× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৭ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার

আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য, উত্তেজনা

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী থেকে | ১১ মার্চ ২০১৯, সোমবার, ৯:০৫

নোয়াখালীতে দেওয়ানী আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক পাকা স্কুল ভবন নির্মাণ চেষ্টায় এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভ ও উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে যেকোনো সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন গ্রামবাসী। এলাকাবাসীর অভিযোগে জানা যায়, বেগমগঞ্জ উপজেলার জিরতলী মৌজার জেলা জরিপি এমআরআর খতিয়ান ও জমা খারিজ খতিয়ানের ২৩ শতাংশ ভূমিতে সম্প্রতি মধ্যম জিরতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাকা ভবন নির্মাণ কাজ শুরু করে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার। এ পর্যায়ে উক্ত ভূমির মালিক মহিউদ্দিন বাবুলসহ ১৭ জন মালিক বেগমগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা প্রার্থনা করে মামলা দায়ের করে। বিচারক সিনিয়র সহকারী জজ কামরুল হাসান বিবাদী ৬ জনের বিরুদ্ধে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন। আদালত সূত্র জানায়, মহিউদ্দিন বাবুল গণ-খাজনা পরিশোধ করে ভোগ দখলে থাকেন। কিন্তু তারা আদালতের আদেশ অমান্য করে ভূমি দখলের অপচেষ্টা করায় জনমনে ক্ষোভ ও অসন্তোষ চলছে।

মামলার বাদী মহিউদ্দিন বাবুলসহ ১৭ জন পক্ষ হয়ে মধ্যম জিরতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি সামছুদ্দোহা, প্রধান শিক্ষক ইভানা মজুমদার, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও ডা. রেজাউল হক, আফসার উদ্দিন, সুপারিনটেনডেন্ট আবদুল মালেককে সহ ৬ জনকে বিবাদী করা হয়েছে।
আদালত ৫ই মার্চ উভয়পক্ষকে স্থিতি অবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দেয়। বিদ্যালয় সভাপতি সামছুদ্দোহা স্বপন জানান, আদালতের আদেশ আমি পাইনি। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইভানা মজুমদার জানান, মামলার কথা শুনেছি। অফিশিয়াল আদেশ পাইনি। এ নিয়ে স্থানীয় এলাকায় টান টান উত্তেজনা চলছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর