× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার

এবারো মোহামেডানের জয়ের ‘নায়ক’ রকিবুল

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৩ মার্চ ২০১৯, বুধবার, ৮:২৪

চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার লীগে টানা দুই ম্যাচে ৮০-উর্ধ্ব রানের ইনিংস খেললেন রকিবুল হাসান। দুবারই অপরাজিত। আর অধিনায়কের দারুণ ব্যাটিংয়ে টানা দ্বিতীয় জয় দেখলো মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব।  প্রথম ম্যাচে রকিবুল হাসানের অপরাজিত ৮২ রানে ভর করে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের বিপক্ষে ৩ উইকেটের জয় পেয়েছিল মোহামেডান। আর গতকাল খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতির বিপক্ষে ৮৪ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে মোহামেডানকে ৪ উইকেটের জয় এনে দেন অধিনায়ক রকিবুল।

মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে ২২৫ রানে অলআউট হয় খেলাঘর। অল্প রানের পুঁজি নিয়েও মোহামেডানের ওপর চেপে বসেছিল খেলাঘরের বোলাররা। তবে দায়িত্বশীল ব্যাটে সে চাপ সামলে ৪ বল হাতে রেখেই দলকে জয় এনে দেন মোহামেডান অধিনায়ক।

২২৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৬৪ রান জমা করেন ওপেনার অভিষেক মিত্র এবং আবদুল মজিদ। কিন্তু দুজন মিলে খরচ করে ফেলেন ১৯.২ ওভার। মজিদ ৬৮ বলে ৪০ এবং অভিষেক ৫১ বলে করেন ২৭ রান।
ইনিংসের ২৬তম ওভারের শেষ বলে ইরফান শুক্কুর (১৬) যখন সাজঘরে  ফেরেন, তখন দলের সংগ্রহ ৯৭/৩ । আরো একবার ভক্তদের হতাশ করেন মোহাম্মদ আশরাফুল। প্রথম ম্যাচে রানের খাতা না খুলেই সাজঘরে ফিরেছিলেন তিনি। আর গতকাল উইকেট খোয়ানোর আগে আশরাফুল করেন ১০ রান। এতে ৩৩ ওভার শেষে মোহামেডানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১২২/৪-এ। তবে পঞ্চম উইকেটে ৭৪ বলে ৮৩ রানের জুটি গড়েন রকিবুল ও নাদিফ চৌধুরী। ৩৮ বলে ৪ চার ও ১ ছক্কার মারে ৩৯ রানে আউট হন নাদীফ। তবে লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারে নিজের ৩৮তম ফিফটিতে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন রকিবুল। তবে ম্যাচ গড়ায় শেষ ওভারের রোমাঞ্চে।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ৯ রানের। প্রথম বলটি ওয়াইড করেন খেলাঘর পেসার ইরফান হোসেন। পরের বলে ছক্কা হাঁকিয়ে সমীকরণটা ৫ বলে ২ রানে নামান রকিবুল। আর ওভারের দ্বিতীয় বলে বাউন্ডারি মেরে জয় নিশ্চিত করেন মোহামেডান অধিনায়ক। শেষ পর্যন্ত ৮ চার এবং ১ ছক্কার মারে ৮৮ বলে ৮৪ রানে অপরাজিত থাকেন ম্যাচসেরা খেলোয়াড় রকিবুল।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ৪৭.৩ ওভারে ২২৫ রানে গুঁড়িয়ে যায় খেলাঘরের ইনিংস। দলের সর্বোচ্চ ৮৭ রান করেন চার নম্বর ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক ইফতেখার। রানআউটে উইকেট বিসর্জন দেয়ার আগে ১১৩ বলের ইনিংসে ইফতেখার হাঁকান ৭টি বাউন্ডারি। অমিত মজুমদার ৩৭ ও ভারতীয় অলরাউন্ডার অশোক মেনারিয়া করেন ২৬ রান। মোহামেডানের বল হাতে ১০ ওভারের স্পেলে ৪১ রানে তিন উইকেট নেন অফস্পিনার সোহাগ গাজী।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর