× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২০ মার্চ ২০১৯, বুধবার

৫ কোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা জনতা ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি

বাংলারজমিন

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি | ১৬ মার্চ ২০১৯, শনিবার, ৮:৫৫

 রামগঞ্জে জনতা ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি নামের একটি প্রতিষ্ঠান ৫ কোটি টাকার সম্পদ ও নগদ টাকা লগ্নি করে পালিয়েছে। এতে করে পথে বসার উপক্রম জেলার রামগঞ্জ শহরের অর্ধশত ব্যবসায়ী, চাকরিজীবী ও প্রবাসীর পরিবারের। ফার্মের মালিক সাড়ে ৪ বছরে দশতলা মার্কেটটি নির্মাণ শেষ করার চুক্তিবদ্ধ হলেও দীর্ঘ ৯ বছরেও তিন তলার কাজ শেষ না করে কোটি কোটি টাকা নিয়ে গা-ঢাকা দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন কয়েকজন ক্ষতিগ্রস্ত ভূমির মালিক।
রামগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্রে (থানার সামনে) জনতা ইউনিটি টাওয়ার নামে দশতলা ভবন নির্মাণে টাকা ও সম্পদ দিয়ে ক্ষোভ ও হতাশা দেখা দিয়েছে ভুক্তোভোগীদের মাঝে। ব্যাংক ঋণের বোঝা ও ধার করা টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে অনেকেই এখন সর্বস্বান্ত।
এ ব্যাপারে লুৎফর রহমান মাস্টার, তোফাজ্জল হোসেন, ফিরোজ আলম, ফেরদৌসী বেগমসহ ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগণ জানান, ২০১০ইং সনে রামগঞ্জ থানা সংলগ্ন রতনপুর মৌজার বিভিন্ন দাগে স্থানীয় ১৩ জন ব্যবসায়ী ১০ তলা মার্কেট ও ফ্ল্যাট নির্মাণে ঢাকার গুলশানস্থ জনতা ডেভেলপমেন্ট এন্ড টেকনোলজিস নামের একটি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী শামস রহমান মানিকের সঙ্গে পাওয়ার অব অ্যাটর্নির মাধ্যমে চুক্তিবদ্ধ হয়। চুক্তি অনুযায়ী সাড়ে চার বছরে উক্ত মার্কেটের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ফার্মের মালিক গত ৮ বছরে নানান তালবাহানায় তিন তলার নির্মাণ কাজ অসম্পূর্ণ রাখে। এবং ৫৫-৬০ জন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের নিকট শামস রহমান মানিক উচ্চমূল্যে দোকান বিক্রি করেও দোকানগুলো বুঝিয়ে না দিয়ে বর্তমানে গা-ঢাকা দিয়েছেন। এ ছাড়াও একই দোকান কয়েকজনের কাছে বিক্রি করে দেয়ায় প্রকৃত মালিকগণ দোকানগুলো দখলেও নিতে পারছেন না।
রোমান হোসেন পাটওয়ারী, আবদুল হান্নান, ফরহাদ আহমেদসহ ভূমি মালিকগণ জানান, সংশ্লিষ্ট বিষয়ে গত কয়েক বছরে উক্ত প্রতিষ্ঠানের মালিককে আইনি নোটিশ দেয়া হলেও তার পক্ষ থেকে আশানুরূপ সাড়া পাওয়া যায়নি।
এ ছাড়াও চুক্তিমতে ভূমি মালিকদের প্রাপ্য অংশ বুঝিয়ে না দেয়ায় চরম ক্ষোভ ও হতাশা দেখা দিয়েছে।
বর্তমানে ভূমি মালিকগণ জনতা ডেভেলপমেন্ট এন্ড টেকনোলজিস-এর নির্মাণাধীন তৃতীয়তলা পর্যন্ত অসম্পূর্ণ কাজ শেষ করতে কত টাকা প্রয়োজন এ মর্মে (অৎপযবঃুঢ়ব) নামে একটি প্রকৌশল প্রতিষ্ঠানের কাছে হিসাব চাইলে উক্ত প্রতিষ্ঠান সার্ভে করে প্রায় এক কোটি সতের লাখ টাকা প্রয়োজন বলে হিসাব প্রদান করেন। এ ব্যাপারে জনতা ডেভেলপমেন্ট এন্ড টেকনোলজিস নামের একটি কনস্ট্রাকশন ফার্মের স্বত্বাধিকারী শামস রহমান মানিক মুঠোফোনে জানান, মালিকপক্ষের রিয়েল এস্টেট বিষয়ে ধারণা না থাকায় তারা অনেক কথাই বলতে পারে। এ ছাড়া জমি মালিকদের জমি নিষ্কণ্টক নেই। প্রায়  ৩ কোটি অতিরিক্ত খরচ করার কারণে ডিজাইন কিছুটা পরিবর্তন হয়েছে। ব্রোকারের মাধ্যমে দোকান বিক্রির কারণেও দুই একটা দোকান নিয়ে বিতর্ক থাকতে পারে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর