× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার

নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা রুটে বিআরটিসি বাসের ভাড়া না বাড়ানোর দাবি

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে | ২২ মে ২০১৯, বুধবার, ৯:৩৪

নারায়ণগঞ্জ-ঢাকা রুটে পুনরায় চালু হচ্ছে বিআরটিসির বাস সার্ভিস। ইতিমধ্যে সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। শুধু উদ্বোধনের বাকি। তবে বাসের ভাড়া পূর্বের ভাড়ায় রাখার দাবি জানিয়ে নতুন করে ভাড়া না বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছে যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ ফোরাম। মঙ্গলবার যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ ফোরামের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বির স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে তারা বলেন, আমরা গভীর উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, নারায়ণগঞ্জে গণ-পরিবহনে বেসরকারি বাস নিয়ে চিহ্নিত একটি গোষ্ঠী দীর্ঘদিন ধরে যে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি তৈরি করে রেখেছে সরকারি পরিবহন সংস্থা বিআরটিসির ভূমিকা যেন তাতে সহায়তা করে চলেছে। পরিবহন থেকে চাঁদা আদায়ের জন্য এখানে সুবিধাভোগী একটি গোষ্ঠী সিন্ডিকেট তৈরি করে জনগণের সঙ্গে সঙ্গে বেসরকারি বাস মালিকদেরকেও জিম্মি করে রেখেছে। বাসের বহু মালিক এ বিষয়ে ভিন্ন সময় র‌্যাব ও পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযোগ করে এসেছে। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জে বাস ভাড়া বৃদ্ধিকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বিআরটিসির এসি ও নন-এসি বাস পুনরায় চালু করা হয়েছিল।
কিন্তু এখানে চলমান বেসরকারি নন-এসি বাসগুলোকে সুবিধা দেয়ার জন্য সেসময় মাত্র ৭দিনের মাথায় নন-এসি বাস বন্ধ করে শুধুমাত্র এসি বাস চালু রাখা হয়। শুধু তাই নয়, গত দুই বছর আগে এখানে বেসরকারি এসি-বাস ‘শীতল’ চালু হওয়ার পরপরই বিআরটিসি তাদের সকল এসি-বাসও বন্ধ করে দেয়। তখন শীতল বাসের ভাড়া ৫৫ টাকা হলেও বিআরটিসি বাসের ভাড়া ছিল ৪৫ টাকা। যার ফলে এই বেসরকারি শীতল বাসকে একচেটিয়া ব্যবসা করার সুযোগ দেয়ার জন্যই বিআরটিসি তাদের বাস বন্ধ করে দেয় বলেই নারায়ণগঞ্জের মানুষ মনে করে। বিবৃতিতে বলা হয়, এখন আবার বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ তাদের এসি-বাস ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে চালু করতে যাচ্ছে বলে আমরা তাকে স্বাগত জানাই। আমরা এসি-বাসের সঙ্গে সঙ্গে নন-এসি বাস চালুরও দাবি জানাচ্ছি এবং কোনোভাবেই এসি-বাসের ভাড়া ৪৫ টাকা ও নন এসি-বাসের ভাড়া ৩০ টাকার ঊর্ধ্বে না করারও জোর দাবি জানাচ্ছি। আমরা দৃঢ় ভাবে বলতে চাই, বিআরটিসি একটি সরকারি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান, জনগণের সেবা নিশ্চিত করাই এ প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্য। কোনো বিশেষ গোষ্ঠী-স্বার্থ তাদের লক্ষ্য হতে পারে না। এসি-বাসের ভাড়া ৪৫ টাকা ও নন-এসি বাসের ভাড়া ৩০ টাকার ঊর্ধ্বে কোনো ভাবেই মেনে নেয়া হবে না। বেসরকারি বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়কে বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ যদি বৈধতা দেয়ার কোনো চেষ্টা করে তা মেনে নেয়া হবে না। উল্লেখ্য, বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ নারায়ণগঞ্জ শহরের মণ্ডলপাড়া ব্রিজ থেকে ঢাকার গুলিস্তান পর্যন্ত এসি ৫৫ টাকা ও নন এসি ৫০ টাকা ভাড়া নির্ধারণ করেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর