× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা জাতিসংঘের

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি: | ১ মে ২০১৯, বুধবার, ৮:৩৮

দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টার পর পাকিস্তান সমর্থিত জৈইশ ই মোহম্মদ জঙ্গি গোষ্ঠীর প্রধান মাসুদ আজহারকে ‘আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী’ হিসেবে ঘোষণা করেছে জাতিসংঘ। এর আগেই জৈইশ ই মোহম্মদকে জাতিসংঘ আন্তর্জাতিক জঙ্গী গোষ্ঠী হিসেবে নিষেধাজ্ঞার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করেছিল। তবে মাসুদের ব্যাপারে এতদিন ধরে চীন আপত্তি জানানোতেই মাসুদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছিল না। ২০০৯, ২০১৬ এবং ২০১৭ সালে বারে বারে চীন নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে মাসুদের ব্যাপারে ভেটো প্রয়োগ করেছে। সম্প্রতি চীন নমনীয় নীতি নিয়ে মাসুদের ব্যাপারে টেকনিক্যাল আপত্তি তুলে নেওয়ায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের পক্ষে মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসীর তালিকায় আনা সম্ভব হয়েছে। এর ফলে মাসুদের সমস্ত স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা সম্ভব হবে। ভারত এটিকে তাদের কূটনৈতিক সাফল্য হিসেবে মনে করছে। জাতিসংঘে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত সৈয়দ আকবরউদিদন এক টুইট বার্তায় মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী ঘোষণায় ছোট-বড় সকলেই একজোট হয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন।
এজন্য তিনি সকলকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন। মাসুদ আজাহারকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী হিসেবে ঘোষণার জন্য পশ্চিমী দেশগুলিও চাপ সৃষ্টি করেছিল। মার্চ মাসে আমেরিকা, বৃটেন এবং ফ্রান্স মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী হিসেবে ঘোষণার প্রস্তাব এনেছিল। সেই প্রস্তাবে পদ্ধতিগত ত্রুটির কথা বলে সেই আপত্তি জানিয়েছিল চীন। গত মঙ্গলবারই চীন জানিয়েছিল, মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণার পক্ষে সদর্থক অগ্রগতি হয়েছে। ফলে বুধবার চীন কোন আপত্তি না জানানোয় জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া সহজ হয়েছে। এই নিষেধাজ্ঞার ফলে মাসুদের সব সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত হবে, তার বিরুদ্ধে অস্ত্র ক্রয়ে নিষেধাজ্ঞা থাকবে এবং সে কোথাও ভ্রমণ করতে পারবে না।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Kazi
১ মে ২০১৯, বুধবার, ২:১৮

Is it open for anyone to buy weapons ? Why it necessary to declare by UNO to put embargo to stop purchasing weapons ? I didn't understand.

mashud hossain
১ মে ২০১৯, বুধবার, ৮:১৬

কেমন লাগছে "পাকিস্তান"? প্রয়োজন শেষে আমারা সবাই সাদ্দাম, গাদ্দাফি আর লাদেনের পরিনতি বোগ করব। আমরা ওদের কাছ থেকে গোলা -বারুদ কিনব, ওদের পরিকল্পনামত নিজেরা মারামারি করব। পরিচয় হব টেররিষ্টের। তার পর রাস্তার কুকুরের জীবন অবসান।

অন্যান্য খবর