× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ জুলাই ২০১৯, বৃহস্পতিবার

ভিন্নমত দমনে সৌদি আরবের হাতিয়ার মৃত্যুদণ্ড

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৪ এপ্রিল ২০১৯, রবিবার, ৯:০৫

রাজপরিবারের বিরুদ্ধে কথা বললে তাদের থামাতে মৃত্যুদণ্ডকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে সৌদি আরব। এমনটাই দাবি করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। দেশটির পাবলিক প্রসিকিউশন বিখ্যাত ধর্মীয় নেতাসহ এ ধরনের আরো অনেককেই মৃত্যুদণ্ড দেয়ার পরিকল্পনা করছে বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি। এর মধ্যে রয়েছে প্রভাবশালী ধর্মীয় নেতা শেইখ সালমান আল-ওদেহ।
অ্যামনেস্টি জানিয়েছে মৃত্যুদণ্ড প্রদানে সব থেকে বেশি ভয়াবহ অবস্থায় রয়েছে সৌদি আরব, মিশর, ইরাক ও ইরানের মতো রাষ্ট্রগুলো। গত বছরের তুলনায় দেশগুলোতে মৃত্যুদণ্ড দেয়ার হার ৭৫ শতাংশ বেড়ে গেছে। যা একেবারেই অস্বাভাবিক। সৌদি আরবে আরো ৪ অধিকারকর্মী মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন।
তাদের অপরাধ দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যের বিক্ষোভে অংশগ্রহণ।
দেশটির সরকার এ ধরনের অধিকারকর্মীদের বিরুদ্ধে নতুন করে অভিযান পরিচালনা করছে। এতে গর্ভবতী নারীসহ বেশ কয়েকজন ইতিমধ্যে আটক হয়েছেন। এছাড়া নারী অধিকার ও নানা সামাজিক সংস্কারের দাবি করে নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন অধিকারকর্মীরা। সৌদি আরবের কারাগারে আটক অনেক বন্দির বিরুদ্ধেই কোনো অভিযোগ নেই। এর মধ্যে রয়েছে সৌদি আরবের রাজ-পরিবারের সদস্যরাও। মূলত ক্ষমতা ও অর্থের জন্যই তাদেরকে আটক করা হয়। এর মধ্যে অন্যতম ছিলেন রাজ পরিবারের সদস্য আল-ওয়ালিদ বিন তালাল। নিজের সমপত্তির একাংশ রাজপরিবারকে দিতে রাজি হওয়ার মাধ্যমে তিনি মুক্তি পেয়েছিলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর