× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার

পতেঙ্গায় কাঁকড়াভাজা খেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু!

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে | ২১ এপ্রিল ২০১৯, রবিবার, ৮:২৯

চট্টগ্রামের পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে ভাসমান দোকানে কাঁকড়াভাজা খেয়ে মাহফুজুর রহমান (২২) নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। রাসেল নামে আরো এক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
শুক্রবার দিনগত রাতে এই ঘটনা ঘটে বলে জানান পতেঙ্গা থানার ওসি উৎপল বড়ুয়া। তিনি জানান, নিহত মাহফুজুর রহমান চট্টগ্রামের বেসরকারি প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। মাহফুজ বাবা-মা’র একমাত্র ছেলে। নগরীর বহদ্দারহাট এক কিলোমিটার এলাকায় তাদের বাসা। মাহফুজের ঘনিষ্ঠ বন্ধু সালাহউদ্দিন সিকদার জানান, শুক্রবার বিকালে মাহফুজ তার বন্ধু রাসেলকে নিয়ে পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে বেড়াতে যান। সেখানে সন্ধ্যার পর এক দোকানে কাঁকড়াভাজা খান।
এরপরই বমি শুরু হয় তাদের। একপর্যায়ে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায় মাহফুজের। রাসেলের নাকে মুখে ফেনা চলে আসে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের সিএনজি অটোরিকশায় করে আগ্রাবাদের মা ও শিশু হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মাহফুজকে মৃত ঘোষণা করেন। রাসেলকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আইসিইউতে ভর্তি করা হয় বলে জানান তিনি।
আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক নুসরাত আকতার নিশু বলেন, রান্নায় ব্যবহার করা উপাদানের বিষক্রিয়ায় মাহফুজের মৃত্যু ও তার বন্ধু আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্ত রাসেলের অবস্থাও সংকটাপন্ন বলে জানিয়েছেন তিনি।
 সৈকতে আসা লোকজন জানান, পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে ভাসমান শতাধিক দোকানে সামুদ্রিক কাঁকড়া, চিংড়িসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ভাজা করে বিক্রি করা হয়।  যেগুলোতে কৃত্রিম রং মিশিয়ে নিম্নমানের তেল দিয়ে ভাজা হয়। ফলে খাবারগুলো অস্বাস্থ্যকর হয়ে পড়ে। যা খেয়ে প্রায় সময় আক্রান্ত হচ্ছে সৈকতে আসা পর্যটকরা।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পতেঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) উৎপল বড়ুয়া বলেন, ভাসমান দোকানগুলোতে অস্বাস্থ্যকর খাবার বিক্রির বিষয়টি তদারকি করা হবে। প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালানোর উদ্যোগ নেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর