। পদ্মলক্ষ্মীর জন্ম ভারতের চেন্নাইয়ে ১৯৭০ সালের ১লা সেপ্টেম্বরে। তার পুরো নাম পদ্ম পার্বতী লক্ষ্মী বিদ্যানাথান। সংক্ষেপে তিনি পরিচিতি পেয়েছেছন পদ্মলক্ষ্মী হিসেবে। তিনি একাধারে যুক্তরাষ্ট্রে একজন লেখিকা, অভিনেত্রী, মডেল, টেলিভিশন উপস্থাপিকা, নির্বাহী প্রযোজক। তিনি রান্না বিষয়ক বই ‘ইজি এক্সোটিক’ লেখার মাধ্যমে লেখালেখিতে প্রবেশ করেন। ওই বইটি ১৯৯৯ সালে গোরমান্ড ওয়ার্ল্ড কুকবুক এওয়ার্ডে বেস্ট ফার্স্ট বুকের পুরষ্কার জেতে।


২০০৬ সাল থেকে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের রান্না বিষয়ক প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠান টপ শেফ উপস্থাপনা করে আসছেন। এ জন্য তিনি ২০০৯ সালে এমি মনোনয়ন পান। তিনি তিন বছর একসঙ্গে কাটানোর পর ২০০৪ সালের ১৭ই এপ্রিল বিয়ে করেন বিতর্কিত উপন্যাসিক সালমান রুশদিকে। ওই সম্পর্কের সময়ে সালমান রুশদি তার তৃতীয় স্ত্রী এলিজাবেথ ওয়েস্টের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ ছিলেন। তারপরও তিনি দুর্বল হয়ে পড়েন পদ্মলক্ষ্মীর প্রতি। পদ্মলক্ষ্মীকে তার ‘ফিউরি’ উপন্যাসটি উৎসর্গ করেছিলেন রুশদি। তিন বছর পরে ২০০৭ সালের ২রা জুলাই এই দম্পতি বিবাহ বিচ্ছেদের ফাইল দাখিল করেন। এরপর যুক্তরাষ্ট্রের আইএমজি প্রতিষ্ঠানের সাবেক চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা টেডি ফর্স্টম্যানের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে ওঠে পদ্মলক্ষ্মীর।


ঠিক তারই মধ্যে পুজিবাদী এডাম ডেলের সঙ্গে সম্পর্কে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন তিনি। কিন্তু পদ্মলক্ষ্মী বুঝতে পারছিলেন না তার ওই মেয়ের পিতা কে ফর্স্টম্যান নাকি এডাম ডেল। কারণ দু’জনের সঙ্গেই তার সম্পর্ক ছিল। পরে ডিএনএ পরীক্ষা করে মেয়ের পিতৃত্বের পরিচয় পান। মেয়ের জন্ম হয় ২০১০ সালের ২০ শে ফেব্রুয়ারি। তার নাম রাখেন কৃষ্ণা থিয়া। তার পিতার পরিচয় নিশ্চিত করা হয় এডাম ডেলকে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর