× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২৬ জুন ২০১৯, বুধবার

বগুড়ায় যোগদান ঠেকাতে নার্সদের আন্দোলন

বাংলারজমিন

প্রতীক ওমর, বগুড়া থেকে | ২৩ মে ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৮:২০

বগুড়া নার্সিং ইনস্টিটিউটে পদায়ন হওয়া ইনস্ট্রাক্টর ইনচার্জ হিসেবে বদলির আদেশের ৯ দিন অতিবাহিত হলেও তাকে যোগদান করে নেয়া হয়নি। এদিকে ইনস্ট্রাক্টর ইনচার্জ না থাকায় দীর্ঘ তিন মাস ধরে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বন্ধ রয়েছে। এদিকে বদলি হয়ে আসা নার্সিং ইনস্ট্রাক্টর ইনচার্জের বদলি ঠেকাতে নার্সরা আন্দোলনের নেমেছেন।
বগুড়া নার্সিং ইনস্টিটিউটে সর্বশেষ গত ১৫ই জানুয়ারি লুৎফুন্নেসা নার্সিং ইনস্ট্রাক্টর ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করেন। তিনি যোগদানের প্রায় এক মাস পরে তার পদায়ন হলে তিনি বগুড়া নার্সিং কলেজে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। এরপর থেকে পদটি শূন্য থাকায় সাময়িক কাজের জন্য নার্সিং ইনস্ট্রাক্টর মোছা. মোস্তানুর সুলতানাকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়। তবে তাকে আর্থিক ক্ষমতা প্রদান না করায় এ ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতনভাতা বন্ধ হয়ে যায়। এ ইনস্টিটিউটের অচলাস্থা কাটিয়ে উঠতে গত ১২ই মে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি ঢাকার মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) তন্দ্রা শিকদার স্বাক্ষরিত এক পত্রে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স হাসিনা মমতাজ (বর্তমানে সংযুক্তিতে নার্সিং ইনস্টিটিউটের নার্সিং ইনস্ট্রাক্টর) কে নিজ বেতনক্রমে বগুড়া নার্সিং ইনস্টিটিউটে নার্সিং ইনস্ট্রাক্টর পদে বদলি করা হয়। তার বদলির আদেশ হওয়ার পর থেকেই একটি প্রভাবশালী মহল ওই বদলি আদেশ প্রত্যাহার করতে তৎপর হয়ে ওঠে।
বদলি আদেশ হওয়ার ৯ দিন অতিবাহিত হলেও তাকে নিজ কর্মস্থলে যোগদান করতে দেয়া হচ্ছে না। ওই ইনস্টিটিউটের তৃতীয় বর্ষের আন্দোলনরত নার্স হালিমা খাতুন বলেন, নার্সিং ইনস্ট্রাক্টর ইনচার্জ হিসেবে যাকে বদলি করা হয়েছে তাকে আমরা ক্লাসে পাইনি। তাছাড়া বর্তমানে দায়িত্ব প্রাপ্ত মোস্তানুর আপা একজন অভিজ্ঞতাসম্পন্ন। আর তাকেই আমরা ওই পদে দেখতে চাই। যাকে ইনচার্জ নিয়োগ দেয়া হচ্ছে তিনি যোগ্য নয়। তাকে ইচার্জ করা হলে শিক্ষার্থীদের ক্ষতি হবে। আমাদের দাবি যিনি দায়িত্বে আছেন তাকেই বহাল রাখা হোক। গতকাল বুধবারে ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীদের দিয়ে হাসিনা মমতাজের বদলি আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে আন্দোলন করে। তবে এ নিয়ে শিক্ষার্থীরা দ্বিধা-বিভক্ত হয়ে পড়ে। প্রশাসনের চাপে তারা সকালে আড়াইশ’ শয্যা বিশিষ্ট মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে এসেও মাত্র কয়েকজন শিক্ষার্থী ব্যানার নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেয়। বাকিরা মানববন্ধনে না দাঁড়িয়ে দূরে সরে থাকে। বগুড়া নার্সিং ইনস্টিটিউটের ভারপ্রাপ্ত ইনস্ট্রাক্টর ইনচার্জ মোস্তানুর সুলতানা বলেন, আমি দীর্ঘদিন যাবৎ পর পর কয়েকবার এ দায়িত্ব পালন করে আসছি। আমাকে কর্তৃপক্ষ এ পদে পদায়ন না করে নিয়ম বহির্ভূত একজন জুনিয়রকে পদায়ন করেছেন। আমি প্রশাসনের কাছে জানতে চাই আমার দোষ কোথায়। আর ছাত্রীরা আন্দোলন করছে এটা তাদের বিষয়। বগুড়া নার্সিং ইনস্টিটিউটে নার্সিং ইনস্ট্রাক্টর ইনচার্জ হিসেবে বদলি হয়ে আসা হাসিনা মমতাজকে দীর্ঘ ৯ দিন পরেও যোগদান না করা সম্পর্কে জানতে চাইলে আড়াইশ’ শয্যা বিসিষ্ট বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. এটিএম নুরুজ্জামান বলেন, তিনি ট্রেনিং থেকে সবেমাত্র কর্মস্থলে যোগদান করেছেন। আর শিক্ষার্থীদের একাংশের দেয়া স্মারকলিপি তার হস্তগত হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর