× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার

গাজীপুরে ব্যবসায়ী খুন

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর থেকে | ২১ এপ্রিল ২০১৯, রবিবার, ৯:১৮

গাজীপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি)’র আবাসিক এলাকায় ব্যবসায়ী আনসারুল হক তালুকদার খুন হয়েছেন। তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের কর্মচারী। স্ত্রীর চাকরির সুবাদে বরাদ্দকৃত স্টাফ কোয়ার্টারের গোমতি ভবনের তৃতীয় তলায় স্বপরিবারে বসবাস করছিলেন আনসারুল হক। তিনি ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া থানার বেতবাড়ি এলাকার মুজিবুর রহমানের ছেলে। নিহতের ছেলে মাহিন জানান, তার বোন জান্নাতুল ফেরদৌস আরবিনও বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের একজন কর্মচারী (অফিস সহকারী)। তার বোন বারি’র আবাসিক এলাকার সি-টাইপের বাসায় থাকেন। কিন্তু কয়েক মাস আগে আরবিন মাতৃত্বকালীন ছুটি নিয়ে গ্রামের বাড়ি চলে গেলে তার মা মেয়ের বাসায় থাকছেন। শুক্রবার রাতে ওই বাসায় রাতের খাবার সেরে রাত পৌনে ১১টার দিকে বাবা আনসারুল বারির আবাসিক এলাকার গোমতি ভবনের নিজ বাসার উদ্দেশে রওনা হন।
পরে তিনি ফোনে খবর পান, তার বাবা গোমতি ভবনের নিচে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তার বাবা আনসারুলকে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় দেখতে পান। পরে তাকে উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।  শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক প্রণয় ভূষণ দাস বলেন, আনসারুলকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছিল। তার বুকে ও পেটে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। গাজীপুর সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ মিজানুর রহমান জানান, বারি’র ভেতরে থাকা ক্যান্টিনটি কন্ট্রাক্টে নিয়ে পারিচালনা করেন আনসারুল হকের মেয়ের জামাই মো. আলমগীর। আনসারুল হক মাঝে মধ্যে ওই ক্যান্টিনে বসতেন এবং তদারকি করতেন। খুনের ঘটনা উদঘাটনে তদন্ত চলছে। শনিবার দুপুর পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি এবং মামলা হয়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর