× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার

বুবলী হত্যাকাণ্ড, তিন আসামি রিমান্ডে

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে | ১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ১০:১০

চট্টগ্রাম মহানগরের বাকলিয়া থানাধীন বজ্রঘোনা এলাকায় বুবলী (২৭) হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় এজাহারভুক্ত তিন আসামিকে তিনদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশকে অনুমতি দিয়েছে আদালত। সোমবার চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আল ইমরান খানের আদালত এই আদেশ দিয়েছেন বলে জানান বাকলিয়া থানার ওসি নেজাম উদ্দীন। আসামিরা হলেন- বাকলিয়ার মদিনা মসজিদের উত্তর পাশে বাণিজ্য ভাণ্ডারের বাড়ির মৃত জালাল আহম্মদের ছেলে মো. মুছা (৪০) ও একই এলাকার সোবহান সওদাগরের বাড়ির মৃত আমিন শরীফের ছেলে আহাম্মদ কবির (৪২) ও নবী হোসেন (৬০)। ওসি নেজাম উদ্দীন বলেন, এজাহারভুক্ত তিন আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়। শুনানি শেষে আদালত ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে শনিবার রাত ১০টার দিকে বজ্রঘোনা এলাকায় ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে গুলিতে বুবলী আক্তার (২৭) নামে এক নারীর মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত শাহ আলম পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। এ সময় বাকলিয়া থানার ওসি নেজাম উদ্দীনসহ চার পুলিশ সদস্য আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে একটি পিস্তল ও দুই রাউন্ড গুলি। পাশাপাশি বুবলী হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে নুর আলম ও নুর নবী নামে দুজনকেও গ্রেপ্তার করা হয়। এদের মধ্যে নুর আলম নিহত শাহ আলমের ভাই। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় শনিবার রাতেই বুবলীর বাবা নোয়া মিয়া বাদী হয়ে শাহ আলম, তার ভাই নূর আলম (২৫), নবী হোসেন (৬০), মো. জাবেদ (২৪), মো. মুছা (৪০), আহমদ কবির (৪২)সহ ৬ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো চার-পাঁচজনকে আসামি করে বাকলিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। আসামিরা সবাই বজ্রঘোনা মদিনা মসজিদ এলাকার বাসিন্দা। এরপর রোববার দিবাগত রাত থেকে সোমবার ভোররাত পর্যন্ত চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় টানা অভিযান চালিয়ে এজাহারনামীয় আসামি মুছা ও কবিরকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান বাকলিয়া থানার ওসি নেজাম উদ্দীন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর