× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৬ মার্চ ২০১৯, মঙ্গলবার
বিএসএমএমইউতে শিশু কিডনি সপ্তাহ ও ডায়ালাইসিস কর্মশালার উদ্বোধন

দেশে ৫ থেকে ৭ ভাগ শিশু কিডনি রোগে আক্রান্ত হচ্ছে

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার | ১১ মার্চ ২০১৯, সোমবার, ৯:৪১

শিশুদের কিডনি রোগের উন্নত চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে ও শিশুদের কিডনি রোগ প্রতিরোধে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) শিশু কিডনি সপ্তাহ ২০১৯ ও ডায়ালাইসিস কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ডা. মিলন বিশ্ব শিশু কিডনি দিবসকে সামনে রেখে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এবারে শিশু কিডনি দিবস-এর প্রতিপাদ্য হলো ‘সুস্থ কিডনি সবার জন্য, সর্বত্র।’ শিশু কিডনি সপ্তাহ উপলক্ষে ‘আপনার শিশুর কিডনি সুস্থ আছে তো; আসুন আজই আপনার শিশুর কিডনির সুস্থতা পরীক্ষা করে নিন এবং শিশুর কিডনি রোগ প্রতিরোধ করুন’ ইত্যাদি বার্তা নিয়ে ফ্রি ক্লিনিকেরও আয়োজন করা হবে। কর্মশালায় চিকিৎসকরা জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবছর বহির্বিভাগে ৭ হাজার শিশু কিডনি রোগের বিষয়ে চিকিৎসাসেবা নেয় এবং বছরে প্রায় ৬ শতাধিক শিশু কিডনি রোগী ভর্তি হয়। এই রোগে ভর্তিকৃত রোগীর মৃত্যু হার ১ শতাংশ। বর্তমানে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত শিশু রোগী যারা হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা নেয় তাদের মধ্যে ৫ থেকে ৭ শতাংশ শিশু কিডনি রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএসএমএমইউ’র ভিসি অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া শিশু কিডনি সপ্তাহ ২০১৯ ও ডায়ালাইসিস কর্মশালার শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করে বলেন, এই ধরনের কর্মশালা তরুণ চিকিৎসকদের মাঝে শিশু কিডনি রোগ বিষয়ে জ্ঞান ও দক্ষতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। সঙ্গে সঙ্গে শিশু কিডনি রোগ প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধি ও শিশু কিডনি রোগীদের চিকিৎসাসেবার প্রসারেও বিশেষ ভূমিকা পালন করবে।
বিশ্ববিদ্যালয়ের শিশু কিডনি বিভাগের অধ্যাপক ও পেডিয়াট্রিক নেফ্রোলজি সোসাইটি অব বাংলাদেশ-এর সভাপতি অধ্যাপক ডা. গোলাম মাঈন উদ্দিন জানান, বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক গবেষণাপত্রের মাধ্যমে জানা গেছে, দেশের হাসপাতালগুলোতে আগত শিশু রোগীর ৫ থেকে ৭ ভাগ শিশু কিডনি রোগে আক্রান্ত। আক্রান্ত শিশু কিডনি রোগীদের চিকিৎসাসেবা প্রদানে দেশে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে ৬০ থেকে ৭০ জন শিশু কিডনি রোগ বিষয়ক চিকিৎসক বিভিন্ন হাসপাতালে কর্মরত আছেন। বর্তমানে দেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কিডনি ইনস্টিটিউট, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও ঢাকা শিশু হাসপাতালে শিশু কিডনি রোগীদের ডায়ালাইসিস কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। বছরে প্রায় ২ থেকে আড়াই হাজার ডায়ালাইসিস দেয়া হচ্ছে। কিডনি প্রতিস্থাপন ক্রোনিক শিশু কিডনি রোগীদের প্রধান চিকিৎসা। এই চিকিৎসা শুধু বিএসএমএমইউতে ২০০৬ সাল থেকে প্রদান করা হচ্ছে। এ পর্যন্ত ১১ জন শিশুর কিডনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের হাসপাতালে সম্পন্ন হয়েছে এবং এসব শিশু সুস্থ আছে। তিনি আরো জানান, পেডিয়াট্রিক নেফ্রোলজি সোসাইটি অব বাংলাদেশ দেশের চিকিৎসা বিষয়ক গবেষণা কার্যক্রমকে প্রসারিত করার জন্য পেডিয়াট্রিক নেফ্রোলজি জার্নাল অব বাংলাদেশ নাম জার্নাল নিয়মিত প্রকাশ করে আসছে। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন প্রো-ভিসি (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম, অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লা, অধ্যাপক ডা. আনোয়ার হোসেন খান, শিশু কিডনি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. রণজিত রঞ্জন রায় প্রমুখ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর