× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৫ মে ২০১৯, শনিবার
ক্যারিয়ারের সবচেয়ে কঠিন শিরোপা গার্দিওলার

ইংল্যান্ডে ম্যানচেস্টার সিটিই সেরা

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ১০:০৯

ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের শিরোপার নিষ্পত্তি হলো আসরের শেষ ম্যাচে। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর এক পয়েন্টের ব্যবধানে শিরোপা ধরে রাখলো ম্যানচেস্টার সিটি। রোববার আসরের শেষ রাউন্ডে  নিজেদের মাঠে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সের বিপক্ষে ২-০ গোলে জয় দেখে লিভারপুল। তবে অ্যাওয়ে ম্যাচে ব্রাইটন অ্যান্ড হোভ অ্যালবিয়নকে ৪-১ গোলে হারিয়ে শেষ হাসি শোভা পায় সিটিজেনদের মুখে। শিরোপা জয়ের পর ম্যান সিটির স্প্যানিয়ার্ড কোচ পেপ গার্দিওলা বলেন, এটাই তার কোচিং ক্যারিয়ারের সবচেয়ে কঠিন শিরোপা।
কোচিং ক্যারিয়ারের বার্সেলোনার হয়ে স্প্যানিশ লা লিগা, বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে জার্মান বুন্দেসলিগার পর গত মৌসুমে ম্যানসিটির হয়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের শিরোপা জেতেন  গার্দিওলা। তবে এবারের মতো বেগ পেতে হয়নি তাকে। গার্দিওলা বলেন, ‘এই শিরোপাটি জিততে আমাদের টানা ১৪টা ম্যাচ জিততে হয়েছে। এখন পর্যন্ত এটাই আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে কঠিন শিরোপা জয়।’
গত আসরে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের চেয়ে ১৯ পয়েন্টে এগিয়ে ১০০ পয়েন্ট নিয়ে প্রিমিয়ার লীগ শিরোপা জিতেছিল ম্যানচেস্টার সিটি। এবার লিভারপুলের সঙ্গে ব্যবধান মাত্র ১ পয়েন্টের। গার্দিওলা লিভারপুলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘অবশ্যই আমি লিভারপুলকে অভিনন্দন জানাতে চাই। গত মৌসুমে ম্যানচেস্টার সিটি একটা মানদণ্ড তৈরি করেছিল। লিভারপুল আমাদের গত মৌসুমের চেয়ে মান আরো বাড়াতে সাহায্য করেছে।’ ২০০৮-০৯ মৌসুমের পর প্রথম দল হিসেবে টানা দুবার ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ জয়ের কৃতিত্ব দেখালো ম্যান সিটি। স্প্যানিয়ার্ড কোচ পেপ গার্দিওলার অধীনে গতবারও চ্যাম্পিয়ন হয় দলটি।
ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে টানা তিন মৌসুম শিরোপা জয়ের রেকর্ডটি সিটির নগর প্রতিপক্ষ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। ১৯৯৮-৯৯ থেকে ২০০০-০১ সাল পর্যন্ত এবং ২০০৬-০৭ থেকে ২০০৮-০৯ মৌসুমে টানা তিন শিরোপা জয়ের কীর্তি গড়ে ম্যানইউ। আগামী মৌসুমে ম্যানচেস্টার সিটির সামনেও টানা তিন শিরোপা জয়ের সুযোগ। গার্দিওলা বলেন, ‘এটা কঠিন হবে, কিন্তু আমরা সর্বশক্তি দিয়ে চেষ্টা করবো। যখন টানা দুটি শিরোপা জিততে পারি, তখন আগামী মৌসুমেও এবারের মতোই ফিরে আসার চেষ্টা করবো।’ ইংল্যান্ডের শীর্ষ ফুটবল লীগে ম্যানচেস্টার সিটির এটি ষষ্ঠ শিরোপা। তবে প্রিমিয়ার লীগের আমলে এ নিয়ে ৪ বার শিরোপার স্বাদ নিলো সিটিজেনরা। প্রিমিয়ার লীগে তারা প্রথমবার শিরোপার স্বাদ নেয় ২০১১-১২ মৌসুমে। আর ইংলিশ শীর্ষ লীগে ম্যানচেস্টার সিটি শিরোপা কুড়ায় ১৯৩৬-৩৭ ও ১৯৬৭-৬৮ মৌসুমে।
রোববার শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে সিটিজেনদের চমকে দেয় ব্রাইটন। ম্যাচের ২৭তম মিনিটে গোল নিয়ে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। তবে মাত্র ৮৩ সেকেন্ডের ব্যবধানে গোল শোধ দেন  ম্যান সিটির আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরো। ৩৮তম মিনিটে ফরাসি ডিফেন্ডার এমেরিক লাপোর্তের গোলে এগিয়ে যায় ম্যান সিটি। আর দ্বিতীয়ার্ধে রিয়াদ মাহরেজ আর ইলকাই গুন্ডোয়ানের গোলে শিরোপা নিশ্চিত হয় সিটির। একই দিন  ঘরের মাঠে জোড়া গোল করে লিভারপুলকে জেতান সাদিও মানে।
প্রিমিয়ার লীগে এ নিয়ে অষ্টমবার আসরের শেষ দিনে শিরোপা নির্ধারণ হলো। ম্যানচেস্টার সিটি শিরোপা জিতলো এর তিনবার (২০১১-১২, ২০১৩-১৪, ২০১৮-১৯)। এবারের প্রিমিয়ার লীগে ৩৮ ম্যাচে ম্যানচেস্টার সিটির ৯৮ ও লিভারপুলের সংগ্রহ ৯৭ পয়েন্ট। সিটির ৯৮ পয়েন্ট ইংলিশ শীর্ষ ফুটবল লীগের ইতিহাসে এক মৌসুমে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। আসরের রেকর্ড ১০০ পয়েন্ট নিয়ে গতবার শিরোপা জিতেছিল ম্যান সিটিই। প্রিমিয়ার লীগে টানা ১৪ ম্যাচে জয় দেখলো সিটিজেনরা। এমন শীর্ষ রেকর্ডটি সিটিরই। ২০১৭তে টানা ১৮ ম্যাচে জয় দেখেছিল তারা। এবারের আসরে ম্যান সিটি দেখেছে ৩২ জয়। এতে নিজেদের গড়া রেকর্ড স্পর্শ করলো তারা। গত মৌসুমে শিরোপা জয়ের পথে ৩২টি জয় দেখেছিল ম্যান সিটি।
ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে ম্যানচেস্টার সিটির আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরোর ১৮ গোলে অ্যাস্টিস্টের কৃতিত্ব  দেখালেন স্প্যানিয়ার্ড মিডফিল্ডার ডেভিড সিলভা। আসরের ইতিহাসে কোনো এক খেলোয়াড়ের গোলে এতো অ্যাসিস্টের নজির রয়েছে কেবল তিনটি। দিদিয়ের দ্রগবাকে ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড  (চেলসি), টেডি শেরিংহামকে ড্যারেন অ্যান্ডারটন (টটেনহ্যাম হটস্পার) এবং রবি ফাওলারকে স্টিভ ম্যাকমানামান (লিভারপুল)। ২০১৮-১৯ মৌসুমে ৩২ গোল  পেলেন আগুয়েরো। এর চেয়ে বেশি গোল পেয়েছিলেন তিনি কেবল ২০১৬-১৭ মৌসুমে (৩৩ গোল)।

প্রিমিয়ার লীগ তালিকা
দল    ম্যাচ    জয়    ড্র     হার    গোল    পয়েন্ট
ম্যান সিটি    ৩৮    ৩২    ২    ৪    ৯৫/২৩     ৯৮
লিভারপুল    ৩৮    ৩০    ৭    ১    ৮৯/২২      ৯৭
চেলসি    ৩৮    ২১    ৯    ৮    ৬৩/৩৯      ৭২
টটেনহ্যাম    ৩৮    ২৩    ২    ১৩    ৬৭/৩৯      ৭১
আর্সেনাল    ৩৮    ২১    ৭    ১০    ৭৩/৫১      ৭০
ম্যানইউ    ৩৮    ১৯    ৯    ১০    ৬৫/৫৪     ৬৬
উলভস    ৩৮    ১৬    ৯    ১৩    ৪৭/৪৬      ৫৭

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর