× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ জুন ২০১৯, রবিবার

অ্যাসিডিটি বা বদহজমে ভুগছেন? রক্ষা পেতে জেনে নিন করণীয়

শরীর ও মন

অনলাইন ডেস্ক | ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:৪০

দৈনন্দিন ব্যস্ততা আর অলসতার কারণে অনেকেরই শরীর-স্বাস্থের প্রতি যতœ নেওয়া হয় না। খাওয়া-দাওয়ায় অনিয়ম, ভেজাল খাবার গ্রহণ ইত্যাদির ফলে গ্যাস্ট্রাইটিস বা অম্বল হয়ে উঠে নিত্য সঙ্গী। শুধু খাওয়া দাওয়া নয়, হজম প্রক্রিয়া অনেকটা নির্ভর করে ঘুমের পরিমাণ, শরির চর্চা ইত্যাদির ওপরও।

অনেকেই গ্যাস্ট্রাইটিস বা অম্বল থেকে বাঁচতে ওষুধ নিয়ে থাকেন। তবে সবসময় ওষুধ খাওয়াটাও নিরাপদ নয়। কিছু ভালো অভ্যাস রপ্ত করতে পারলে ওষুধ খাওয়া অবশ্যকও নয়।

জানুন গ্যাস-অম্বর থেকে রক্ষা পেতে কী কী উপায় অবলম্বন করবেন:

ডায়েটে যোগ করুন পর্যাপ্ত ফাইবার। গ্যাস-অম্বলকে রোধ করতে আমাদের শরীরের প্রয়োজন হয় প্রায় ২৮ শতাংশ ফাইবার। নানা রকম ফল, কার্বোহাইড্রেট ও শাক-সব্জি থেকে তা পাওয়া যায়। প্রতি দিনের ডায়েটে ফাইবার রাখলে কোষ্ঠকাঠিন্য যেমন কমবে, তেমনই শরীরের প্রয়োজনীয় শক্তির জোগান মিলবে।
গ্যাস-অম্বলের সমস্যাও এর হাত ধরে নিয়ন্ত্রণ হবে।

ধীরে-সুস্থে খাবার গ্রহণ করুন। ভাল করে চিবিয়ে খাবার না খেলে তা থেকে শক্তির জোগান পাওয়া যেমন দুষ্কর হয়ে পড়ে, তেমনই হজম হতেও সমস্যা হয়। শরীরের প্রয়োজনীয় উত্তাপও না চিবোনো খাবার থেকে মেলে না। আর শারীরবৃত্তীয় কাজগুলোয় ঠিক মতো না হওয়ায় বদহজম, অম্বল মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে।

পর্যাপ্ত পানি গ্রহণ করুন। পানির ভারসাম্য রক্ষা করতে না পারলে গ্যাস-অম্বলকেও পরাস্ত করা যাবে না। বরং পানিই পারে অন্ত্রের কাজকর্মকে ঠিক ভাবে পরিচালিত করতে। তাই সময় মতো পানির অভাব ও তেল-মশলার পর পানি খেয়ে নেওয়া-এই সব ভুলই হয়ে উঠে বদহজমের করণ।

খাবারের মেনুতে যোগ করুন টকদই। কোনও ভারী খাবারের পর টকদই খেলে তা হজমে সাহায্য করে। তাই দুধ সহ্য না হলে টকদই বা ছানা খান নিশ্চিন্তে।এর প্রোবায়োটিক উপাদান শরীরে কোনও প্রকার গ্যাস-অম্বল হতে দেয় না।

অকারণে তেল-মশলা বা রাস্তার খাবারে আস্থা না রেখে হয় কর্মস্থলে খাবার নিয়ে যান বাড়ি থেকে, নয়তো এমন কোনও খাবার খান, যেখানে তেল-মশলার পরিমাণ কম।

সঠিক সময়ে খাওয়াদাওয়া করুন। খালি পেট রাখলেও গ্যাস-অম্বলের উপদ্রব বাড়ে। ঠিক সময়ে ঘুমতে যাওয়া, পর্যাপ্ত ঘুম ও ঠিক সময়ে খাওয়া- এই উপায়গুলোই পারে গ্যাস-অম্বরকে বিতারিত করতে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
মোঃ লিটন মিয়া
২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার, ১২:৫৩

আপনার পোষ্ট আমার কাছে অনেক ভালো লাগলো আমার সব সময় শুধু ঢেঘুর আসে এর জন্য আমি কি করবো

MD. ANOARUL HAQUE
২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার, ৫:৫০

আপনার লেখা পড়ে খুব ভাল লাগল। তবে এভাবে চলার পরও সারা বছর অম্বল/ এসিড ক্ষরণ হয়ে থাকে।

অন্যান্য খবর