× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ জুন ২০১৯, রবিবার

পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির পক্ষে ঢেউ চলছে, দাবি অমিত শাহর

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২২ এপ্রিল ২০১৯, সোমবার, ১১:৪৭

একদিকে পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন লাগাতার বলে চলেছেন, পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি গোল্লা পাবে, ঠিক তখনই কলকাতায় পা রেখে সোমবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ দাবি করেছেন, পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির পক্ষে ঢেউ চলছে। প্রথম দুই দফার ভোটই তা প্রমাণ করে দিয়েছে। সেইসঙ্গে তিনি বলেছেন, এখন সময় এসেছে মমতার তৈরি করা ভয়ভীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো।  বিজেপি সভাপতি মনে করছেন, পশ্চিমবঙ্গ্যে এবার বড় পরিবর্তন হতে চলেছে। মমতা প্রথম দুই দফা থেকেই বুঝে গিয়েছেন এবার আর জয় আসবে না। প্রচারেও ভালো ভিড় হচ্ছে না। হতাশায় কমিশনের সমালোচনা করছেন। অবশ্য দুই দফা নির্বাচনের শেষে দুই প্রতিপক্ষই দাবি করেছেন, তারাই যে ৫টি আসনে ভোট হয়ে গিয়েছে তার সব কটিই পাবেন। অমিত শাহ এদিন প্রথমেই সাংবাদিক সম্মেলন করে দিনের কর্মসুচি শুরু করেছেন।

তিনি দাবি করেছেন, মমতা  এখানে গণতন্ত্রকে কবর দিয়েছেন।
বিজেপি সভাপতি ভোটারদের উদ্দেশ্য করে বলেছেন, শরণার্থী সমস্যার সমাধান একমাত্র বিজেপিই করতে পারে। তুষ্টুকরণের রাজনীতি করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, যার ফলে সমস্যা বৃদ্ধি পায়। তৃণমূল নেত্রীর সমস্যা সমাধানের যে কোনও সদিচ্ছা নেই সেকথাও এদিন শাহ বলেছেন। এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধন বিলের প্রসঙ্গ তুলে অমিত শাহ ফের বলেছেন, এনআরসি, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। দেশের সুরক্ষার জন্যই তা দরকার। বিজেপি দেশে এনআরসি করবেই। নাগরিকত্ব বিলও আইনে পরিণত করা হবে। দেশের সুরক্ষা কাদের হাতে তা ঠিক হবে এই ভোটের মাধ্যমে  বলে জানিয়েছেন অমিত শাহ। তিনি বলেছেন, সন্ত্রাস দমনে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

তাই দেশবাসী ঠিক করবেন কারা আসবে দেশ পরিচালনায় ক্ষমতায় আসবেন। এই প্রসঙ্গে বিরোধীদের দিকে অভিযোগের আঙ্গুল তুলে বিজেপি সভাপতি বলেছেন, দেশ কিভাবে সুরক্ষিত থাকবে তা বিরোধীদের ইস্তেহারে নেই। মঙ্গলবার তৃতীয় দফার ভোটের আগে রাজ্যে অমিত শাহ চারটি সভা করছেন। তিনি রাজ্যের ভোটারদের কাছে ৫ বছরে সোনার বাংলা গড়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন। অমিত শাহ এদিন দাবি করেছেন, গোট দেশ নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্ব মেনে নিয়েছে। অন্যদিকে বিরোধীদের কোনও নেতৃত্ব দেবার মতো কেউ নেই।  

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর