× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ মে ২০১৯, শুক্রবার

সকালে হামলা বিকালে কোলাকুলি

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ মার্চ ২০১৯, বুধবার, ৭:৫৬

নির্বাচিত হওয়ার পরের দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন ভিপি নুরুল হক নুর। গতকাল দুপুরে তিনি ক্যাম্পাসে গেলে নতুন নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনরতদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। আন্দোলনকারীরা অভিযোগ করেছেন, নির্বাচন পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে নুরুল হক নুরের কথা বলার সময় হামলা চালায় ছাত্রলীগের কর্মীরা। হামলায় কয়েকজন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ছাত্রদল নেতা তৌহিদুল ইসলামের মাথা ফেটে গেছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠে পরিস্থিতি। সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, বাম জোট  ও স্বতন্ত্র প্যানেলের প্রার্থী ও তাদের কর্মী-সমর্থকরা হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করে দায়ীদের শাস্তি দাবি করেন। এদিকে সকালে হামলা হলেও বিকালে ডাকসুর নতুন ভিপিকে বরণ করে নিয়েছে ছাত্রলীগ। সংগঠনের সভাপতি ও ভিপি পদে পরাজিত প্রার্থী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন টিএসসিতে গিয়ে নুরকে শুভেচ্ছা জানান এবং একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। এসময় সকালের হামলার ঘটনার বিচারের ভার বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও ছাত্রলীগের ওপর দিয়ে নুরুল হক নুর আগে ঘোষণা করা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি বাতিল ঘোষণা করেন।  

এদিকে টিএসসি এলাকায় হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন ছাত্রদলের এক নেতা। এসময়  উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। তখন আশেপাশের এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। গতকাল দুপুরে ছাত্র-শিক্ষক মিলনায়তনের এ ঘটনায় পুরো ক্যাম্পাস উত্তপ্ত হয়ে উঠে।  হামলার প্রতিবাদে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে শিক্ষার্থীরা। এসব মিছিলে বাম ও স্বতন্ত্র প্যানেলে ডাকসু নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারীরা নেতৃত্ব দেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর দেড়টার দিকে ভিসি ভবনের সামনে থেকে ৩০-৩৫ জনের একটি গ্রুপকে টিএসসি’র দিকে যেতে দেখা যায়।  তাদের প্রত্যেকের হাতে ছিল লাঠি ও রড। তারা দ্রুত টিএসসিতে ঢুকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়। হামলাকারীদের আঘাতে গুরুতর রক্তাক্ত হন ডাকসু’র সমাজসেবা সম্পাদক পদপ্রার্থী তৌহিদুল ইসলাম। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া- পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতাকর্মী ও বাম ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীরা তখন টিএসসি’র ভেতরে আশ্রয় নেন। হামলার পরপর তাৎক্ষণিকভাবে টিএসসিতে মিছিল করে ছাত্রদল। কিছুক্ষণের মধ্যেই কোটা আন্দোলনের নেতাকর্মী ও বাম ছাত্র সংগঠনের নেতাদের নেতৃত্বে একটি বিরাট মিছিল টিএসসি থেকে বের হয়। ডাকসু নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুরু, কোটা আন্দোলনের নেতা রাশেদ, ফারুক, ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি লিটন নন্দীর নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি রাজু ভাস্কর্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মসজিদ, কলাভবন, অপরাজেয় বাংলা হয়ে রাজু ভাস্কর্যে পৌঁছায়।

এসময় বক্তব্য রাখেন নুরুল হক নুরু। তিনি বলেন, নির্বাচনের দিন রোকেয়া হলে ব্যালট উদ্ধার করতে গিয়ে ছাত্রলীগের হামলার শিকার হয়েছি। আজও হাতুড়ি আর হেলমেট বাহিনী সন্ত্রাসীরা আমাদের ওপর হামলা করেছে। ঢাবি প্রশাসনকে হুঁশিয়ার করে দিয়ে তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় একটি অগ্নিস্ফুলিঙ্গ। এতে হাত দেবেন না। পুড়ে ছারখার হয়ে যাবেন। অবিলম্বে  হামলাকারীদের বহিষ্কারের দাবি জানান তিনি।

এ ব্যাপারে মন্তব্য করে ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুর বলেন, ডাকসুর ফল ঘোষণা নিয়ে অনেক নাটক হয়েছে। রাত ৩টা পর্যন্ত নির্বাচনের ফল ঘোষণা হয় নি। আমি ঘোষণা দিচ্ছি সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ছাত্রলীগ একটা সদস্য পদেও জয়ী হতে পারতো না। ভিপি ও সমাজসেবা সম্পাদক পদ ছাড়া বাকি পদগুলোতে যদি পুনরায় সুষ্ঠু নির্বাচন হয় আর সেখানে ছাত্রলীগ একটি পদেও জয়লাভ করে তাহলে ভিপি পদ থেকে পদত্যাগ এবং ঢাবির ছাত্রত্ব প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন তিনি।

নুর বলেন, নির্বাচনে অনেক কারচুপি হয়েছে। নির্বাচনে গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন জড়িত ছিল। এই প্রশাসন ছাত্রলীগের সহযোগী। আমি তাদের বলতে চাই, ছাত্রদের অধিকার নিয়ে খেলবেন না। আমাদের নামে মামলা দিয়েছেন। এসব বন্ধ করুন। আমরা মামলায় ভয় করি না।

নুরুল হক নুরু বলেন, ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন হয়েছে।  জাতীয় নির্বাচনে যখন ভোট ডাকাতি হয়েছে, কিংবা ভোট না দিতে পারার কারণে যখন নির্বাচনের প্রতি মানুষের অনাস্থা সৃষ্টি হয়েছে। তখন এই নির্বাচনে শুধু ছাত্রসমাজ না, সারা দেশের মানুষ তাকিয়ে ছিল। সবার প্রত্যাশা ছিল একটি সুষ্ঠু নির্বাচন হবে। কিন্তু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দলকানা প্রশাসন নীলনকশার নির্বাচন করেছে। সেই নির্বাচনে ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের প্রার্থীদের জেতাতে সব রকমের অপচেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

ভিপি পদে নিজের বিজয় সম্পর্কে তিনি বলেন, এত কারচুপির পরও আমাকে আটকাতে পারেনি কিন্তু বাকিদের আটকাতে পেরেছে। ছাত্রদের ভোটে আমরা জয় লাভ করেছি। বাকি পদে ছাত্রলীগের নেতাদের কারচুপির মাধ্যমে জিতিয়ে দেয়া হয়েছে। ছাত্রী হলের উদাহরণ টেনে নুর বলেন, এসব হলে ক্ষমতাসীন দলের কোনো প্রার্থী জয়ী হতে পারেনি। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য ভিপি হিসেবে ছাত্রসমাজকে নিয়ে আন্দোলন করবেন বলে জানান তিনি। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নুর বলেন, বিভিন্ন প্যানেলের প্রার্থীদের নিয়ে বসে পরবর্তী কর্মসূচি নির্ধারণ করা হবে। এ ছাড়া ছাত্র ধর্মঘট চলবে বলে জানান তিনি।

এদিকে, হামলার পরপর সাংবাদিকদের সামনে বক্তব্য রাখেন ডাকসু’র ছাত্রদলের প্যানেলের জিএস প্রার্থী আনিসুর রহমান। তিনি বলেন, টিএসসিতে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি পালন করছিলাম। হঠাৎ করেই সূর্যসেন হলের ছাত্রলীগ নেতা ফেরদৌসের নেতৃত্বে আমাদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। তারা লাঠি, বাঁশ, রড হাতে নিয়ে হামলা করেছে।
তিনি বলেন, ঐতিহ্যবাহী ডাকসুকে তারা কলঙ্কিত করেছে। এখন সবুজ ক্যাম্পাসকে রক্তাক্ত করতে চায়। শিক্ষার্থীরা সেই সুযোগ তাদের দেবে না। এই ক্যাম্পাস কোনো সন্ত্রাসীদের আশ্রয়স্থল না। তিনি  দেশবাসীর কাছে বিচার দাবি করেন।

নুর-শোভন কোলাকুলি: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে ভিপি পদে জয়ী নুরুল হক নুরকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ছাত্রলীগের সভাপতি ও ভিপি পদে পরাজিত প্রার্থী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন। মঙ্গলবার ভিসির বাসভবনের সামনে অবস্থানরত ছাত্রলীগ নেতাদের উদ্দেশে শোভন প্রথমে নুরকে ভিপি পদে মেনে নেয়ার আহ্বান জানান। বিকালে ছাত্রলীগ সভাপতি অনুসারীদের নিয়ে টিএসসিতে যান। সেখানে তিনি নুরের সঙ্গে কোলাকুলির পর বলেন, ‘২৮ বছরে পর আমাদের ডাকসু নির্বাচন হয়েছে। আমরা চাই না এ নিয়ে আমাদের ক্যাম্পাসে কোনো সমস্যার সৃষ্টি হোক। আমরা চাই প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় থাকুক। আমরা শিক্ষাবান্ধব বিশ্ববিদ্যালয় গড়তে একসঙ্গে কাজ করতে চাই। নুরকে নিজের ছোট ভাই উল্লেখ করে শোভন বলেন, নুর আমার ছোট ভাই। সে আমার ছোট ভাই, বন্ধু। সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ভোটে নির্বাচিত হয়েছে।

তাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থীকে এই ফল মেনে নিতে হবে। আমি এই নির্বাচনের ফল সবাইকে মেনে নেয়ার আহ্বান জানাই। আমি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে তাকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। আমি তাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবো। নুরুল হক যেহেতু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিপি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। তাকে ভিপি হিসেবে সবাইকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার আহ্বান জানাই। আমরা ভাই ভাই, সবকিছু যাতে সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হয় সেই আহ্বান আমি জানাবো সবাইকে।’ এ সময় নুরকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার অঙ্গীকার করেন তিনি। জবাবে ভিপি নুর বলেন, ‘শোভন ভাই আমার হলের বড় ভাই। আমার কাছে ভালো লেগেছে তিনি আমাকে শুভেচ্ছা জানাতে এসেছেন। আমরা একই পদে নির্বাচন করেছি। আমি বিজয়ী হয়েছি। তিনি আমাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এটা খুবই ভালো লেগেছে।’ নুর বলেন, ‘ঢাবি দেশের বাতিঘর। সবাই এখানে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করবো। শিক্ষাবান্ধব ক্যাম্পাস হিসেবে ঢাবিকে গড়ে তুলবো। সেই সহযোগিতা আমি সবার কাছে প্রত্যাশা করি।’

নুর বলেন, ‘আমি বিশেষ করে ব্যক্তিগতভাবে ও অনেকেই নির্বাচন নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ করেছে। ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদকসহ বিভিন্ন ছাত্রসংগঠন ও প্যানেল অনিয়মের অভিযোগ তুলে পুনঃনির্বাচনের দাবি তুলেছে। আমরাও এ দাবি জানাই।

নুরু বলেন, আমরা চেয়েছিলাম একটা দৃষ্টান্তমূলক নির্বাচন হোক। কিন্তু বিভিন্ন অনিয়ম কারচুপির কারণে আমাদের সেই আশা পূরণ হয়নি।
মঙ্গলবার নুরসহ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে ঘোষিত ক্লাস বর্জন কর্মসূচি থেকে সরে আসার ঘোষণা দেন নুর।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর