× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

প্রধানমন্ত্রীর জন্য ভাবা আসনে বিজেপির প্রার্থী ২৮ বছরের তরুণ

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৮ মার্চ ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১১:৫৮

উত্তরপ্রদেশের বারাণসীর সঙ্গে দ্বিতীয় কেন্দ্র হিসেবে কর্ণাটকের বাঙ্গালুরু দক্ষিন কেন্দ্রটি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জন্য ভাবা হয়েছিল। পরে অবশ্য আলোচনায় এসেছিল প্রয়াত কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত কুমারের ছেড়ে যাওয়া আসনে তাঁর স্ত্রী তেজস্বিনী অনন্ত কুমারের নাম। সেই নামই দিল্লিতে পাঠানো হয়েছিল রাজ্য দলের পক্ষ থেকে। কিন্তু শেষপর্যন্ত সবাইকে অবাক করে দিয়ে এই আসনে ঘোষনা করা হয়েছে ২৮ বছরের এক টগবগে তরুণের নাম। ঘোষিত প্রার্থী  তেজস্বী সুর্য্য তালিকায় নিজের নাম দেখে নিজের চোখকেও বিশ্বাস করতে পারছিলেন না। এরপর থেকে সোস্যাল মিডিয়া রীতিমত সরগরম এই খবরে। আবেগে, উচ্ছ্বাসে সবাই মত্ত। সারা দেশের মধ্যে তিনিই সবচেয়ে কনিষ্ঠ বিজেপি প্রার্থী হতে পারেন বলেই মনে করা হচ্ছে।  দক্ষিন বাঙ্গালুরুর এই হেভিওয়েট কেন্দ্রে সব দলের হেভিওয়েটরাই প্রার্থী হন।
কিন্তু সেখানে একজন তরুণকে প্রথম প্রার্থী করাও অনেকেই অবাক হযেছেন। প্রার্থী সূর্য্য একাধিক  টুইটারে আবেগের সঙ্গে লিখেছেন, ওএমজি! ওএমজি! আমি বিশ্বাসই করতে পারছি না। বিশ্বের সর্ববৃহৎ গণতন্ত্রের প্রধানমন্ত্রী এবং বিশ্বের সবচেয়ে বড় দলের সভাপতি আমার মতো ২৮ বছরেরে এক যুবকের উপর আস্থা রেখেছেন এবং বেঙ্গালুরু দক্ষিণের মতো হেভিওয়েট কেন্দ্রে প্রার্থীর দায়িত্ব দিয়েছেন... এটা শুধুমাত্র বিজেপিতেই সম্ভব। শুধুমাত্র নরেন্দ্র মোদীর নয়া ভারতেই সম্ভব। কিন্তু কে এই তেজস্বী সূর্য্য? কর্নাটকের বিজেপি বিধায়ক রবি সুব্রহ্মণ্যর ভাগ্নে তেজস্বী। তাঁর সঙ্গে আরএসএস এবং সঙ্ঘ পরিবারের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ বলেই কর্নাটকের রাজনৈতিক শিবিরের দাবি। তা ছাড়া বক্তা হিসেবে সুখ্যাতি রয়েছে তেজস্বীর। মেরুকরণের রাজনীতি এখন থেকেই রপ্ত করে ফেলেছেন। কর্নাটক হাইকোর্টে আইনজীবীর কাজকর্মের পাশাপাশি ’অ্যারাইজ ইন্ডিয়া’ নামে একটি সংগঠন তৈরি করে অল্প বয়সেই সুনাম অর্জন করেছিলেন। তা ছাড়া বিজেপির কর্নাটকের আইটি সেলও তেজস্বীই দেখভাল করেন । পর্যবেক্ষকদের মতে, এই সব সূত্রেই টিকিট পেয়ে গিয়েছেন তেজস্বী। আর তাঁর বিরুদ্ধে প্রায় দু’দশক পর এ বারও কংগ্রেসের প্রার্থী হচ্ছেন  বি কে হরিপ্রসাদের মত প্রবীণ ব্যাক্তিত্ব।  ফলে অভিজ্ঞতা বনাম তারুণ্যের এই লড়াইয়ে নজর থাকবে গোটা দেশের রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর