× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ মার্চ ২০১৯, রবিবার

পার্থক্যটা শুধু বয়স ও অভিজ্ঞতায়

খেলা

সামন হোসেন, বিরাটনগর নেপাল থেকে | ১৬ মার্চ ২০১৯, শনিবার, ৯:০২

নেপাল ম্যাচের আগের দিন সকালে ঘুরে ফিরে দুই দলের বয়সের পার্থক্যটাই সামনে টেনে আনলেন বাফুফের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর পল স্মলি। প্র্যাকটিস শেষে দলের হেড কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনও জানালেন দুই দলের পার্থক্য বয়স ও অভিজ্ঞতায়। বাংলাদেশ দলের একমাত্র সাবিনার বয়স যেখানে কুড়ির অধিক। সেখানে নেপালের কুড়ির নিচে আছে মাত্র দু’জন। বাংলাদেশের একমাত্র সাবিনা পাঁচটি সাফ খেলেছেন। নেপালের এই অভিজ্ঞতা আছে পুনাম, মানমায়া লিম্বু, দিপা রায়, শার্মিলা থাপারা। তিনটি করে সাফ খেলেছেন সাবিত্রা ভাণ্ডারিসহ বেশ কয়েকজন। তবে বিরাটনগরে স্বাগতিকদের বিপক্ষে বয়স অভিজ্ঞতাকে পাশ কাটিয়ে তারুণ্যেরই জয় হবে বলে বিশ্বাস করেন বাংলাদেশের ফুটবলার।
এই বিশ্বাস নিয়েই রঙ্গশালায় স্বাগতিক দর্শকদের সামনে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াইয়ে নেপালের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় বিকাল সোয়া তিনটায় শুরু হবে এই ম্যাচ।
‘এ’ গ্রুপের গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে নেপালকে হারাতে পারলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ। সেক্ষেত্রে তারা প্রতিপক্ষ হিসেবে পাবে ‘বি’ গ্রুপ রানার্সআপ শ্রীলঙ্কাকে। অন্যথায় ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে ভারতের মোকাবেলা করতে হবে সাবিনা-কৃষ্ণাদের। ভুটান ম্যাচের পর মাত্র ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে নেপালের বিপক্ষে মাঠে নামতে হচ্ছে  বাংলাদেশকে। গ্রুপ সেরা হওয়ার গুরুত্বপূর্ণ এ লড়াইয়ের আগে আর্মড পুলিশ গ্রাইন্ডে আগে ম্যাচে খেলা ফুটবলারদের বিশ্রাম দিয়েছেন ছোটন। আঁখি, শিউলিরা অনুশীলনে গেলেও বল পায়ে মাঠে নামেননি। এ সময় তাদের রিকোভারি নিয়ে কাজ করেছেন ফিজিও। তবে বাকিদের ঠিকই ঘাম ঝরিয়েছেন বাফুফের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর পল থমাস স্মলি। গতকাল সকালে এই বৃটিশ বংশোদ্ভূত অস্ট্রেলিয়ান জানিয়েছিলেন নেপালের বিপক্ষে বাংলাদেশের দলের মূল সমস্যা হবে অভিজ্ঞতা। ওদের গড় বয়স যেখানে ২৩, সেখানে বাংলাদেশের ১৬। এরা দীর্ঘদিন ধরে একসঙ্গে সিনিয়র দলে খেলছে। সেখানে বাংলাদেশের মেয়েরা সবে শুরু করলো। তবে এই দল নিয়ে অনেক উচ্ছ্বাস পলের। তার বিশ্বাস চার পাঁচ বছর পর এই মেয়েরা যখন মহিলাতে পরিণত হবে, তখন বাংলাদেশ একটি শক্তিশালী দল হয়ে উঠবে। তবে ভবিষ্যৎ নিয়ে এখনই ভাবতে চান না হেড কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। তার বিশ্বাস আত্মবিশ্বাস ও ফিটনেস দিয়ে অভিজ্ঞতা ও বয়সকে পেছনে ফেলবে মেয়েরা।
বয়সভিত্তিক ফুটবলে নেপালকে হারালেও সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে কখনো জয় পায়নি বাংলাদেশ। নেপালের বিপক্ষে জাতীয় দলের একমাত্র সফলতা গত নভেম্বরে মিয়ানমারে অলিম্পিক বাছাই পর্বের ড্র। ওই ড্র থেকেই আত্মবিশ্বাসের রসদ পেয়েছে বাংলাদেশ। এমনটাই জানালেন বাংলাদেশের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। গতকাল অনুশীলন শেষে সাবিনা বলেন, আসলে প্রথম টার্গেট ছিল ভুটানের বিপক্ষে জিতে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করা এবং জিতে সেমি নিশ্চিত করেছি। তবে নেপাল স্বাগতিক, অনেক অভিজ্ঞ দল, তবে আমাদের দলের খেলোয়াড়দের বয়স এবং অভিজ্ঞতা কম থাকলেও আমাদের শক্তি আছে। এদিক দিয়ে আমরা এগিয়ে। সব কিছু মিলিয়ে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ হবে। নেপালের বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা কথা জানিয়ে সাবিনা বলেন, মিয়ানমারে গত নভেম্বরে আমরা নেপালের সঙ্গে ড্র করেছি। সেটা প্রমাণ করে আমাদের দলের উন্নতি হয়েছে। মেয়েরা প্রস্তুত আছে লড়াইয়ের জন্য। আমার মনে হয় নেপালকে হারানো অসম্ভব নয়। নেপালের বেশ কয়েকজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড় আছেন। বিশেষ করে সাবিত্রী ভাণ্ডারি। ২৪টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে ২৩ গোল করা এই ফুটবলারের দিকে বিশেষ নজর থাকবে জানিয়ে সাবিনা বলেন, মাঝমাঠে আমাদের মনিকা, মারিয়া যদিও ওদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারে, তবে ওকে মাঝমাঠেই আটকানো সম্ভব। ওকে নিয়ে আলাদা পরিকল্পনার কথাও জানালেন দলের ডিফেন্ডার মাসুরা পারভীন। ভুটান ম্যাচে দারুণ খেলেছেন। নেপাল ম্যাচেও তাকে ঘিরে তৈরি হবে বাংলাদেশের আক্রমণভাগ। সেই মনিকা চাকমাও নেপাল ম্যাচের আগে বেশ আত্মবিশ্বাসী। স্যাররা আমাকে আর মারিয়া মান্ডাকে বলেছে, যা করবা তোমাদের দুইজনকেই করতে হবে। এজন্য আমরা তৈরি আছি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর