× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৫ মে ২০১৯, শনিবার
শ্রীলঙ্কায় সন্ত্রাসী হামলা

জঙ্গি প্রশিক্ষণে জড়িত ছিলেন আলিয়ার, গ্রেপ্তার

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১২ মে ২০১৯, রবিবার, ৩:৫১

শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার মূলহোতা জাহরান হাশিমের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকার সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছে সৌদি আরবে শিক্ষিত একজন পন্ডিত মোহাম্মদ আলিয়ারকে (৬০)। শ্রীলঙ্কা কর্তৃপক্ষ বলছে, প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জাহরানের সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। এ ছাড়া তিনি জাহরানের হয়ে আর্থিক লেনদেন পরিচালনা করতেন। ইস্টার সানডে’তে সন্ত্রাসী হামলাকারীদের প্রশিক্ষণের সঙ্গে তিনি জড়িত। শুক্রবার দেশটির পুলিশ এক বিবৃতিতে এ কথা বলেছে।
এ খবর দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানাচ্ছে, জাহরান হাশিমের শহর কাত্তানকুড়িতে সেন্টার ফর ইসলামিক গাইডেন্সের প্রতিষ্ঠাতা এই মোহাম্মদ আলিয়ার। এখানে রয়েছে একটি মসজিদ, একটি ইসলাম শিক্ষার স্কুল ও লাইব্রেরি। এর মধ্য দিয়ে দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলঙ্কায় সালাফি-ওয়াহাবি ইসলামের প্রভাব বৃদ্ধি করার চেষ্টা করা হচ্ছিল বলে ধারণা করা হয়।
পুলিশের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ইস্টার সানডে’তে শ্রীলঙ্কায় তিনটি গির্জা ও অভিজাত হোটেলগুলোতে যে আত্মঘাতী বোমারু বাহিনী হামলা চালিয়েছে, তাদেরকে দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর হাম্বানতোতায় প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছিল। সেই প্রশিক্ষণে ‘জড়িত ছিল’ মোহাম্মদ আলিয়ার। তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের বিষয়ে আর বিস্তারিত জানাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন পুলিশের ওই মুখপাত্র। এ বিষয়ে আলিয়ার ও তার সহযোগীদের জবাব পাওয়ার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তাদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায় নি। এমন কি তার কোনো আইনজীবীরও নাগাল পাওয়া যায় নি।
কাত্তানকুড়ির মুসলিম সম্প্রদায়ের দুটি সূত্র বলেছেন, জাহরান হাশিমের দৃষ্টিভঙ্গি ছিল কঠোর। তার দৃষ্টিভঙ্গিতে ছিল সালাফি-ওয়াহাবি বিষয়। এমন শিক্ষা ২-৩ বছর আগে থেকে দেয়া হচ্ছিল সেন্টার ফর ইসলামিক গাইডেন্সের লাইব্রেরি থেকে। তবে ওই সেন্টারের বক্তব্য পাওয়া যায় নি এ বিষয়ে। একটি সূত্র বলেছেন, আমি প্রায়ই ওই সেন্টারে যেতাম। তার সঙ্গে দেখা হতো। সেখানে পড়তাম সৌদি জার্নাল ও সাহিত্য।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর