× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ মে ২০১৯, শুক্রবার

শাবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১৫

বাংলারজমিন

শাবি প্রতিনিধি | ১১ মার্চ ২০১৯, সোমবার, ৯:৪২

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। গতকাল দুপুর ৩টায় জুনিয়র-সিনিয়রের বাকবিতণ্ডাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে রূপ নেয় সাখাওয়াত হোসেন ও মুশফিকুর রহমান ভূঁইয়া জিয়ার অনুসারীদের মধ্যে। উভয়পক্ষের সংঘর্ষে ভারপ্রাপ্ত প্রক্টরসহ মোট ১৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
জানা যায়, বিকাল ৩টার দিকে সাখাওয়াত ও জিয়ার অনুসারীদের মধ্যে বাকবিতণ্ডাকে কেন্দ্র হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে উভয় গ্রুপের কর্মীরা। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু চত্বরে জিয়া গ্রুপের কর্মী সোহেল রানাকে মারধর করে সাখাওয়াতের অনুসারীরা। পরে উভয়পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েকবার ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে আবাসিক হলগুলোতে। বিকাল সাড়ে ৪টায় শাহপরান হলের সামনে জিয়া গ্রুপের কর্মীরা সাখাওয়াতের অনুসারী আবদুল বারী সজিব ও মাহবুবুর রহমানকে মারধর করে। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল ছুড়াছুড়িতে ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর জাহিদ হাসান, সহকারী প্রক্টর আবু হেনা পহিল ও আইপিই বিভাগের শিক্ষক মাহাথির মোহাম্মদ বাপ্পী আঘাতপ্রাপ্ত হন। বর্তমানে সাখাওয়াত গ্রুপের আবদুল বারী সজিব ও রেজাউল করিম তানভীর এবং জিয়া গ্রুপের সোহেল রানা, সাব্বির ও মামুন শাহ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন আছেন।  বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন বলেন, র‌্যাগিংয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আজকের এই সংঘর্ষ। আমার মোট সাতজন কর্মী আহত হয়েছে। এর মধ্যে আবদুল বারী সজিব ও রেজাউল করিম তানভীর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। মুশফিকুর রহমান ভূঁইয়া জিয়া বলেন, সাখাওয়াতের অনুসারীরা আমার কর্মীদের আগে মারধর করে। পরে বিষয়টি হল পর্যন্ত গড়ালে আমি আমার কর্মীদের শান্ত করে বঙ্গবন্ধু হলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করি। এর মধ্যে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে যায়। ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর জাহিদ হাসান বলেন, অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে আজকের এই সংঘর্ষ। আমিসহ আরো দুজন শিক্ষকের গায়ে ইটপাটকেলের আঘাত লেগেছে। ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করে বিচারের প্রক্রিয়া চলছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর