× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৭ জুন ২০১৯, সোমবার

ভেড়া পালন পাল্টে দিয়েছে চরের মানুষের জীবন

বাংলারজমিন

মনিরুল ইসলাম মিন্টু, কাউনিয়া (রংপুর) থেকে | ২১ এপ্রিল ২০১৯, রবিবার, ৯:০৭

পাঁচ বছর আগে জীবন যাদের ছিল চলার পথে বড় বোঝা, ভেড়া পালন করে ওরা আজ নিজেদের জীবনকে পাল্টে নিয়েছে। রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার চর বিশ্বনাথ গ্রামের সেইসব মানুষের জীবন এখন সুখে ভরা। ভেড়া পালন করে ওরা বদলে নিয়েছে নিজেদের জীবন চিত্র।
উপজেলা সদর থেকে ১৫ কি.মি. দূরে টেপা মধুপুর ইউনিয়নের চর বিশ্বনাথ গ্রাম। ৫ বছর আগেও এ চর অঞ্চলের মানুষ ছিল বেকার এবং হতদরিদ্র। প্রথমে বেসরকারি সংস্থার অর্থায়নে চর বিশ্বনাথ গ্রামের ৩৯৩ জন মহিলাকে একটি করে ভেড়া প্রদান করে। সেই থেকে ওদের ভেড়া পালন শুরু। এখন গ্রামজুড়ে ভেড়ার আনাগোনা। ৫ সহস্রাধিক ভেড়া রয়েছে এই গ্রামে।
বদলে গেছে গ্রামের নাম। ভেড়া পল্লী হিসেবে এখন গ্রামটিকে চিনে আস পাশের মানুষ।
কথা হয় ভেড়া পালনকারী জাহেদা বেগমের সঙ্গে তিনি জানান, এখন তার ২৭টি ভেড়া, ৫ বছর আগে নিজ উদ্যোগে একটি ভেড়া কিনেন। পরে এনজিও থেকে তাকে দিয়েছে ১টি ভেড়া। ছেলেমেয়ে নিয়ে ৬ জনের সংসারে সবাই এখন ভেড়া দেখাশোনা করেন। বিপদে আপদে ভেড়া বিক্রি করে সংসারের প্রয়োজন মেটায়। অপর ভেড়া পালনকারী মাহফুজা জানায় এনজিও থেকে তাকে ১টি ছাগল দিয়েছিল। খুরা রোগে ছাগলটি মারা গেলে এনজিও কর্মীরা তাকে আবারো বিনা মূল্যে ২টি ভেড়া দেয়। এখন তার ছোট বড় মিলে ২৭টি ভেড়া রয়েছে। সুরতন নেছা জানান, ২টি ভেড়া থেকে ১ বছরেই তার এখন ১০টি ভেড়া। ভিক্ষার ঝুলি কাঁধে নিয়ে এখন আর তাকে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হয় না। গ্রামের ৩৯৩টি পরিবারই এখন সুখে জীবনযাপন করছে। ভেড়া পালনেই তাদের জীবন চিত্র পাল্টে গেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর