× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৩ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার
ভারতের প্রথম ভোটার

১০২ বছরেও মুখিয়ে রয়েছেন ভোট দেবার জন্য

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৫ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার, ৭:২৬

ভারতের প্রথম ভোটার তিনি। ১০২ বছর বয়সেও এখনো মুখিয়ে রয়েছেন ভোট দেবেন বলে। আগামী ১৯ মে তার কেন্দ্রে ভোট। স্বাধীন ভারতের এই প্রথম ভোটার হলেন হিমাচল প্রদেশের কিন্নর জেলার কল্পা মান্ডি লোকসভা কেন্দ্রের বাসিন্দা শ্যামশরণ নেগি। নির্বাচনের দিন ঘোষণার পর থেকেই চনমনে হয়ে উঠেছেন তিনি।

শ্যামশরণের পুত্র চন্দ্রপ্রকাশ জানিয়েছেন, লোকসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণার পরেই বাবা আমাকে বললেন, যতদিন বেঁচে থাকব, ভোট দেবই। সেই ১৯৫১ সাল থেকে নিজের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করে চলেছেন। ১৯৫১ সালের ২৫ অক্টোবর চিন্নির একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বুথে ভোট দিয়েছিলেন তিনি।
স্বাধীন ভারতের প্রথম সাধারণ নির্বাচনে তাঁদের এলাকায় প্রথম ভোট গ্রহণ করা হয়েছিল। ফেব্রুয়ারিতে ভারতের বাকি অংশে ভোটগ্রহণ করা হয়েছিল। আসলে আশঙ্কা ছিল, ফেব্রুয়ারিতে ভোটের সময় ওই এলাকা বরফে ঢেকে যাবে। তাই কয়েক মাস আগে ভোটগ্রহণ করা হয়েছিল। নির্বাচনের ঘোষণা হলেই শ্যামশরণের কদর বেড়ে যায়। এবারও নির্বাচনের দিন ঘোষনার পর থেকে প্রতিদিনই সাংবাদিকরা ছুটে আসছেন। আসছেন নির্বচনী আধিকারিকরাও।

গত লোকসভা নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন শ্যামশরণকে ‘ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর’ করেছিল। ২০১৭ সালের বিধানসভা নির্বাচনেও জেলার উচ্চপদস্থ আধিকারিকেরা তাঁকে গাড়ি করে ভোট দিতে নিয়ে গিয়েছিলেন। তার আগে তাঁকে বাড়িতে এসে ভিভিপ্যাট ব্যবহারের কৌশল শিখিয়ে গিয়েছিলেন নির্বাচনী আধিকারিকেরা। ১০২ বছর বয়সে খানিকটা কমজোরি হলেও এখনও সকালে উঠে হাল্কা ব্যায়াম করেন। কানে এখন কম শোনেন। তবে মনের জোর এখনও বেশ শক্ত। অবসর সময়ে শ্যামশরণের সঙ্গী একটি রেডিও। কানের কাছে রেডিও ধরে শোনেন তিনি। দুবেলা খাওয়া। রাতের খাওয়া চাপাটি ও সবজি। সঙ্গে এক গ্লাস দুধ। আর বেশ কয়েকবার চা। ছোটো বউমার সঙ্গে কথা বলেই কেটে যায় সময়। বাকি সময়টায় সঙ্গী রেডিও। আর এখন ভোট দেবার প্রতীক্ষায় দিন গুনছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর