× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, শুক্রবার

সুইডেনে অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আবার তদন্ত হবে

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৩ এপ্রিল ২০১৯, শনিবার, ১০:৪৩

বিশ্ব রাজনীতিতে তোলপাড় সৃষ্টি করা উইকিলিকসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ নতুন করে তদন্ত করবে সুইডেন। তার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ আনা এক নারীর আইনজীবীর অনুরোধে এমন তদন্ত হতে যাচ্ছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।
৪৭ বছর বয়সী অ্যাসাঞ্জ সাত বছর ধরে লন্ডনে অবস্থিত ইকুয়েডরের দূতাবাসে আত্মগোপন করেছিলেন। গত বৃহস্পতিবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর পরই তার পরিণতি কি হতে পারে তা নিয়ে চারদিকে আলোচনা। ২০১০ সালে মার্কিন সরকারের স্পর্শকাতর সব গোপন দলিলের বিশাল অংশ প্রকাশ করে দেয় উইকিলিকস। এ জন্য অ্যাসাঞ্জকে তাদের হাতে তুলে দিতে বৃটেনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র বহু আগে।
অস্ট্রেলিয়ায় জন্মগ্রহণকারী অ্যাসাঞ্জকে যদি যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেয়া হয় আর তিনি অভিযুক্ত প্রমাণিত হন তাহলে ৫ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে।

ওদিকে সুইডেনে একজন নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। এ জন্য কথিত ওই ধর্ষিতার আইনজীবী এলিজাবেথ মাসি ফ্রিটজ তার বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন। তাকে যাতে সুইডেনের হাতে তুলে দেয়া না হয় এ জন্য অ্যাসাঞ্জ ২০১২ সাল থেকে ওই দূতাবাসে আশ্রয় নিয়ে ছিলেন। কিন্তু অকস্মাৎ এতদিন পরে তাকে আশ্রয় দিতে অস্বীকৃতি জানায় দূতাবাস। ফলে বৃহস্পতিবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। নাটকীয় এই গ্রেপ্তারের পরে তাকে তোলা হয় ওয়েস্টমিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে। জামিনের শর্ত লঙ্ঘনের অভিযোগে তাকে অভিযুক্ত করা হয় সেখানে। বৃহস্পতিবার রাত কাটান তিনি পুলিশি হেফাজতে। এখানে অভিযোগ প্রমাণ হলে এক বছরের জেল হতে পারে তার। ওদিকে তার সুষ্ঠু বিচারের আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর