× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার

অসুস্থ মাকে হাসপাতালের বেডে তোলায় সন্তানকে পেটালেন চিকিৎসক (ভিডিও)

অনলাইন

মো. মিজানুর রহমান, বরগুনা থেকে | ১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৫:২৬

বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার পাথরঘাটা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক রোগীর সন্তানকে চিকিৎসকের মারধরের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে।

অসুস্থ মাকে ফ্লোর থেকে হাসপাতালের বেডে তোলায় সন্তানকে পেটালেন পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক আনোয়ার উল্লাহ। চিকিৎসকের মারধরে ওই কিশোর আহত হয়েছে।

কিশোরকে মারধরের ঘটনার একটি ভিডিও ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। পরে ওই ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়। ভিডিওটি শেয়ার করে অনেকেই চিকিৎসকের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। সেই সঙ্গে ওই চিকিৎসকের বিচার চেয়েছেন স্থানীয়রা।

চিকিৎসকের হাতে মারধরের শিকার ওই কিশোরের নাম মো. জিলানী। সে পাথরঘাটা উপজেলার কাকচিড়া এলাকার মো. নেছার উদ্দিনের ছেলে। সোমবার (১৩ মে) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে মারধরের এ ঘটনা ঘটে। পরে কেউ একজন ওই মারধরের ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়।
পরে সেটি মূহর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়। ভাইরাল হওয়া ৫৬ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়, পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডা. আনোয়ার উল্লাহ হঠাৎ উত্তেজিত হয়ে তেড়ে এসে জিলানী নামে এক কিশোরকে চড়-থাপ্পড় মারতে থাকেন। হাসপাতালের নার্স, কর্মী ও চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের সামনে প্রকাশ্যে ওই কিশোরকে মেরে আহত করেন ডা. আনোয়ার উল্লাহ।

এ সময় হাতে স্যালাইন লাগানো এক নারী রোগী ডা. আনোয়ার উল্লাহকে নিবৃত্ত করতে গেলে বাধা উপেক্ষা করে জিলানীকে মারধরের পাশাপাশি অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।

তবে মারধরের শিকার হওয়ার পরও ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে ওই কিশোরকে চিকিৎসকের অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে দেখা যায়। ভিডিওতে শোনা যায় ডাক্তারকে উদ্দেশ্য করে ওই কিশোর বলেছে, অপরাধ করেছেন আপনারা, আর হেইতে কতা কইলে মোগো শাস্তি।

মারধরের শিকার কিশোর জিলানী বলেন, আমার মা হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে সোমবার সকাল ১০টার দিকে অচেতন অবস্থায় পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাই। হাসপাতালে নেয়ার পর দীর্ঘ এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে আমার মাকে কোনো চিকিৎসা না দিয়ে হাসপাতালের ফ্লোরে ফেলে রাখেন নার্স ও চিকিৎসকরা। মায়ের কোনো সাড়া-শব্দ না পেয়ে পরে আমি তাকে ফ্লোর থেকে নারী ওয়ার্ডের একটি বেডে তুলি। এ সময় এক নার্স এসে আমাকে নিষেধ করলে আমি তার নিষেধ উপেক্ষা করি। এর কিছুক্ষণ পরই ডা. আনোয়ার উল্লাহ এসে আমাকে মারধর করার পাশাপশি অশ্লীল ভাষায় গালমন্দ করেন। সবার সামনে আমাকে মারধর করে আহত করেছেন ডা. আনোয়ার উল্লাহ।
পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ফাতিমা পারভীন বলেন, ডা. আনোয়ার উল্লাহর বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ প্রথম নয়। এর আগেও আমরা এ ধরনের অভিযোগ তার বিরুদ্ধে শুনেছি। কিন্তু পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক সংকটের কারণে তখন আমরা কোনো কথা বলিনি। কিন্তু এখন এই সীমা অতিক্রম করেছেন ডা. আনোয়ার উল্লাহ। আমরা তার শাস্তির দাবিতে এবার সোচ্চার হবো।

রোগীর স্বজনকে মারধরের কারণ জানতে চাইলে ডা. আনোয়ার উল্লাহ বলেন, নারী ওয়ার্ডে এক কিশোর ডাক-চিৎকার করছে, নার্সদের কাছে এ কথা শুনে আমি নারী ওয়ার্ডে যাই। এ সময় ওই কিশোরের কথা আমি মোবাইলে রেকর্ড করতে চাইলে মোবাইল ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। তখন আমি তাকে মারধর করি।
মোবাইল ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হলে ওই কিশোরকে পুলিশে সোপর্দ না করে মারধর করা ঠিক হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাব দিতে পারেননি ডা. আনোয়ার উল্লাহ।

বরগুনার সিভিল সার্জন ডা. হুমায়ুন শাহিন খানের মোবাইলে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।
এ বিষয়ে বরগুনার জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ বলেন, ঘটনাটি আমার জানা নেই। তবে এরকম ঘটনা যদি ঘটে থাকে, তাহলে একটি নিকৃষ্টতম ঘটনা ঘটিয়েছেন ওই চিকিৎসক। আমি এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেব।


অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Sabbir
১৫ মে ২০১৯, বুধবার, ৭:৫৫

ওই ডাক্তারের কপাল ভালো যে,আমার এলাকায় হয় নাই।যদি আমার এলাকায় হইত এবং এই রকম ব্যবহার করতো তবে এতক্ষণে ঐ ডাক্তার কে অবশ্যই ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করানো লাগতো। তাতে যে দলের হোক না কেন দল চ**** টাইম থাকতো না। আগে মাইর পরে বাইর।

Monir
১৫ মে ২০১৯, বুধবার, ৭:১০

He is not a doctor He is a gunda

Nlioy
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ১১:২১

এই ডাক্তারের লাইসেন্স বাতীল করে দেওয়া দরকার

মোহাম্মদ আলী
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৭:৩৩

এই ডাক্তারের বিচার না হলে, সারা বাংলাদেশে এ ধরনের ঘটনা আরও ঘটবে

রিপন
১৫ মে ২০১৯, বুধবার, ১২:২০

ডাক্তারের ভাষ্য জানতে পারলাম না। এত ক্ষিপ্ত তিনি কেন হলেন? আচরণিক অসামঞ্জস্যতা প্রকট। তাঁর কি হাইপারটেনশন আছে যা চিকিৎসার আওতায় আনা হয় নি, অথবা কোন অ-নির্ণীত মনোবৈকল্য? গড্ডলিকা প্রবাহে গা না ভাসিয়ে আসুন, আমরা সবাই পাপীকে নয়, পাপকে ঘৃণা করতে চেষ্টা করি; পাপীকে নয়, সমাজদেহ থেকে পাপকে নির্মূলে সক্রিয় সচেষ্ট হই। যাঁরা ক্রিয়াপ্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন পক্ষে বিপক্ষে, সবাইকে ধন্যবাদ। সমাজ সচেতনতা থেকেই তাঁরা মতামত ব্যক্ত করেছেন। এমন সমাজ সচেতনতা প্রতিটি সমাজের জন্যেই গর্বের বিষয়। শুভেচ্ছান্তে, সমাজের একজন নগণ্য নাগরিক - যে নিজেও চিকিৎসাবিষয়ক সাংবিধানিক মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত, সংজ্ঞাহীন হলে হাসপাতালে বেড পাবার, যথাযথ চিকিৎসা পাবার গ্যারান্টি নেই। তবুও ভালোবাসি দেশমাতাকে। মায়ের কাছ থেকে কী পেলাম, তা নয়; মাকে কী দিতে পারলাম তা-ই মূলমন্ত্র। মায়ের কুৎসা অনলাইনে দেশবিদেশে ভাইরাল আকারে রটানোর ফলাফল যদি মাকে শ্রীময় করার ইতিবাচক প্রয়াসে ধাবিত হতো, সংঘবদ্ধ প্ল্যাটফর্ম গড়ে সক্রিয় তৎপরতামূলক কর্মসূচির রূপ পরিগ্রহ করতো, - সবচে' বেশি খুশি হতেন মা স্বয়ং, খুশি হতো মায়ের অগণিত সন্তান!

মাহফুজ আলম
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ১১:০৯

ডাক্তারের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি। কিন্তু আশংকা হচ্ছে ডাক্তার সরকারি দলের কোনো নেতার ছত্রছায়ায় এগুলো করছে কিনা। তাহলে তার কিছুই করতে পারবেনা প্রশাসন।

Anis
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ১০:২৫

বাংলাদেশের ৯৫% ডা. জঘন্য খারাপ, এদেরকে ভারতে নিয়া ট্রেনিং করানো উচিত। আমাদের দেশের ডাক্তারদের থেকে ভারতের ডাক্তাররা ২০০০ গুন ভালো। আমাদের দেশের ডাক্তারদের জন্য পাস করার সাথে সাথে একেকজনকে ১০০ কোটি টাকা দেয়ার ব্যবস্হা রাখা সরকারের উচিত, তাইলে যদি হেতেগো পেট ভরে।

নাজমুল হক নাজু
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৯:৪০

ভিডিও দেখে তো ওকে আনোয়ার মনে হয় না। উনি হচ্ছেন ডাক্তার জানোয়ার। যিনি নিজেই অসুস্থ। মান্যবর কর্তৃপক্ষ, ওকে আগে চিকিৎসা দেওয়া জরুরী।

Abdul hannan
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৮:১২

এমন ঘটনা অনেক সময় গটছে যাদি সব গটনা সমানে অাসেনা। এটা জাতির দূরনাগ্য ছাড়া অার কিছু নয় মনে হয় ও নকেল করে ডাক্তার হয়েছে

Md Kamrul
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৭:৫৪

ডাক্তার সবাই এক রকম না, ডাক্তারদের সেবা ও নিরলস পরিশ্রমে রুগীরা ভালো হয়ে বাড়ি ফিরে যায়। আবার আনোয়ার উল্লাহর মতো ডাক্তার এইদেশে আছে যাদের জন্য অন্যসব ভালো ডাক্তারদের কটূক্তি শুনতে হয়। কিছুদিন আগে বাংলাদেশ ক্রিকেটের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা এম.পি যখন নিজ এলাকায় সরকারি হাসপাতালে ডিউটি আওয়ারে ডাক্তারকে উপস্থিত পাননি তখন উক্ত ডাক্তারের কাছে অনুপস্থিতির কারণ জানতে চাওয়াই এইদেশের অনেক ডাক্তার এমন.পি মাশরাফির চৌদ্দ গুষ্টি উদ্ধার করে ছেড়েছে !!! এখন পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গুনধর ডাক্তার আনোয়ার উল্লাহর ব্যাপারে ডাক্তার সমাজ কি উত্তর দেয় তা দেখার বিষয়!!!

Mustafizur Rahman
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৭:৩১

Cross fire the doctor

Liton
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৭:৩০

কুমিল্লা টাওয়ার হাসপাতালে এই চেয়ে অারো খারাপ ঘটনা ঘটছে।দেখার কেও নাই, এরা ডাক্তার না ,কসাই,

মফিজ
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৭:১১

ডাক্তার ছাত্রলীগ করতো মনে হয় ।

Monsur
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৬:৩৭

This wild beast doctor must be sacked from public service and be appeared criminal sue for beating innocent publicly.

MD SHOHID
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৬:০৯

আগে ভাল মানুষ হোও তার পরে ডাক্তারী করো?

M A Hoque
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৫:৪১

সব জায়গা শুধু উগ্রবাদ। মানবতার মৃত্যু হয়েছে বলে মনে হয়।

Selina
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৫:২৪

The very Dr mentally sick needs instantly admitted to any qulified mental health clinic/hospital . Utimetiy after medical treatment he should appear before enquiry team.

rekos
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৫:০৪

ডাক্তারের ফাশি চায়

ডাঃ মোঃ নুর আলম
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৪:৫৬

ডাক্তারের হাতে শক্তি আছে বলতে হয়,,,

মোয়াজজেম হোসেন
১৪ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ৪:৩৯

ড়াক্তারের আচরনের সাথে সন্ত্রাসী,মাস্তান বখাটেদের আচরন মিল খুজে পাওয়া সহজ।উপযুক্ত বিচার হওয়া জরুরী।

অন্যান্য খবর