× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৪ মার্চ ২০১৯, রবিবার

বাংলাদেশ দলের জন্য স্বস্তি সরফরাজ-কোহলির

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৬ মার্চ ২০১৯, শনিবার, ৯:০২

নিউজিল্যান্ড সফরে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা নিরাপদে আছে জেনে স্বস্তি প্রকাশ করেন সরফরাজ আহমেদ, শোয়েব আখতার, বিরাট কোহলিরা। নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক এ গতিতারকা। টুইটার বার্তায় শোয়েব আক্তার বলেন, ‘ক্রাইস্টচার্চে মসজিদের মধ্যে সন্ত্রাসী হামলার ছবি দেখলাম। আমি স্তম্ভিত! আমরা কি আমাদের এবাদতের জায়গায়ও নিরাপদ নই? এই ধরনের হামলার তীব্র নিন্দা জানাই। আর স্বস্তির খবর, সেখানে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা নিরাপদে আছে।’ এই সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শোকবার্তা প্রকাশ করে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলও (আইসিসি)। আইসিসি’র শোকবার্তায় বলা হয়, ‘ক্রাইস্টচার্চে হামলার ঘটনায় আমরা শোকাহত। এ হামলায় নিহতদের পরিবার ও স্বজনদের জন্য আমাদের আন্তরিক সমবেদনা। দুইদলের খেলোয়াড়, স্টাফরা সবাই নিরাপদে আছেন এবং ম্যাচ বাতিলের সিদ্ধান্তে আইসিসি’র পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।’
গতকাল জুমার নামাজ আদায় করতে যে মসজিদে যাচ্ছিলেন তামিম-মুশফিকরা, তারা পৌঁছানোর আগেই সেখানে সন্ত্রাসী হামলায় প্রাণ যায় ৪০ জনের।
হামলাকারীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে নিন্দার ঝড়। সে তালিকায় রয়েছেন সাবেক ও বর্তমান অনেক ক্রিকেটার।
সামাজিক মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া
বিরাট কোহলি (ভারত): এটা বীভৎস এবং মর্মান্তিক। এই হামলায় হতাহতের পরিবারের সবাইকে সববেদনা জানাই। বাংলাদেশ দল অল্পের জন্য রক্ষা পাওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করছি।
সরফরাজ আহমেদ (পাকিস্তান): নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলার খবর শুনে আমি মর্মাহত। হামলায় সকল শহীদ এবং তাদের পরিবারের জন্য দোয়া করি। মানবতা ধ্বংস হয়ে গেছে, এটা প্রার্থনা করার জায়গা ছিল। তবে আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা যে, বাংলাদেশ দল নিরাপদে আছে।
জিমি নিশাম (নিউজিল্যান্ড): বিশ্বের নানা ঘটনা দূর থেকে দেখে ভাবতাম বিশ্বের এক কোণে আমরা আলাদা, যেখানে আমরা নিরাপদ। আজকের দিনটা ভয়ঙ্কর। বিরক্তিকর এবং দুঃখজনক। যেটা ভাষায় প্রকাশ করার মতো না।
রবিচন্দ্রন অশ্বিন (ভারত): পৃথিবীর কোনো স্থানই মানুষের জন্য নিরাপদ নয়। কারণ খোদ মানুষই এই গ্রহের জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি।
হর্ষ ভোগলে (ভারত): নিউজিল্যান্ডেই যখন আপনাকে গোলাগুলি থেকে বাঁচতে হয়। তখন বুঝতে হবে পৃথিবীটা খারাপ স্থানে পরিণত হয়েছে।
অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস (শ্রীলঙ্কা): নিউজিল্যান্ডে হত্যাকাণ্ডের খবর শুনে স্তব্ধ হয়ে পড়েছি। হতাহতের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল নিরাপদে আছে জেনে স্বস্তি পেলাম।
সনি বিল উইলিয়ামস (রাগবি তারকা, নিউজিল্যান্ড): খরবটা শুনে ভাষাহীন হয়ে পড়েছি। শুনেছি প্রায় ৩০ জনের মতো নিহত হয়েছে। নিহতদের পরিবারের প্রতি দোয়া রইল। ইনশাআল্লাহ তোমরা সবাই স্বর্গে থাকবে এবং দুঃখ লাগছে যে, এটা নিউজিল্যান্ডে ঘটলো।
ইশ সৌদি (নিউজিল্যান্ড): ক্রাইস্টচার্চে সন্ত্রাসী হামলায় আক্রান্তদের পরিবারের জন্য চিন্তা হচ্ছে। খুব খারাপ লাগছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর