× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার

সাপের ভয়ে দপ্তর ছাড়লেন লাইবেরিয়ার প্রেসিডেন্ট

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২১ এপ্রিল ২০১৯, রবিবার, ৮:২৭

সাপের ভয়ে নিজের দপ্তর ছেড়েছেন লাইবেরিয়ার প্রেসিডেন্ট। কয়েক দিন ধরে নিজের বাসভবনেই দাপ্তরিক কার্যক্রম পরিচালনা করছেন তিনি। ব্যতিক্রম এই ঘটনা এখন ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বজুড়ে।
বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পৃথিবীতে নির্বাচন, রাজনৈতিক বিরোধ, সামরিক হস্তক্ষেপ এরকম নানা কারণে অনেক দেশের প্রেসিডেন্টকে তাদের কার্যালয় ছাড়তে হয়েছে। কিন্তু লাইবেরিয়ার প্রেসিডেন্টকে অফিস ছাড়তে হয়েছে সমপূর্ণ ভিন্ন এক কারণে। বুধবার থেকে নিজের কার্যালয় বাদ দিয়ে বাড়ি থেকে রাষ্ট্রীয় কাজ করতে বাধ্য হচ্ছেন লাইবেরিয়ার প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়েয়া। আর তার কারণ হলো দুটো কালো সাপ। এর আগেও একবার কার্যালয় ছাড়তে হয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্টকে।
এরপর আর ফিরতেই পারেন নি সেখানে। ২০০৬ সালে এক অগ্নিকাণ্ডে প্রেসিডেন্টের দপ্তর ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পর থেকে লাইবেরিয়ার প্রেসিডেন্ট দেশটির পররাষ্ট্র দপ্তরে বসছেন। এখন সেই দপ্তরও ছাড়তে হলো প্রেসিডেন্টকে।  
প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের গণমাধ্যম বিষয়ক কর্মকর্তা স্মিথ টোবি জানিয়েছেন বুধবার ভবনটির অভ্যর্থনা এলাকার দেয়ালের একটি গর্ত থেকে দুটো কালো সাপ বের হয়ে আসে। স্থানীয় গণমাধ্যমে কর্মচারীদের তোলা একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে দুটি সাপ ধীরে ধীরে নড়ছে। আর সবাই ভয়ে দূরে দাঁড়িয়ে দেখছে। এখন সেগুলোকে তাড়ানোর চেষ্টা চলছে। টোবি জানিয়েছেন গর্তে ধোঁয়া দিয়ে তাদের বের করে আনার চেষ্টা চলছে। তিনি বলছেন অনেক পুরনো ভবন যার পানি বা পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা থেকে সাপ দুটি এসেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সাপগুলো এখনো ভবনে আছে কিনা সেটিও বোঝা যাচ্ছে না। অন্তত ২২শে এপ্রিল পর্যন্ত সবাইকে দূরে থাকতে বলা হয়েছে। তবে সাপগুলো মারা না হলেও প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়েয়া কার্যালয়ে ফিরবেন বলে জানিয়েছেন টোবি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর