× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৬ মার্চ ২০১৯, মঙ্গলবার

যৌন কেলেঙ্কারিতে কার্ডিনাল জর্জ পেলের জেল

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৩ মার্চ ২০১৯, বুধবার, ১২:১০

অস্ট্রেলিয়ায় দুই বালকের ওপর যৌন নির্যাতনের অভিযোগে কার্ডিনাল জর্জ পেলকে ৬ বছরের জেল দিয়েছে ভিক্টোরিয়ার কাউন্টি কোর্ট। তিনি ভ্যাটিকানের সাবেক কোষাধ্যক্ষ। ফলে শিশুদের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে এ যাবতকাল যত ক্যাথিলিক যাজক বা ব্যক্তিত্বকে অভিযুক্ত করা হয়েছে তার মধ্যে তিনি সবচেয়ে সিনিয়র। গত বছর একজন জুরি রায় দিয়েছেন যে, জর্জ পেল ১৯৯৬ সালে মেলবোর্নের একটি ক্যাথেড্রালে ১৩ বছর বয়সী একটি বালককে যৌন নির্যাতন করেছেন। ওই বালকটি ক্যাথেড্রালের প্রার্থনা সঙ্গীতের কোরাস গাইতো। তবে ৭৭ বছর বয়সী এই কার্ডিনাল নিজেকে নির্দোষ দাবি করে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

বুধবার তার বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করেন একজন বিচারক। এ সময় ওই বিচারক বলেন, দু’জন বালকের ওপর ভয়াবহ ও জোরপূর্বক যৌন নির্যাতন করেছেন এই ধর্মীয় নেতা।
জর্জ পেলকে উদ্দেশ করে বিচারক পিটার কিড বলেন, আপনার আচরণ ভয়াবহ ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।
গত ডিসেম্বরে জুরিরা জর্জ পেলকে সর্বসম্মতিক্রমে অভিযুক্ত করেন। এতে বলা হয়, ১৬ বছরের কম বয়সী একটি বালককে জোরপূর্বক বলাৎকার করেছেন জর্জ পেল। এ জন্য তার বিরুদ্ধে এক দফা অভিযোগ গঠন করা হয়। এ ছাড়া ১৬ বছরের কম বয়সী বালকের সঙ্গে অশ্লীল আচরণের চার দফা অভিযোগ গঠন করা হয় তার বিরুদ্ধে। তাকে এভাবে অভিযুক্ত করে শাস্তি ঘোষণায় নড়েচড়ে উঠেছে ক্যাথলিক চার্চ। কারণ, তিনি ছিলেন ভ্যাটিকানের পোপের ঘনিষ্ঠ উপদেষ্টাদের অন্যতম।  

বুধবার তার বিরুদ্ধে যখন ওই রায় ঘোষণা করা হয় তখন মেলবোর্নের আদালত ছিল জনাকীর্ণ। সেখানে বিচার প্রক্রিয়া প্রত্যক্ষ করতে যোগ দেয় নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া এক বালক। ঘোষিত শাস্তিতে বলা হয়েছে, তিন বছর আট মাস জেল ভোগের পর প্যারোলে মুক্তি পেতে পারেন জর্জ পেল। তবে তার আপিল শুনানি হবে জুনে।

আদালতে কি শুনানি হয়েছিল
প্রসিকিউটররা বলেছেন, ১৯৯৬ সালে সেইন্ট প্যাট্রিকস ক্যাথেড্রালে একটি গণ জমায়েতের পরে ওই বালকদের ওপর যৌন নির্যাতন চালিয়েছেন জর্জ পেল। তখন তিনি মেলবোর্নের আর্চবিশপ ছিলেন। এক রকম পানীয় পান করার পর ওই বালকদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন তিনি। আদালতের শুনানিতে এসব বলা হয়েছে। এরপর ১৯৯৭ সালে ওই বালকদের একজনকে তিনি যৌন নির্যাতনের শিকারে পরিণত করেন। তাদের একজনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয় বিচার চলাকালে। নির্যাতিতদের অন্যজন ২০১৪ সালে মারা গেছে অতিরিক্ত মদ পান করার কারণে। এই শুনানি বা অভিযোগের বিষয়টি এ বছর ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জনগণের দৃষ্টির আড়ালে রাখা হয়। তবে প্রসিকিউটররা এ সময়ে জর্জ পেলের বিরুদ্ধে আরো যৌন নির্যাতনের অভিযোগ আনেন।

বিচারক কি বলেছেন?
বিচারক কিড বলেছেন, জর্জ পেল যে অপরাধ করেছেন তা নির্মম। তিনি এটা করেছেন ক্ষমতার অপব্যবহার করে। জর্জ পেলকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনি তখন সেইন্ট প্যাট্রিকস ক্যাথেড্রালের আর্চবিশপ ছিলেন। এর চেয়ে নি¤œ পদে ছিলেন না। এ সময়েই আপনি ক্যাথেড্রালের ভিতরে কোরাসে অংশ নেয়া দুটি বালককে যৌন নির্যাতনে ব্যবহার করেছেন। ওই সময়ে নির্যাতনের শিকার বালক দুটি চিৎকার করছিল। তখন আপনি তাদেরকে চুপ থাকতে বলেছেন।
জর্জ পেলের বয়স ৭৭ বছর হওয়া ও দীর্ঘ মেয়াদে জেল দেয়া হলে তার স্বাস্থ্যগত বিষয় মাথায় রেখে বিচারক শাস্তি ঘোষণা করেছেন।  তার বিরুদ্ধে যে পাঁচটি অভিযোগ আছে তার প্রতিটিতে তার সর্বোচ্চ ১০ বছরের জেল হওয়ার কথা।

প্রতিক্রিয়া কি?
জর্জ পেলের নির্যাতনের হাত থেকে বেঁচে আছে একজন ভিকটিম। তার নাম প্রকাশ করা হয় নি। সে এই শাস্তি দেয়াকে স্বাগত জানিয়েছে। তার ভাষায়, আমার ভিতরে কোনো স্বস্তি নেই। জর্জ পেল আপিল করেছেন। ফলে সেই আপিলের বিষয়ে সবকিছুতে যেন ছায়া পড়েছে।
যৌন নির্যাতনের শিকার যে বালকটি মারা গেছে, তার পিতা প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন। তিনি জর্জ পেলকে স্বল্প মেয়াদে জেল দেয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছেন। তবে অন্তত জর্জ পেলকে যে জেল দেয়া হয়েছে তাতে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন। তার ভাষায়, আমি তাকে আদালত থেকে বেরিয়ে আসতে দেখেছি। তখন আমি নিজে নিজে বলেছিÑ আজ রাতে আমি বিছানায় ঘুমাবো। আপনি কোথায় ঘুমাবেন?
গত মাসে জর্জ পেলের অভিযুক্ত হওয়ার খবরকে বেদনাদায়ক খবর হিসেবেভে আখ্যায়িত করেছে ভ্যাটিকান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর