× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার

পাল্টে গেছে কেরানীগঞ্জ ভূমি অফিসের দৃশ্য

বাংলারজমিন

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি | ২৬ এপ্রিল ২০১৯, শুক্রবার, ৮:১৬

 ঢাকার কেরানীগঞ্জে রাজস্ব সার্কেল দক্ষিণ সহকারী কমিশনার ভূমি অফিসে সকল কার্যক্রম অনলাইন ভিত্তিক হওয়ায় সেবাপ্রার্থীদের ভোগান্তি আগের চেয়ে অনেকাংশে লাঘব হয়েছে। এতে ভূমি অফিসে আসা বিভিন্ন সেবাপ্রার্থীদের কাছে অফিসে কর্মরত বিভিন্ন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জবাবদিহিতা একদিকে যেমন কমে গেছে অন্যদিকে তেমন সেবা প্রাপ্তিরাও সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। কেরানীগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল দক্ষিণ ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার প্রমথ রঞ্জন ঘটক যোগদানের পর থেকেই পুরোদমে অফিসে অনলাইন সেবা প্রদান কার্যক্রম চালু করা হয়েছে।
কেরানীগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল দক্ষিণ ভূমি অফিসের অফিস সহকারী মোহাম্মদ মজিরুল হক জানান, বর্তমান সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রমথ রঞ্জন ঘটক স্যার অফিসে যোগদান করার পর থেকেই অফিসে অনলাইন সেবা কার্যক্রম পুরোদমে চালু করা হয়েছে।  সেবাপ্রার্থীরা এখন নামজারি আবেদন, মিসকেসের আবেদন অনলাইনে করতে পারছেন। এতে কোন তারিখে শুনানি এবং কোন তারিখে নিষ্পত্তি তা তারা ঘরে বসেই জানতে পারছেন। এছাড়া অনলাইনেও মানুষ তাদের নামজারি পর্চা পাচ্ছেন। সেবা প্রাপ্তিদের এখন আর বাড়তি টাকা খরচ করার দরকার হচ্ছে না। অপরদিকে অফিসে দালালদের দৌরাত্ম্য কমে যাচ্ছে এবং দালালদের হাতে দীর্ঘ সময়ে জিম্মি থাকা ভূমি অফিসে সেবা প্রাপ্তিরা মুক্ত হয়ে নিজেরাই ভোগান্তি ছাড়া ভূমি সংক্রান্ত কাজকর্ম দেদারসে করতে পারছেন। হাসনাবাদ এলাকার ভূমি মালিক আব্দুস সালাম জানান, অফিসে অনলাইন কার্যক্রম চালু হওয়ায় আমরা এখন অনেক সুবিধা ভোগ করছি।
এব্যাপারে কেরানীগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল দক্ষিণ সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রমথ রঞ্জন ঘটক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ডিজিটাল কার্যক্রম শতভাগ বাস্তবায়ন করার জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ভূমি অফিসে সেবাপ্রার্থীদের ভোগান্তি লাঘবে ভূমি সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম আমরা অনলাইন ভিত্তিক চালু করেছি। এতে সেবাপ্রার্থীদের ভোগান্তি আগের চেয়ে অনেকাংশে লাঘব হয়েছে। আগে নামজারি করতে অনেক সময় লাগতো। অনলাইনে নামজারি আবেদন করায় সেবাপ্রার্থীরা এখন দ্রুত সময়ে তাদের নামজারি নিষ্পত্তি হয়ে নামজারি পর্চা হাতে পেয়ে যাচ্ছেন। এতে তাদের বাড়তি টাকা খরচও কমে যাচ্ছে এবং দালাল চক্রের দৌরাত্ম্য অনেক কমে গেছে। তবে অফিসে প্রয়োজনীয় নথিপত্র ও কাগজপত্র রাখার কিছু সমস্যা থাকলেও আমরা দ্রুত এই সমস্যা সমাধান করে অফিসে আসা সেবাপ্রাপ্তিদের শতভাগ সেবা দিতে সক্ষম হবো।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর