× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৭ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার

আজ বিশ্ব মা দিবস

ষোলো আনা

ষোলো আনা ডেস্ক | ১২ মে ২০১৯, রবিবার, ৯:১৯

‘মা’ এক শব্দেই তার পূর্ণতা। মিষ্টি এক ডাক। মা’কে ভালোবাসার নাই কোনো নির্দিষ্ট দিন। মায়ের জন্য ভালোবাসা চিরন্তন। তবে বিশ্ব মা দিবসের ধারণার প্রবর্তন করেন মার্কিন পরিচ্ছন্নতাকর্মী অ্যান জার্ভিস। প্রাচীন গ্রিসে পালন করা হতো মা দিবস। প্রতি বসন্তের একটি দিনে দেবতাদের মা ‘রিয়া’কে উদ্দেশ্য করেই পালিত হতো মা দিবস। এই প্রাচীন রীতি থেকে ১৫০ বছর আগের কথা।
সপ্তাহের প্রতি রোববারের সকালে অ্যানা জার্ভিস নিজের প্রতিষ্ঠিত সানডে স্কুলে বাচ্চাদের নিয়ে করতেন বাইবেল পাঠ। বাচ্চাদের দেখে তার মায়ের কথা মনে পড়ে যেত। এ থেকেই ১৯০৫ সালে মা’কে ভালোবাসা ও সম্মান জানাতে প্রবর্তন করেন মাদার্স ডে বা মা দিবসের। স্বীকৃতি ও প্রসার ঘটে ১৯১৪ সালে। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট উড্রো উইলসন সর্বপ্রথম মা দিবসকে সরকারি ছুটির দিন হিসেবে ঘোষণা করেন। ১৯১৪ সালের ৮ই মে মার্কিন কংগ্রেসে মে মাসের দ্বিতীয় রোববার ‘মা’ দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। সেই থেকে আন্তর্জাতিকভাবে পালিত হচ্ছে মা দিবস। ১৯২০ সাল নাগাদ বিশ্বের প্রায় সব দেশে মা দিবসের প্রচলন শুরু হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
সাহেদ
১১ মে ২০১৯, শনিবার, ১০:৩৯

মা দিবস কথাটা শুনলে কেন জানি শরীর জ্বলে উঠে।মনে হয় আমরা মা কে অপমান করছি। মা দিবসতো প্রতিদিন হওয়ার কথা।একদিন পালন করে এটা এক ধরনের নাটক মনে হয়

Dupur
১২ মে ২০১৯, রবিবার, ১২:০১

Ma tomay onek valobashi...

অন্যান্য খবর