× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ মার্চ ২০১৯, রবিবার

ব্যাংক ও আর্থিক খাত বিপদে আছে: অর্থমন্ত্রী

শেষের পাতা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | ১৫ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার, ১০:০৯

এই মুহূর্তে বাংলাদেশের ব্যাংকিং ও আর্থিক খাত সবচেয়ে বেশি বিপদের মুখোমুখি বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। গতকাল রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল-এ অগ্রণী ব্যাংকের বার্ষিক সম্মেলন-২০১৯ অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন তিনি। অগ্রণী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ড. জায়েদ বখতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, ব্যাংকের পরিচালক কাশেম হুমায়ুন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, এখন যেভাবে চলছে এভাবে চললে কোনো দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়। স্বল্প মেয়াদি আমানত গ্রহণ করে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ দেয়া যেতে পারে না। এর মাধ্যমে যারা উন্নয়নের চিন্তা করে তারা বোকার রাজ্যে রয়েছে। সেজন্য বন্ড ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে সরকারের পক্ষ থেকে। আর প্রাণ গ্রুপের মাধ্যমে এই ব্যবস্থার উদ্বোধন করা হবে বলেও জানান তিনি।

অর্থমন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়নে ট্যাক্সের পরিধি আরো বাড়াতে হবে।
আমাদের দেশে যারা ট্যাক্স প্রদান করেন তারাই বারবার ট্যাক্স প্রদান করে আসছেন। কিন্তু নতুন করে ট্যাক্সের আওতায় আসার উপযোগী অনেক মানুষ এই তালিকার অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন না। তাই আগামী বাজেটে আমি এই অপবাদ থেকে জাতিকে মুক্তি দিতে চাই বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

অগ্রণী ব্যাংকের পক্ষ থেকে জানানো হয় আমানত, ঋণ, পরিচালন মুনাফা, নিট মুনাফা, আমদানি, রপ্তানি ও রেমিট্যান্স প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে ব্যাংকটি। লোকসানি শাখার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১টি। বছর শেষে ব্যাংকটির শ্রেণিকৃত ঋণের পরিমাণ ৫৭৫১ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বলেন, বিশ্বব্যাপী প্রকৌশলগত উন্নয়নের পাশাপাশি সাইবার ঝুঁকিও বাড়ছে। বাংলাদেশের ব্যাংক খাতকে এই ঝুঁকি থেকে মুক্ত রাখতে সব ব্যাংকের কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ অগ্রণী ব্যাংকের পক্ষ থেকে মোট ১৬ জনকে ‘গুণী গ্রাহক’ সম্মাননা প্রদান করা হয়। এর মধ্যে আছেন বসুন্ধরা গ্রুপের আহমেদ আকবর সোবহান, এপেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান মনজুর এলাহী, সিটি গ্রুপের ফজলুর রহমান, নর্থইস্ট পাওয়ারের খুরশিদ আলম, প্রাণ গ্রুপের উজমা চৌধুরী, নোমান গ্রুপের নুরুল ইসলাম, বিএসআরএম এর আলী হোসেন, পিএইচপি গ্রুপের সুফি মিজানুর রহমান, প্রাইম গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল, এসএমই উদ্যোক্তা হিসেবে নুরুন্নাহার বেগম।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Sujan
১৭ মার্চ ২০১৯, রবিবার, ৩:৫৬

Please stop the political person in the bank .and take action thief of bacck bank. Why bacho still free

অন্যান্য খবর