× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৭ জুন ২০১৯, সোমবার

দেশে ফিরতে এক্সিট পারমিট নিতে হবে নূরকে

প্রথম পাতা

পরিতোষ পাল, কলকাতা থেকে | ২০ এপ্রিল ২০১৯, শনিবার, ৯:৪৭

জনপ্রিয় টিভি অভিনেতা বাংলাদেশের গাজী আবদুন নূরের দেশে ফিরতে আরো কয়েকদিন সময় লাগবে বলে জানা গেছে। ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর কোনো  বৈধ কাগজ ছাড়াই নূর ভারতে থেকে গেছেন বলে জানা গেছে। কলকাতাস্থ বিদেশি নাগরিক পঞ্জিকরণ অফিস (এফআরআরও) সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ৬ই জুলাই  নূরের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। গত নয় মাস তিনি বৈধ কাগজ ছাড়াই এখানে রয়ে গেছেন।

এ অবস্থায় বাংলাদেশে ফিরে যেতে হলে তাকে এক্সিট পারমিট নিতে হবে। কলকাতাস্থ বিদেশি নাগরিক পঞ্জিকরণ অফিস (এফআরআরও) এই পারমিট ইস্যু করবে। তবে তাকে ভিসা আইন ভঙ্গ করে ভারতে বৈধ কাগজ ছাড়া ওভারস্টে করার জন্য নিয়ম অনুযায়ী এক্সিট পারমিট পেতে হলে আর্থিক দণ্ড দিতে হবে। নিয়ম অনুযায়ী নূরকে ৪০০ মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ অর্থ জমা করে সেই কাগজ দেখিয়ে কলকাতাস্থ বিদেশি নাগরিক পঞ্জিকরণ অফিস (এফআরআরও) থেকে এক্সিট পারমিট নিতে হবে। এজন্য তার দেশে ফিরতে কয়েকদিন সময় লাগবে বলে জানা গেছে।
ভিসার মেয়াদ শেষে ৩ মাস পর্যন্ত ওভারস্টে করার জন্য ৩০০ ডলার, তিন মাস থেকে ২ বছর পর্যন্ত ওভারস্টে করার জন্য ৪০০ ডলার এবং ২ বছরের বেশি সময় ওভারস্টে করার জন্য ৫০০ ডলার পেনাল্টি দেয়ার আইন রয়েছে।

ভিসা নীতি লঙ্ঘন করার অভিযোগে জনপ্রিয় এই অভিনেতাকে বৃহস্পতিবারই ভারত ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। তার বিরুদ্ধে রাজ্যের শাসক দলের নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেয়ার অভিযোগ থাকলেও এখন বড় হয়ে উঠেছে নয় মাস ধরে বিনা ভিসায় নূরের ভারতে থেকে যাওয়ার বিষয়টি। নির্বাচন কমিশনে নূরের বিরুদ্ধে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেয়ার বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক থেকে কলকাতাস্থ বিদেশি নাগরিক পঞ্জিকরণ অফিস (এফআরআরও)-র কাছে তথ্য চেয়ে পাঠানো হয়েছিল। তখনই ধরা পড়ে যে, নূর বিনা ভিসায় বৈধ কাগজ ছাড়াই ভারতে থেকে গেছেন। গোয়েন্দারাও এর কারণ সম্পর্কে রীতিমত দ্বন্দ্বে রয়েছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
আমি
১৯ এপ্রিল ২০১৯, শুক্রবার, ১২:১৩

আমি চাই এর কঠোর শাস্তি বাংলাদেশের বদনাম করছে

অন্যান্য খবর