× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শনিবার
এ বছর হজের খরচ বাড়ছে

‘হজ প্যাকেজ’ মন্ত্রিসভায় উঠছে আজ

এক্সক্লুসিভ

বিশেষ প্রতিনিধি | ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, সোমবার, ৯:০৭

এ বছর বাংলাদেশিদের হজের খরচ বাড়ছে। এবার হজে যেতে বাড়তি খরচ লাগবে ২০ হাজার ৫৭১ টাকা। তবে তৃতীয়বারের মতো হজে যেতে চাইলে প্যাকেজের বাইরেও অতিরিক্ত ৪৭ হাজার ২৫০ টাকা পরিশোধ করতে হবে। এভাবেই বাড়তি ব্যয় অন্তর্ভুক্ত করে ‘হজ প্যাকেজ’ আজ অনুষ্ঠেয় মন্ত্রিসভা বৈঠকে অনুমোদনের জন্য উঠবে। একই বৈঠকে জাতীয় হজ ও ওমরাহ নীতির খসড়া অনুমোদনের জন্য উঠছে। ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের প্যাকেজের তুলনায় এবার পাঁচ শতাংশের কিছু বেশি দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে হজ প্যাকেজে। এতে হজ প্যাকেজের দাম বেড়েছে ২০ হাজার ৫৭১ টাকা। ধর্ম মন্ত্রণালয় বলছে, সৌদি সরকার বিভিন্ন ধরনের সার্ভিস চার্জ ও ভাড়া বাড়ানোর কারণে বাংলাদেশ সরকার এ ব্যয় বাড়াতে বাধ্য হয়েছে।
মন্ত্রিসভার জন্য পাঠানো সার সংক্ষেপ সূত্রে জানা গেছে, এ বছর সরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের জন্য প্যাকেজ ১-এর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে চার লাখ ১৮ হাজার ৫০০ টাকা। গত বছর প্যাকেজ ১-এর দাম ছিল তিন লাখ ৯৭ হাজার ৯২৯ টাকা। সেই হিসাবে এবারের প্যাকেজের দাম ২০ হাজার ৫৭১ টাকা বেশি। এ বছর প্যাকেজ ২-এর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে তিন লাখ ৪৪ হাজার টাকা। গত বছর এই প্যাকেজের দাম ছিল তিন লাখ ৩১ হাজার ৩৫৯ টাকা। গত বছরের তুলনায় এ বছর প্যাকেজ ২-এর বাড়তি খরচ ১২ হাজার ৬৪১ টাকা। সার সংক্ষেপে প্রস্তাব আকারে বলা হয়েছে, বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের হজ প্যাকেজের দাম সরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের প্যাকেজ ২-এর টাকার কম হতে পারবে না। মন্ত্রিসভায়    পাঠানো সার সংক্ষেপ সূত্রে জানা যায়, উভয় প্যাকেজেই বিমানভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে এক লাখ ২৮ হাজার টাকা। এ বিমান ভাড়া গত বছরের তুলনায় ১০ হাজার ১৯১ টাকা কম। গত বছর বিমানের ভাড়া ছিল এক লাখ ৩৮ হাজার ১৯১ টাকা। এদিকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স লিমিটেড জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে হজ প্যাকেজে বিমানভাড়া এক লাখ ৪৪ হাজার টাকা নির্ধারণের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় বিমানের ওই প্রস্তাবে সায় দেয়নি। এ বছর মক্কা ও মদিনায় বাড়িভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে এক লাখ ৬৭ হাজার ৯৬২ টাকা। সৌদি আরবে বাড়িভাড়া বেড়ে যাওয়া ও ভাড়ার ওপর কর আরোপ করায় গত বছরের তুলনায় বাড়িভাড়া ১০ হাজার ৩৪৩ টাকা বেড়ে গেছে। মক্কা-মদিনা-মুজদালিফা-মিনা-আরাফাহ্‌ যাতায়াতের বাসভাড়া ৪০ হাজার ৮৮২ টাকা। গত বছরের তুলনায় এটি ১৫ হাজার ৩২৬ টাকা বেশি। জমজমের পানির খরচও বেড়েছে এক টাকা ৮৭ পয়সা। গত বছর এই খরচ ছিল ২৫৮ টাকা। এ বছর সৌদি হজ মন্ত্রণালয়ের অনুকূলে ৫০ সৌদি রিয়াল এবং জেনারেল কার সিন্ডিকেটের অনুকূলে আরো ১৮ সৌদি রিয়াল সমপরিমাণ এক হাজার ৫৩০ টাকা পরিশোধ করবেন প্রতি যাত্রী। সরকারি ব্যবস্থাপনার জন্য বাংলাদেশ সরকার এ অর্থ দেবে। ট্রেন সার্ভিস যারা নেবেন তাদের অতিরিক্ত ২৪ হাজার ৯৮১ টাকা পরিশোধ করতে হবে। এ ছাড়া অন্যান্য হজযাত্রীদের ক্ষেত্রে ১৯ হাজার ৩৫ টাকা সার্ভিস চার্জ ও ভাড়া বাড়ানো হয়েছে। প্যাকেজে বাংলাদেশি টাকার সঙ্গে সৌদি রিয়ালের বিনিময় হার ২২ টাকা ৫০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে বলা হয়, প্রত্যেক হজ এজেন্সি কমপক্ষে ১৫০ এবং সর্বোচ্চ ৩০০ হজযাত্রী পাঠাতে পারবে। একটি ফ্লাইটে তিনজন মোয়াল্লেমের বেশি ও তিনটি এজেন্সির বেশি হজযাত্রী পাঠানো যাবে না। হজযাত্রীদের কোরবানির টাকা ইসলামী ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের মাধ্যমে পরিশোধ করার জন্য সৌদি সরকার অনুরোধ জানিয়েছে। এদিকে চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১০ই আগস্ট হজ অনুষ্ঠিত হবে। এ বছর বাংলাদেশ থেকে এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজ পালন করতে পারবেন। তাদের মধ্যে সাত হাজার ১৯৮ জন যাবেন সরকারি ব্যবস্থাপনায়। বাকিরা ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয় অনুমোদিত হজ এজেন্সির মাধ্যমে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন। তাই হজ প্যাকেজ অনুমোদনের পরই হজের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর